21 C
Dhaka
Monday, December 6, 2021

EKSA E900pro Headset: বাংলা রিভিউ!

- Advertisement -asus motherboards

অন্যান্য দেশের মত  আমাদের দেশেও প্রোফেশনাল গেমারদের স্ট্রিমিং এর প্রবণতা বেড়েছে। এর ফলে গেমিং হেডফোনের ব্যবহার ,চাহিদা ও বাজারে বিভিন্ন ব্রান্ডের আনাগোনা,সবই গত কয়েক বছরে বেড়েছে অনেক বেশি। এরই ধারাবাহিকতায় Vibe Gaming এর হাত ধরে বাংলাদেশের Gaming Headphone এর বাজারে ঢুকেছে EKSA । প্রাথমিকভাবে EKSA এর বেশ কয়েকটি মডেলের হেডসেট নিয়ে এসেছে তারা। আজকে আমরা রিভিউ করবো EKSA E900 Pro 7.1 Virtual Surround Sound Gaming Headset টি। দেখবো এর খুটিনাটি ,জানাবো এর প্রাইস অনুসারে আমাদের কেমন লেগেছে হেডসেট টি। আপনার কেনা উচিত কি না।

*** Thanks to Vibe Gaming for sending us the review unit.Vibe Gaming is the sole distributor of EKSA. Wholesale and retailing all over Bangladesh. visit official site: Vibe Gaming, fb page: Vibe gaming***

- Advertisement -

EKSA E900 Pro এর সাথে থাকছে ২ বছরের অফিশিয়াল ওয়ারেন্টি, রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে তাদের ওয়েবসাইট থেকে

Unboxing,first impression,Design and Build:

বেশ ছোটখাট একটি বক্সে এসেছে হেডফোনটি।বক্সটি কেমন তা ছবিতেই দেখতে পাচ্ছেন। বক্সটি খুলে বের হয়ে এলো একটি faux leather carrying pouch।  ব্যাগটি যথেষ্ট প্রিমিয়াম। ব্যাগ এর মধ্যে ছিল আমাদের কাঙ্খিত হেডফোনটি। সাথে আলাদা একটি ট্রান্সপারেন্ট পলিথিনে ছিল কেবলস ও Quick Faq Guide, User Manual Guide।।

বক্সে কি কি থাকছেঃ

What’s in the box

  • EKSA E900 Pro Gaming Headset
  • Detachable microphone
  • 3.5mm audio cable
  • 3.5mm cable splitter
  • USB-A to USB Type-C cable
  • Carry pouch
  • Operating instructions
- Advertisement -

ডিজাইন,connectivity,controls

- Advertisement -

ডিজাইনের দিকে আসা যাক। হেডফোনটির Design Black and red থিমে করা। উভয় earphone এর পেছনেই রয়েছে কালো ব্যাকগ্রাউন্ডের উপর একটি লাল রঙের লোগো যেটি plugged in অবস্থায় Red LED এর মাধ্যমে জ্বলে। earcups গুলো  এলুমিনিয়াম এর হিঞ্জ দ্বারা যুক্ত ,সেক্ষেত্রে durability এর দিক দিয়েও চিন্তা নেই, ভেঙে যাওয়া,মচকে যাওয়ার ভয় থাকছে না। Aluminum এর ফ্রেমটি যথেষ্ট মজবুত। আরো একটি ব্যাপার যেটি লক্ষ করেছি সেটি হচ্ছে হেডফোনটি অনেকটাই হালকা।

Connectivity and controls এর যাবতীয় অপশনগুলো left air এর সাথে পেয়ে যাবেন। একটি volume wheel,তার নিচেই Mute button,তার নিচে একটি 3.5mm jack port,একটি type-c port, ও আলাদা একটি মাইক্রোফোন পোর্ট রয়েছে।

ডিজাইন সম্পর্কে আমার এক্সপেরিয়েন্স ও মতামতঃ

ear এর Cusion দুটি অনেক নরম ও সফট হওয়ায় ব্যবহারের এক্সপেরিয়েন্স অনেক ভালো পেয়েছি। হেডফোনটি কানে ঠিকঠাক মতই বসছিল, জোর করে চেপে বসার মত কিছু লক্ষ করিনি। তবে এই হেডফোনের সাইজটা আমার কাছে একটু ছোটই মনে হয়েছে। যদিও আমার মাথা যথেষ্ট বড় ও তাতে maximum expansion এ কোনো রকমের সমস্যা ছাড়াই আমি চালিয়েছি ও সুন্দরভাবে ও আরামদায়ক ভাবে আমার মাথায় ফিট হয়েছিল এটি।লং টার্ম ইউজে ঘাম হতে পারে।

