এই গরমে ওভারহেড হেডফোন আমার জন্য একটু প্যারাদায়ক হয়ে গিয়েছে। কারনটা খুবই সাধারন। তা হল কান ঘামানো। এছাড়া মাথার মাঝের দিকে চুল ব্রিদিং স্পেস পায় না লং টাইম গেমিং সেশনে। তাই ভাবছিলাম একটা ইন ইয়ার হেডফোন ইউজ করার কথা। কিন্তু ইন ইয়ার হেডফোন কিনে আবার আলাদা মাইক কিনাও ঝামেলার। তাই খুজতেছিলাম কম প্রাইসে ইন ইয়ার হেডফোনের সাথে মাইক কম্বো থাকলে মন্দ হয় না। চিন্তা করতেই চোখের সামনে পড়ে Fantech EG1 হেডফোনটি। দেখতে টিপিকাল হেডফোনের মত হলেও প্রাইস হিসেবে হেডফোনটি আমার ইন ইয়ার হেডফোনের সাথে ডিটাচেবল মাইকের চাহিদাটা পুরন করে বলেই হেডফোনটি চুজ করা।

শুরু করা যাক এর আনবক্সিং এবং প্রায় ৩ সপ্তাহ ইউজের পর হেডফোনটি নিয়ে আমার মতামত।

Unboxing

কালো এবং লাল থিমের সো কল্ড গেমারিশ থিমের বক্সের ভিতরে পাবেন ১ টি ফিমেল ৩.৫ মিলিমিটার টূ হেডফোন,মাইক্রোফোন কনভার্টার, ছোট পলি প্যাকেটে ২ জোড়া এক্সট্রা ইয়ার-টিপস, ১ জোড়া(৪ টি) এক্সট্রা ইয়ারহুকস, ওয়ারেন্টি কার্ড, ডিটাচেবল মাইক এবং হেডফোনটি।

যদিও আমার প্যাকেটে কোন ওয়ারেন্টি কার্ড ছিল না। যা তেমন একটা ইম্পর্ট্যান্টও মনে হয় নাই। তবে Fantech Banlgadesh দিচ্ছে ১ বছরের ওয়ারেন্টি।

 

 

 

 

 

 

 

Build Quality

রেড এবং ব্লাক থিমের গেমারিশ লুকটা আমার কাছে অপ্রয়োজনীয় লেগেছে। এর কোন দরকার ছিল না। তবে তাই বলে এর লুকস খুব বাজে বলবো না। তবে হেডফোনের ক্ষেত্রে একটা স্ট্যান্ডার্ড সিংগেল কালার থাকলে ভাল হত। যেহেতু এটি গেমিং হেডফোন তাই যেন এতে রেড এবং ব্লাক থাকতেই হবে তাই দিছে আর কি।
তবে ডিজাইনটা অনেকটা Cougar Megara বা Tt eSPORTS ISURUS PRO ইন্সপায়ার্ড। যাইহোক প্লাস্টিক শেলে মোড়ানো হেডফোনের ড্রাইভার্সগুলো ১০ মিলিমিটারের। এছাড়াও কিছু স্পেসিফিকেশন্স আছে প্যাকেটের গায়ে যা খুব হেডফোনের পার্ফামেন্সের ব্যাপারে তেমন একটা বিস্তর ধারনা দিবে না।

Specification

SPEAKER 10mm
IMPEDANCE 18+-15%
FREQUENCY RESPONSE 20 TO 20khz
MICROPHONE Omnidirectional
WIRE LENGTH 1.3M
AUDIO JACK 3.5mm Mic + Speaker Combined

যাইহোক আমরা জানি হেডফোনের ড্রাইভারদ্বয় ১০ মিলিমিটারের। হেডফোনের গায়ে লাগানো লাল রঙ্গের ইয়ারটিপ্স এবং ইয়ারহুক আছে যা খুব একটা আরামদায়ক মনে হয় নি। এ ব্যাপারে একটু পরে বলা হবে।

ইনলাইন কন্ট্রোল হিসেবে ৩ টি বাটন যা ভলিউম আপ-ডাউন এবং কল রিসিভ বা কেটে দেয়ার জন্য মাঝে একটি বাটন আছে। প্লাস্টিক বিল্ড হলেও বিল্ড কোয়ালিটি শক্তপোক্ত কিন্তু তেমন প্রিমিয়াম না। হাতে নিলে চিপ ফিলটাই পাবেন।
এর বামকানের নিচে হেডফোন কানেক্ট করার অপশন আছে যা কিনা আমার মতে এই হেডফোনের মুল সেলিং পয়েন্ট বলা চলে। মাইকটি ডিটাচেবল এবং এর আরো একটি মাইক রয়েছে ইনলাইন কন্ট্রলের ভিতরে।
ডুয়াল মাইকের হেডফোনটি ওমনি ডিরেকশনাল মাইকটি কানেক্ট করলে ইনলাইনের মাইকটী ডিসেবল হবে। অন্যদিকে যখন ওমনি ডিরেকশনাল মাইকটি কানেক্ট থাকবে না তখন এর ইনলাইন মাইকটি ইউজ হবে।

