শুরুতেই বলে রাখি সিপিউ অফ দি ইয়ার মুলত হচ্ছে একটি ক্লিক বেইট টাইটেল। তবে আজ আমরা দেখে নেব ২০১৮ সালে রিলিজ হওয়া সকল ধরণের ডেস্কটপ, ল্যাপটপ ও স্মার্টফোন প্রসেসরের মধ্যে কোনটি জিতে নিচ্ছে তাদের নিজস্ব ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্ঠত্বের পুরস্কার।

২০১৮ সালে আমরা কম্পিউটার ও স্মার্টফোন দুটো ক্ষেত্রেই বেশ কিছু প্রসেসরের রিলিজ দেখতে পেয়েছি। এ এম ডির দিক থেকে আমরা রাইজেন এপিউ, সেকেন্ড জেনারেশন রাইজেন ও থ্রেডরিপার প্রসেসর বাজারে রিলিজ হতে দেখতে পেয়েছি। অপর দিকে ইন্টেলের পক্ষ থেকে মূলত তাদের ৮ম জেনারেশনের বকেয়া থাকা প্রসেসর ও ৯ম জেনারেশনের I5, I7 ও একেবারেই নতুন মেইনস্ট্রিম I9 প্রসেসর রিলিজের পাশাপাশি X299 চিপসেটের জন্যও রিফ্রেশ এক্সট্রিম প্রসেসর রিলিজ করেছে। যদি স্মার্টফোনের প্রসেসরের দিক দেখা যায় তাহলে তাহলে এই কম্পিটিশন কোয়ালকমের SD 845, হুয়াওয়ের কিরিন 980, Helio X30 এবং এপলের A12 ও A12X Bionic চিপসেটের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রয়েছে। চলুন দেখে নেয়া যাক কি পেতে যাচ্ছে পিসি বিল্ডার বাংলাদেশের বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে সিপিউ অফ দি ইয়ার এ্যাওয়ার্ড!

Best Gaming Processor

Intel® Core™ i5-9600K

Price: 27,500 BDT

এই ক্যাটাগরিতে হয়ত ইন্টেলের 9900K সিপিউ কে বসানো যেত কিন্তু আপনারা যদি বিভিন্ন 9600K vs 9900K এর বেঞ্চমারক রেজাল্ট দেখেন তাহলে গেমিং পারফর্মেন্সে তেমন খুব একটা পার্থক্য দেখা যাবে না। প্রাইস টু গেমিং পারফর্মেন্স রেশিও I5 9600K তেই ২০১৮ সালে সবচেয়ে বেশি পাওয়া যাচ্ছে।

এখন অনেকেই বলতে আসবেন Ryzen 2600X বা 2600 পার ফ্রেম ভ্যালু বেশি দেয়, কিন্তু আমরা এই এ্যাওয়ার্ড দিচ্ছি শুধুমাত্র গ্রাফিক্স কার্ড অনুযায়ী র গেমিং পারফর্মেন্সের উপর ভিত্তি করে যেখানে 2600X কিছুটা পিছিয়ে আছে। তাই আপনি যদি আপনার জিপিউ থেকে একেবারে বেস্ট 1080p, 1440p বা 4K রেজোল্যুশনে আটমোস্ট ফ্রেমস পার সেকেন্ড চান তাহলে আপনার জন্য বেস্ট চয়েজ হচ্ছে I5 9600K প্রসেসর।

Best Budget Processor

AMD Ryzen 3 2200g APU

Price: 9,800 BDT

একটি বাজেট প্রসেসরের ভ্যালু যখন বিবেচনা করা হয় তখন সবচেয়ে কম দামের মধ্যে সবচেয়ে ভালো পারফর্ম করা প্রসেসরটিকেই ধরা হয়। আমাদের ক্ষেত্রে বাজেট ক্যাটাগরি মূলত ১২ হাজার টাকার নীচে থাকা সকল প্রসেসর অন্তর্ভুক্ত। আর ২০১৮ সালে রিলিজ হওয়া ১২ হাজার টাকার মধ্যে ওভারঅল বেস্ট পারফরমিং প্রসেসর হচ্ছে AMD Ryzen 3 2200g এপিউ যার বিল্ট ইন জিপিউ ইন্টেলের সিপিউ এর আইজিপিউকে স্পারটার লিওনিডাসের মত লাথি মেরে কুয়োয় ফেলে দেয়।