কিন্ত একদম ছোট করে রাখা অবস্থাতেও দুটি earcups একসাথে লেগে যাচ্ছিল যেটির কারণে সেই সফট,নরম cushion গুলো একটি অপরটির সাথে চেপে বসে খানিকটা bend হয়ে যাচ্ছিল যেটি লং টাইমে সমস্যা হতে পারে বলে মনে হয়েছে।বরং আমার অল্পদিনের ইউজেই সবসময় একটি অপরটির সাথে লেগে থাকার জন্য এই cushion গুলো কেমন যেন জীর্ণ, বিকৃত হয়ে গিয়েছে।

ওভারল আমার কাছে মনে হয়েছে EKSA এই হেডফোনটির ডিজাইনের ক্ষেত্রে যত সম্ভব ছোট/compact একটি ডিজাইন করার চেষ্টা করেছে। হেডফোনটির expansion এর পরিমাণ আরো একটু বেশি হতে পারতো আমার মনে হয়। অর্থাৎ adjust করে খুব বেশি বড় করা যায় না যেটি হয়তো কারো কারো জন্য সমস্যা হতে পারে।

উপরের দিকে Headband এ বড় করে EKSA লেখা রয়েছে।

detachable system কাজে দেবে অনেকঃ

দুটি ear এর কানেক্টিভিটি যে flexible wire টি দিয়ে সেটির কিছু অংশ বাইরে visible রয়েছে।তবে হেডফোনটির ডিজাইন ও কানেক্টিভিটিতে আমার কাছে সেরা ফিচার মনে হয়েছে detachable wires এর ব্যাপারটি। USB-C ,3.5mm জ্যাক বা microphone jack প্রত্যেকটি জ্যাকই ডিটাচেবল। যেটি অনেকের কাছে অনেক গুরুত্বপুর্ণ।তার এর ব্যাপারটি যাদের কাছে hassle মনে হয় তাদের জন্য অনেকটাই স্বস্তিদায়ক হবে এই হেডফোনটি। কেননা প্রত্যেকটি connection অপশনই detachable হওয়ায় ইউজার এর যখন যেটা দরকার শুধুমাত্র সেটাই কানেক্ট করে রাখতে পারবেন,বাকিগুলো তুলে রাখতে পারবেন।যখন যেই মুহুর্তে মাইক্রোফোন দরকার,শুধু মাইক্রোফোনটিই কানেক্ট করতে পারবেন, শুধু হেডফোন ও চাইলে কানেক্ট করতে পারবেন।

আবার ট্রাভেল করার ক্ষেত্রেও কথাটি সমানভাবে প্রযোজ্য।কোথাও যাওয়ার দরকার হলে অতিরিক্ত তারের ঝামেলা পোহাতে হবে না,যে connection টি দরকার মনে হবে সেটি  নিয়ে সাথে হেডফোনটি সাথে আসা pouch টিতে নিয়ে নিলেই ঝামেলা শেষ। আর এর বাইরেও detachable হওয়ার আরেকটি বড় সুবিধা হচ্ছে wire হেডফোন থেকে ছিড়ে আসা, ছিড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। আর সারাক্ষণ তার যুক্ত থাকাটাও অনেকের কাছে বিরক্তিকর একটি ব্যাপার। এবং আরো একটি বড় সুবিধা হচ্ছে যেকোনো সময়ে যেকোনো wire যদি নষ্ট হয়,কাজ করা বন্ধ করে দেয়, ইউজার simply এটি চেঞ্জ করে অন্য একটা কিনে আনতে পারবেন, হোক সেটা microphone, হোক সেটা splitter, হোক সেটা USB-C পোর্ট।

Specifications:

এবার একটু স্পেসিফিকেশন এর দিকে নজর দেওয়া যাক।

● Driver diameter: 50mm
● Impedance: 320hmo
● Sensitivity: 105dB +/- 3dB at 1KHz
● Frequency range: 20Hz-20KHz
● Audio control: Onboard
● Sound: Virtual Surround Sound
● Mic Sensitivity: -40dB +/- 2dB
● Micphone type: Pluggable Noise Cancelling
● Headset Cable: 3.5mm Cable+ USB Cable