ফিচারটা ভালই করেছে মোবাইল ইউজারদের জন্য। একটা কথা বলতে ভুলে গেছি এই হেডফোনটা মুলত মোবাইল গেমারদের জন্যই বানানো। এর এডভার্টাইসিং এ দেখলেই বুঝতে পারবেন এটি মোবাইল ইউজারদের জন্য।

হেডফোনের তার স্ট্যান্ডার্ড রাবারের তবে এটি পেচিয়ে যাওয়ার মত কেবল মনে হয় নি আমার কাছে। হেডফোনের ৩.৫ মিলিমিটার জ্যাকটি এল(L) শেপড।

Sound Quality & Performance


শুরুতেই বলে নিচ্ছি আমি হেডফোনটি কাস্টম ইকুইলাইজারে(রেজর সিন্যাপ্স) এডজাস্ট করে হেডফোনটি ইউজ করেছি। ডিফল্ট সেটিং এ তেমন একটা ভাল সাউন্ড আউটপুট পিসিতে পাই নি। তাই বলাই যায় ডিফল্ট সেটিং এ পিসিতে হেডফোনের সাউন্ড পার্ফামেন্স তেমন আহামরি লাগবে না। অনেকের কাছে অনেক এক্সপেরিয়েন্স বাজেও হতে পারে। তবে মোবাইলে এর সাউন্ড কোয়ালিটি যথেস্ট ইম্প্রুভড। ফোনে বেস যথেস্ট থাকলেও মিডস আর ট্রেবল খুব কম মনে হয়েছে। পিসিতে ইউসেজে তেমন ভাল বেস পাই নি মোবাইলের তুলনায়। তবে ব্যাপারটা তেমন মাথায় নেয়ার মত না। তবে পিসিতে বেস কম হওয়াতে ফুটস্টেপস গুলা মোটামুটি অন পয়েন্ট ছিল। তবে একটু ডিস্ট্যান্স বাড়লে যেখানে বড় হেডসেটে সাউন্ড পাওয়া যায় তা এই ইজি১ এ পেলাম না। বড় হেডসেটে ওয়াইডার সাউন্ড স্টেজ থাকার জন্য এমনটা হতে পারে।

এই হেডফোনে সিএসগো, রেইবনবো সিক্স, পাবজি, ওয়ার্ল্ড অফ ওয়ার্শিপস খেলেছি। সিএসগো,রেইনবো সিক্স সিজ, পাবজির মত গেমে ফুটস্টেপসগুলো অন পয়েন্ট ছিল কিন্তু একটু লং রেঞ্জে যেখানে একচুয়াল হেডসেটে বেটার সাউন্ড পাওয়া যেত তা আমার কাছে কম মনে হয়েছে। তবে সাউন্ড শুনে রিয়্যাক্ট করার মত যথেস্ট সময় পাবেন।


সিএসগোতে সাউন্ড ডিরেকশন অন পয়েন্ট ছিল কিন্তু রেইনবো সিক্সে মাল্টিপল ইভেন্ট হলে মোটামুটি ডিস্ট্যান্সে ফুটস্টেপস মিসিং পাচ্ছিলাম। সাউন্ড ডিরেকশন অন পয়েন্ট ছিল।
তাই একে আমি কম্পিটিটিভ গেমের জন্য পার্ফেক্ট বলবো না তবে হেডফোনটির সাথে মানিয়ে নিতে পারার ব্যাপারটা নিজের। আর অনেক ছোট ছোট ডিটেইলস মিস হচ্ছিল বলে মনে হয়েছে।
অন্যদিকে ক্যাসুয়াল গেম World of Warships, Ace Combat 7: Skies Unknown এইসব গেমে ওভার-অল সাউন্ড ডিটেইল এনাফ মনে হয়েছে এঞ্জয় করার জন্য। তবে ওয়ার্ল্ড অফ ওয়ারশিপস গেমে শেল ফায়ার সাউন্ডটা ফাটা পাচ্ছিলাম এবং ডিটেইলের যে ল্যাকিং তা এখানে বুঝতে পারতেছিলাম।
মেবি শেল ফায়ারিং সাউন্ড ডিটেইলসের লেভেল এই হেডফোনের ক্যাপাবিলিটির মধ্যে পড়ে না। এছাড়া এর লোস এত ভাল না তাই এমন ফাটা শেল ফায়ারিং সাউন্ডের এক্সপেরিয়েন্স হল।