Ryzen 3 2200g এর মধ্যে থাকা ইন্টিগ্রেটেড Vega 8 জিপিউ সকল প্রকার ই স্পোর্টস গেম যেমন ডোটা ২, সি এস গো, পালাডিন্স ইত্যাদি ১০৮০পি রেজোল্যুশনে মিডিয়াম সেটিংসে ৬০ এফপিএস এভারেজে চালাতে সক্ষম যা ইন্টেলের আইজিপিউ থেকে আশা করাটা বোকামি। সঠিক কনফিগারেশনে এটির বিল্ট গ্রাফিক্স একটি GT 1030 বা RX 550 থেকেও বেশি পারফর্মেন্স দেয়। এছাড়া আলাদা জিপিউ লাগালেও প্রসেসরটি থেকে ডিসেন্ট পারফর্মেন্স পাওয়া যায়। তাই ২০১৮ সালের বেস্ট বাজেট প্রসেসর হিসেবে Ryzen 2200g কে খুব সহজেই গণ্য করা যায়।

Surprise of the Year

Ryzen 2970WX & 2990WX

Price: TBD

এই প্রসেসর সিরিজের এনাউন্সমেন্ট ছিল সম্পূর্ণ সারপ্রাইজিং। গত বছর অর্থাৎ ২০১৭ সালে মাত্র এক হাজার ডলারের মধ্যে ১৬ কোর ও ৩২ থ্রেডের প্রফেশনাল প্রসেসর এনে সবাইকে চমক লাগিয়ে দেয় এ এম ডি। এবারো আরো একটি ধামাকা ঘটাল এ এম ডি, বাজারে আনল মেইনস্ট্রিম প্রফেশনাল ২৪ ও ৩২ কোরের দুটি প্রসেসর Ryzen 2970WX এবং 2990WX। যেখানে ইন্টেলের পক্ষ থেকে ২ হাজার ডলার প্রাইস রেঞ্জে ১৮ কোর ও ৩৬ থ্রেডের প্রসেসর অফার করা হচ্ছে সেখানে আপনারা তার থেকে কম দামে ৩২ কোরের সিপিউ অফার করছে এ এম ডি। তাই ইন্টেলের ১৮ কোরের প্রসেসরের চেয়েও কম দামে ২৪ ও ৩২ কোরের হাইপার থ্রেডেড প্রসেসর মার্কেটে আসাটা অত্যন্ত সারপ্রাইজিং ছিল।

Best Mobile Device Processor

Apple A12X Bionic

শুরুর দিকেই মোবাইল মার্কেটে প্রসেসরের কম্পিটিশন নিয়ে কথা বলা আছে। তবে উপরের অংশ যারা মিস করেছেন তাদের জন্য এই বছরের কম্পিটিশনের নাম আরেকবার উল্লেখ করছি।

  • Snapdragon 845 (Qualcomm)
  • Kirin 980 (Huawei)
  • Helio X30 (Mediatek)
  • Exynos 9810 (Samsung)
  • A12 Bionic (Apple)
  • A12X Bionic (Apple)

যেহেতু শুরুতেই দেখে ফেলেছেন কে জিতে গিয়েছে, তাহলে আর আলাদা করে বলতে হচ্ছে না। A12 Bionic এপল ডিভাইসের জন্য অনেক উন্নতি নিয়ে আসলেও A12X তার পারফর্মেন্সকে নিয়ে গেছে আরো এক ধাপ উপরে। সত্যিকারেই এক ধাপ উপরে কারণ A12 Bionic থেকে প্রায় সব কিছুই একটি করে বেশি রয়েছে। র পারফর্মেন্স যদি বিবেচনা করতেই হয় তাহলে এন্ড্রয়েড কম্প্যাটিবল প্রসেসরগুলো এটির ধারে কাছেও আসতে পারবে না। আর আপনারা জানেন এপলের এক্সক্লুসিভ প্রসেসরগুলো iOs এর সাথে মিলে কি ধরণের অপ্টিমাইজড পারফর্মেন্স দিতে পারে। তাই নিঃসন্দেহে ২০১৮ সালের শ্রেষ্ঠ মোবাইল প্রসেসর হচ্ছে A12X Bionic

Snapdragon 845 vs A12 Bionic

Best Intel Processor

Intel® Core™ i9-9900K

Price: 47,000 BDT

চোখ বন্ধ করেই এই ক্যাটাগরিতে কে জিতেবে তা বলে দেয়া যায়। ইন্টেলের ৯ম জেনারেশনের সবচেয়ে শক্তিশালী মেইনস্ট্রিম সিপিউ I9 9900K হচ্ছে Intel Processor of the Year 2018। ৮ কোর ও ৮ থ্রেডের এই বিস্টকে যথেষ্ট কুলিং সাপোর্ট দিয়ে খুব সহজেই সকল কোরে ৫.০ গিগাহার্টজ স্পীডে তুলে নেয়া যায়। আর যেহেতু ইন্টেলের প্রসেসরের কোর টু কোর ল্যাটেন্সি অনেক কম, সকল ধরণের এপ্লিকেশন ও গেমের মধ্যে আপনি পাবেন আট্মোস্ট বেস্ট পারফর্মেন্স। তবে হ্যা, এই প্রসেসর যদি আপনি কেনার পরিকল্পনা করে থাকেন তাহলে আপনার কম্পিউটার কেনার বাজেট সর্বনিম্ন ২ লাখ টাকা রাখা প্রয়োজন।