Driver: তাদের ওয়েবসাইট থেকে 7.1 Surround এর ডেডিকেটেড ড্রাইভার নামিয়ে নিতে হবে। Driver এর compatibility নিয়ে কিছু Notes সেখানে উল্লেখ ছিল। সেটি আমি এখানে সরাসরি দিয়ে দিচ্ছি। Mac এর জন্য তাদের কোনো Driver নেই ও E910 ছাড়া বাকি হেডসেটগুলোর ড্রাইভার Windows 8 প্লাটফর্মে কাজ করবে না তাদের দেওয়া তথ্য অনুসারে। এবং স্বাভাবিকভাবেই একেবারেই অল্প কিছুদিন আগে Windows 11 লঞ্চ হওয়ায় Windows 11 এর জন্য ডেডিকেটেড ড্রাইভার এখনো রিলিজ হয়নি।

সফটওয়্যারঃ

EKSA এর ড্রাইভার এর পাশাপাশি সফটওয়্যার ও রয়েছে যেটি Driver ইন্সটলের পর পিসি রিস্টার্ট দিলেই ফুল ফাংশনালিটির সাথে চালু করা যায়। এর UI মোটামুটি লেগেছে আমার কাছে। আরো ইম্প্রুভমেন্ট এর সুযোগ আছে বলে মনে করি। Information বাটনে ক্লিক করলে সম্পুর্ণ সফটওয়্যারটিই ক্রাশ করছিল বারবার লক্ষ করেছি যেটি একটি খুবই দৃষ্টিকটু বাগ বলেই মনে হয়েছে আমার কাছে।

উপরন্তু Speakers,Microphone এর যেসব ডেডিকেটেড ফাংশন ও অপশন,সেগুলো একদমই ভিজিবল নয়, স্পিকার অপশন ,আইকন বা মাইক্রোফোন অপশন,আইকন এ ক্লিক করলে কিছু বোঝার উপায় থাকে না যে এগুলোর আদৌ কোনো অপশন রয়েছে কি না। বরং এই আইকনগুলোতে ক্লিক করলে কখনো ড্রপ ডাউন মেনু আসে, কখনো আসে না। রাইট ক্লিক করে ড্রপ ডাউন মেনু নিয়ে আসতে হয় ও তখন এর সকল অপশন গুলো নজরে আসে।

তবে সফটওয়্যারটির অপশনগুলো এই হেডফোনের ওভারল সাউন্ড কোয়ালিটি,tweaking,customization এর জন্য অনেক বেশি কার্যকরী। Volume control সেকশন থেকে master ও left right volume চেঞ্জ করা যায়। রয়েছে ডেডিকেটেড equalizer, environmental effects,sample rate সেকশন ,dedicated equalizer সেকশনটি অনেক বেশিই দরকার হবে ইউজার এর, কারণ নিজের পছন্দসই প্রিসেট সিলেক্ট করা বা equalizer থেকে নিজের মত করে টুইক করে বেস্ট সাউন্ড আউটপুট বের করে নেয়ার জন্য অনেক বেশি কাজে আসবে এই equalizer। equalizer এ কমন ১২ টি প্রিসেট রয়েছে, তাছাড়া নিজের মত করে স্লাইডার গুলো চেঞ্জ করার সুযোগ তো অবশ্যই থাকছে। এবং ইচ্ছামত এডিট করার পর তা আলাদা প্রোফাইলে সেভ করেও রাখতে পারবেন ইউজার। environmental effects নিয়ে আমি বেশি ঘাটাঘাটি করিনি, আমার মনে হয় এটি নিয়ে কাজ করার দরকার হবেও না কারো।

Microphone এর জন্য ও রয়েছে বেশ কয়েকটি অপশন। Volume control,Sample rate,Noise reduction এর মত অপশনগুলো কাজে আসবে। Noise Reduction অপশনটি বিশেষ করে মাইক্রোফোন ইউজ এর সময় চালু করে নিলে আউটপুট আরো ক্লিয়ার পাওয়া যাবে।

Sound Quality:

মাল্টিপল প্লাটফর্ম ও ফর্ম ফ্যাক্টরে আমি হেডফোনটি টেস্ট করেছি। মোবাইলে 3.5mm জ্যাক দিয়েও বেশ নরমাল ও satisfactory সাউন্ড কোয়ালিটি পেয়েছি। Bass,treble এগুলো বেশ ব্যালান্সড ছিল ও সাউন্ড এর পরিমাণ যে অতিরিক্ত ছিল তা বলবো না, তবে যথেষ্ট ছিল। সাউন্ড এর Clarity ও ভালো ছিল। tones,bass ফেটে যাওয়ার মত কিছু ও পাইনি।