আর মিউজিকের ক্ষেত্রে পিসিতে লোস মোটামুটি ছিল কিন্তু আহামরি না, মিডস এ অনেক কিছুই মিসিং পাওয়া গেছে আর হাইস ওকে ছিল। গেমিং হেডসেটে হাইসটাই প্রায়োরিটি তাই মিউজিকের জন্য এটি পার্ফেক্ট না।
এর ব্যাস এর একটা লিমিটেশন থাকায় ফুল ভলিউম দিলে সাউন্ড ফেটে গিয়েছিল। তখন এক্সপেরিয়েন্সটা এত ভাল ছিল না। তবে আমি পারসোনালি ফুল ভলিউমে গান বা গেমিং করি না।

Mic Test

হেডফোনের মাইক টেস্টের জন্য আমি এর ইনলাইন এবং ডিটাচেবল এক্সটার্নাল মাইকের স্যাম্পল দিচ্ছি নিচে।

মাইকের ব্যাপারে বলতে গেলে মাইকের সাউন্ড আউটপুট ঠিকঠাক ডিস্কর্ড,টিমস্পিক বা যে কোন অনলাইন কলের জন্য। তবে সাউন্ড আউটপুট অনেক কম যা ভিডিওতেই বুঝতে পারছেন। তাই ডিস্কর্ডে আপনার মাইকের অডিও আউটপুট বাড়ানোও লাগতে পারে।

Negative Sides

Fantech EG1 হেডফোনের সাথে আসা বাকি ২ টি ইয়ারটিপস এবং এক জোড়া এক্সট্রা ইয়ারহুকস আছে যা সাধারন রাবারের তৈরি। হেডফোনের সাথে লাগানো ইয়ারটিপস এবং ইয়ারহুকস রাবারের যাতে তেমন কোন কম্ফোর্ট পাই নি।

ডানপাশে মাইকের পজিশন থাকায় একটু ভারী মনে হয়। যেটা লং টাইম ইউসেজে আনকম্ফোর্টেবল মনে হবে।
ইয়ারফোনটি লং টাইম ইউসেজের জন্য না। আমি টানা ৩ ঘন্টার বেশি ইউস করার পরে নিজের কাছেই আনকম্ফোর্টেবল লেগেছে হেডফোনের ইয়ারটিপ্সের জন্য। তাই থার্ড পার্টি ইয়ারটিপ্স নেয়ার পরামর্শ রইল।
মাইকের এডজাস্টমেন্টের জন্য যে মেটাল ইউজ করা হয়েছে তা আমার স্কিন কন্ট্যাক্টে আসলে শক করে। এইটা যদিও আমার নিজের পিসির ইস্যু আই মিন আর্থিন না থাকার ফল। যাদের এমন আছে তাদের জন্য এটা একটু প্যারাদায়ক।

আর সাউন্ড ডিফল্টে ইঞ্জয়িং না হলে সাউন্ড ড্রাইভার সফটওয়্যার থেকে বা কাস্টম থার্ড পার্টি ইকুইলাইজার সফটওয়্যার দিয়ে টুইক করার পরামর্শ রইল।

Positive Sides

Fantech EG1 হেডফোনের ডিটাচেবল মাইক। যা ওভারহেড হেডফোনের রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে আমার ক্ষেত্রে কাজ করছে। মাইক কোয়ালিটি বলবো সন্তোশজনক তবে খুব ভাল না।

গেমের সাউন্ড ডিরেকশন চলার মত যা একদমই বাজে না। বড় হেডসেটের রিপ্লেস না হলেও আপনি এটা নিয়ে অলনাইন ল্যান টুর্নামেন্ট খেলতে পারবেন।

আমরা যে টিপিকাল ব্রান্ডেড হেডসেট ইউজ করি তা দিয়ে বাংলাদেশের ল্যান টুর্নামেন্টে মাঝে মাঝে ল্যান খেলা টাফ হয়ে পড়ে আশেপাশের নয়েসের জন্য। সে হিসেবে এটি ভাল রিপ্লেসমেন্ট হতে পারে কম প্রাইসে।

ওভার অল হিসেব করতে গেলে ১৪০০ টাকার ডিলে এই ইয়ারফোনে লসের কিছু নাই। তবে এইটা রিপ্লেসমেন্ট হেডফোন হিসেবে কাজের একটা জিনিশ। হেডফোনটি ইউজ করে বলবো না আমি হতাশ কিন্তু এই প্রাইসে এর যতটুকু করা দরকার তা এটি করছে তাই আমি এটি ঐভাবে রেকমেন্ডও করতে পারছি না। Fantech EG1 হেডসেটটি কিনতে হলে ক্লিক করতে পারেন Fantech Bangladesh-এর পেজে বিস্তারিত জানার জন্য।

আমি অডিও সম্পর্কে খুব একটা অভিজ্ঞ না তবে চেষ্টা করেছি Fantech EG1 নিয়ে নিজের এক্সপেরিয়েন্সটা শেয়ার করার। ভুল ত্রুটি হলে আমাকে জানাতে পারেন উপকৃত হব।

Fantech এর অন্যান্য পণ্যের রিভিউ পড়তে ক্লিক করুন এখানে