Best AMD Processor

AMD Ryzen™ 7 2700X

Price: TBD

ইন্টেলের মত রাইজেনের সেকেন্ড জেনারেশনের 2700X প্রসেসরকেও এই বছরের বেস্ট এ এম ডি প্রসেসর হিসবে আখ্যায়িত করা যায়। প্রথমে কিছুটা কনফিউশন ছিল 2990WX এবং 2700X এর মধ্যে, কিন্তু 2700X প্রসেসর মাত্র ৩২০ ডলারের প্রাইস ট্যাগে ৮ কোর ও ১৬ থ্রেড অফার করছে যেখানে ইন্টেলের 9900K ৬০০ ডলারের নীচে কোথাও পাওয়াই যাচ্ছে না। এছাড়াও ইন্টেলের প্রসেসরে কোন স্টক কুলার নেই কিন্তু এর সাথে আপনারা স্টক আরজিবি রেইথ কুলার পাবেন যা দিয়ে মোটামুটি মানের ওভারক্লকিং করা যায়।

এছাড়াও অনেক সময় এই প্রসেসর এমাজন ও নিউএগ সহ বেশ কিছু অনলাইন শপিং ওয়েবসাইটে সেলে থাকে যেখানে দাম ৩২০ ডলার থেকে কমে ২৭০ বা ২৮০ ডলারে এসে যায়। এটি হচ্ছে শুধু এ এম ডি নয়, বরং বর্তমান প্রসেসর মার্কেটের মধ্যে বেস্ট ভ্যালু ফর ইউর মানি সিপিউ।

CPU of the Year

Intel® Core™ i9-9900K

Price: 47,000 BDT

সিপিউ অফ দি ইয়ার ক্যাটাগরিতে আমাদের কম্পিটিটর ছিল দুটি প্রসেসর। ইন্টেলের দিক থেকে I9 9900K, অপরদিকে এ এম ডির Ryzen 7 2700X সিপিউ। পিউর র পাওয়ার বনাম ভ্যালু ফর মানি। কিন্তু সব কিছু বিবেচনা করে আমাদের সিপিউ অফ দি ইয়ার ২০১৮ পুরস্কারটি যাচ্ছে I9 9900K এর কাছে।

যদি সহজ কথায় জিনিসটি ব্যাখ্যা করতে হয় তাহলে বলা যায় I9 9900K হচ্ছে R7 2700X থেকে বহুগুণে ফাস্ট। যেখানে এটির সকল কোরকে ৫.০ গিগাহার্টজে ওভারক্লক করা যায় সেখানে এ এম ডির প্রসেসরকে ৪.৩ গিগাহার্টজ স্পীডের উপরে স্টেবল রাখা প্রায় অসম্ভব।

Trying to break records 😛😁#Core_I9_9900k at 5ghz OC

Posted by M. A. Rakib on Sunday, November 25, 2018

এটি ছাড়াও এ এম ডির AM4 প্ল্যাটফর্ম এখনো কিছুটা আনস্টেবল। রাইজেন প্রসেসরের সাথে সাথে র‍্যামকেও তেমন ওভারক্লক করা যায় না। এছাড়া গেমিং ও প্রফেশনাল পারফর্মেন্স যদি বিবেচনা কর হয় তাহলে ইজিলি 2700X কে হারিয়ে দেয় I9 9900K সিপিউ। রাইজেনের প্রসেসর সিরিজের কোর ল্যাটেন্সি ও জিপিউ ইউটিলাইজেশন এখনো ইন্টেল থেকে পিছিয়ে আছে। তাই র পাওয়ার, কম্পাটিবিলিটি এবং ওভারঅল পারফর্মেন্স বিবেচনা করে এই বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালের পিসি বিল্ডার বাংলাদেশ সিপিউ অফ দি ইয়ার পুরস্কারটি যাচ্ছে Intel® Core™ i9-9900K প্রসেসরের কাছে।

তো এই ছিল পিসি বিল্ডার বাংলাদেশের সিপিউ অফ দি ইয়ারের আর্টিকেল। তবে ইন্টেল ও এ এম ডির বর্তমান রোডম্যাপ দেখে যা মনে হচ্ছে ২০১৯ সালে প্রসেসর মার্কেটে বেশ হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে পারে। তখন ২০১৯ এর সেরা প্রসেসরগুলো নির্বাচন করা বেশ যন্ত্রণাদায়ক হতে পারে।