এরপর পিসিতে Type-C Connectivity তে আমি টেস্ট করি। এখানে ডিফল্ট সেটিংসে সাউন্ড এর পরিমাণ আমার কাছে যথেষ্ট মনে হয়েছে, হেডফোনের volume wheel এর মাধ্যমে Volume ফুল দেওয়া ছিল ও PC এর Master Volume 25% দিয়ে প্রথমে টেস্ট করেছি। সাউন্ডের পরিমাণ অতিরিক্ত লাউড না তবে যথেষ্ট, রেগুলার ইউসেজে ৫০-৬০% বা ৩৫-৪৫% এর মধ্যেই যথেষ্ট হবে।

আর আমি DFX Audio Enhancer চালু করেও (কোনো টুইক ছাড়া) টেস্ট করেছিলাম সেক্ষেত্রে মাস্টার ভলিউম ২৫% এই আমার ইউজিং এ সাউন্ড যথেষ্ট বেশি ছিল।

এবং ডেফল্ট অবস্থায়, কোনো টুল ছাড়া সাউন্ড কোয়ালিটি যথেষ্ট ভালো ও সাউন্ডের পরিমাণ যথেষ্ট মনে হয়েছে।  Situation to situation সাউন্ড vary করতে পারে ,তবে সবকিছু বিবেচনা মাস্টার ভলিউম ৫০-৬০% এর বেশি দেওয়া লাগবে না বললেই চলে।

Vocal Was great! বলতে গেলে crisp and clear ছিল ভোকাল।  সাউন্ড সেপারেশন ও ভালো পেয়েছি। প্রায় ফুল ভলিউম পর্যন্ত distortion ছাড়াই ভালো আউটপুট,separation, পাওয়া যাবে ।

তবে আবার ও বলে নেওয়া ভালো ; DFX  এর মত 3rd party booster,enhancer থাকলে বেস, treble, vocal সবগুলোতেই ভালোরকমের নেতিবাচক প্রভাব লক্ষ করবেন যদি সাউন্ড অনেক বেশি হয়। তবে কম সাউন্ডে এসব কিছু হবে না।

about 7.1 Speaker shifter, Equalizer:

সাউন্ড কোয়ালিটি এমনিতে ভালো হলেও যখন EKSA এর সেই সফটওয়্যারটি দিয়ে 7.1 Speaker Shifter চালু করলাম, ওভারল এক্সপেরিয়েন্স আরো কয়েকগুণ enrich হয়েছে। যারা প্রচুর পরিমাণ মিউজিক শুনতে পছন্দ করেন, বিশেষ করে 7.1 Audio ফাইলগুলোর আসল মজা নিতে হলে এই অপশনটি চালু করতেই হবে। 7.1 Shifter এ বেশ অনেকগুলো অপশন দেওয়া রয়েছে EKSA এর সফটওয়্যারে, clockwise,anticlockwise rotation  এর পাশাপাশি manual rotation, manual shifting করে নিতে পারবেন নিজের সুবিধা মত।

7.1 Surround ছাড়াও সফটওয়্যার এর Equalizer টি নিয়েও Tweak করে এই হেডসেট টি থেকে নিজের পছন্দের বেস্ট আউটপুটটি বের করে আনতে পারবেন ইউজার। আমার সাজেশন থাকবে ডিফল্ট সেটিংসে না রেখে equalizer, 7.1 settings গুলো নেড়ে চেড়ে দেখে একটি প্রোফাইল তৈরী করে নেওয়ার।

***7.1 Surround ফিচারটি পিসি এক্সক্লুসিভ***

গেমিংঃ

গেমিং এর ক্ষেত্রেও এই হেডসেটের আউটপুট যথেষ্ট ভালো, sound এর source,angle,distance বুঝা যাবে ভালো মতই। footstep ও বুঝতে অসুবিধা হবে না একদমই। সুতরাং যারা Competitive gaming, E-sports Streaming এর জন্য হেডফোন চাচ্ছেন, তাদের জন্য এটা রেকমেন্ড করাই যায়।

পরামর্শ থাকবে গেমের native sound যদি আহামরি Low না হয়, সঠিক প্রিসেট এও সাউন্ড যদি না পান, তা ছাড়া DFX ইউজ না করতে, বরং মাস্টার ভলিউম ও হেডফোনের ভলিউম হুইল থেকেই সাউন্ড বাড়িয়ে নেওয়াটাই ভালো হবে।

about 3.5mm vs Type-C

পিসিতে চালানোর ক্ষেত্রে পরামর্শ থাকবে 3.5mm জ্যাক এর বদলে Type-C দিয়েই হেডফোনটি ইউজ করতে , কারণ সাউন্ড কোয়ালিটিতে শুধুমাত্র এই 3.5 mm jack ও Type-C এর কারণেই বড় রকমের কোয়ালিটির পার্থক্য লক্ষ করবেন। USB কানেকশনে এই হেডফোনের ওভারল সাউন্ড কোয়ালিটি অনেক অনেক বেটার। 3.5mm টি মোবাইলের ক্ষেত্রেই ইউজ করতে পারেন।বিশেষ করে Type-C দিয়ে একটানা ইউজের পর 3.5MM দিয়ে চালালে অনেকটাই বাজে লাগতে পারে পিসিতে। আরো একটি বিষয় হচ্ছে, এই হেডফোনের LED ইফেক্টটিও শুধুমাত্র Type-C তেই কাজ করে।

Microphone Quality:

যেহেতু কথা বলা, স্ট্রিমিং এর জন্যই মাইক্রোফোন এর ইউজ সবথেকে বেশি হয় ও এখানে ইন্টারনেট কানেকশন, কানেকশন স্টেবিলিটি,used software,method and method ইত্যাদি ফ্যাক্টরের কারণে বিভিন্নভাবে আউটপুট প্রভাবিত হতে পারে সেজন্য আমিও মাইক্রোফোন এর স্যাম্পল হিসেবে সরাসরি আমাদের পিসি বিল্ডার বাংলাদেশ ফেসবুক পেজের সাপ্তাহিক লাইভ শো এর লিংক দিয়ে দিলাম। নিজেরাই বিচার করুন,judge করুন microphone এর কোয়ালিটি।উল্লেখ্য, এই লাইভটিতে আমরা ২/৩ Discord conversation এ যুক্ত থাকি ও শুধুমাত্র একজন এই কনভারসেশনটিকে OBS দিয়ে ফেসবুকে লাইভ করে থাকেন।

এই মাইক্রোফোনের অন্যতম USP হচ্ছে এটির noise cancellation বা noise isolation ফিচারটি। অর্থাৎ ব্যাকগ্রাউন্ড এর অযাচিত অপ্রয়োজনীয় নয়েজগুলো আউটপুট থেকে ফিল্টার্ড হয়ে যাবে যেটি স্ট্রিমিং এর কোয়ালিটির এর জন্য খুবই গুরুত্বপুর্ণ।

LIVE LINK

PC Builder এর Weekly Live এর Discord conversation এ আমাদের PCB এর সুপরিচিত Tech Expert আকিব ভাই শুরুতেই যদিও বলেছেন যে আজকের সাউন্ড আউটপুট অনেক ক্লিয়ার ও নয়েজ ফ্রি লাগছে।। যদিও অন্যান্য দিনগুলোতেও আমি যে Fantech MH86 Valor Space Edition হেডফোনটি ইউজ করে থাকি তাতেও noise cancellation ফিচার রয়েছে ,তারপরেও এটির আউটপুট অনেক বেশিই নয়েজ ফ্রি ও ক্লিয়ার।

মজার ব্যাপার হলো আমি এই স্ট্রিমটি মোবাইল থেকে করেছিলাম, এখানে দুটি বিষয় ঘটতে পারে, Noise cancellation by-default কাজ করছে, অথবা পিসিতে নিয়ে টেস্ট করলে Software noise reduction ছাড়াই একই রকম আউটপুট পাওয়া যেতে পারে, সেক্ষেত্রে সফটওয়্যার এর অপশনটি চালু করলে আরো ভালোমত ফিল্টার হয়ে যাবে আউটপুট সাউন্ড।

তবে উপরের স্ট্রিমিং দিয়েই যে ১০০% বিচার হবে এই মাইক্রোফোনের , তা নয়। বরং প্লাটফর্ম ভেদে, streaming software,connection ভেদে আউটপুট কোয়ালিটি কমবেশি হতে পারে, তবে ওভারল কোয়ালিটি মোটেও খারাপ হবে না আশা করা যায়।

আলাদা করে একটি Mic testing ও আমি করেছি ৮০% সাউন্ড আউটপুট দিয়ে। সেটিও এড করে দিলাম আপনাদের জন্য।

Cables:

কেবল গুলোর কোয়ালিটি best না বলে good/okay বলা যায়, braided নয় বলে অনেকেই একটু বিরক্ত হতে পারেন।তবে এগুলোর durability,ছিড়ে যাওয়া, নষ্ট হয়ে যাওয়া নিয়ে ভয় করার কারণ নেই কেননা সবগুলো কেবলই detachable।

Verdict:

হেডফোনটি ছোটখাট, ডিজাইন সুন্দর, বিল্ড কোয়ালিটি মোটামুটি, হেডফোনের সাউন্ড কোয়ালিটি ভালো, রয়েছে 7.1 surround feature ,মাইক্রোফোন কোয়ালিটি ও ভালো, noise-cancellation সাপোর্ট করে, Mic টি detachable,  cable গুলোও detachable,বহন করা সুবিধা,মেইন্টেন করা সুবিধা, দেওয়া রয়েছে একটি প্রিমিয়াম কোয়ালিটির carry pouch, এই হচ্ছে সামারি।

কিছু কমতি বা নেতিবাচক দিকঃ Headphone টি wireless না, নেই কোনো RGB, 3.5mm jack এ অডিও কোয়ালিটি ভালো পাওয়া যায় না, LED টি শুধুমাত্র type-C তেই কাজ করবে, এটি ফোল্ডেবল না, মাইক এর Boom টি একটু Stiff,সাইজে একটু বেশিই ছোট হওয়ায় দুটি earcaps একটি আরেকটির সাথে লেগে যায় ও এতে cushion গুলো অল্পদিনেই বিকৃত,দাগ,ভাজযুক্ত হয়ে যেতে পারে,আমার ক্ষেত্রে যা হয়েছে। Driver সফটওয়্যার টি ফিচার সমৃদ্ধ কিন্ত Design,navigation আরো সুন্দর,স্টাইলিশ ও গোছানো করা উচিত,ছোট খাট বাগ ও রয়েছে, এই সফটওয়্যারকে ১০ এ ৬/৬.৫ এর বেশি আমি দেব না।

*** কম্প্যাক্ট বানাতে, ক্যারি করা সহজ করতে প্যাকেজিং ও অনেক বেশিই compact করে ফেলেছে EKSA,যে প্যাকেটটি দেওয়া হয়েছে সেখানে হেডফোনটি ঢোকানো আমার কাছে কষ্টসাধ্য,risky মনে হয়েছে, কোম্পানি থেকে কিভাবে এটি প্যাকেজিং করা হয়েছিল ঠিকঠাক করে এতটুকু প্যাকেটের মধ্যে বুঝতে একটু কষ্ট হয়েছে,অনেকটা চেপে,জোর করে ঢোকাতে হয় যেন, এটা রিটার্ন করার সময় রিপ্যাক করতে বেশ বেগ পোহাতে হয়েছে। ভেতরে প্রিমিয়াম ক্যারি পাউচটি সুন্দর ও কাজে দেয়, কিন্ত প্যাকেট অতিরিক্ত ছোট মনে হয়েছে, এবং আমার যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে যে আটসাট প্যাকেজিং এর কারণে ভেতরে হেডফোনের বিল্ড এ প্রভাব পড়লেও পড়তে পারে,cushions গুলো ভাজযুক্ত হয়ে যেতে পারে  ***

এক লাইনেঃ

৩৮০০টাকায় যারা গেমিং,গান শোনা, স্ট্রিম করার জন্য হেডফোন খুজছেন, সাউন্ড কোয়ালিটি ও মাইক্রোফোন কোয়ালিটি মেইন প্রায়োরিটি, কিন্ত RGB ,Wireless ফিচার খুব বেশি দরকার না, বেশি বেশি ট্রাভেল করেন, Wire এর Hasssle যাদের পছন্দ না তাদের জন্য এই হেডফোনটি Recommended! একটি কথাঃ Buy after knowing the small cons.

Product official page: EKSA E900 Pro

Buy EKSA E900 Pro:Vibe Gaming

- Advertisement -asus graphics card
Soaad Bin Zaman Shoron
Gamer | Memer | Tech Enthusiast | Sports Lover | Food Hunter | JUST PHYSICS 2018

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here