রাইজেন থার্ড জেনারেশন প্রসেসর রিলিজ হয়েছে গত সাত জুলাই। বাংলাদেশে অবশ্য এই প্রসেসর ঢুকতে ঢুকতে জুলাই মাসের শেষের দিক চলে যাবে কিন্তু যারা এই থার্ড জেনারেশন রাইজেন প্রসেসর নেয়ার পরিকল্পনা করছেন তাদের জন্য বিভিন্ন ব্র্যান্ড বিভিন্ন মডেলের X570 চিপসেট সংযুক্ত মাদারবোর্ড রিলিজ করেছে। আজ আমরা স্পেসিফিক্যালি কথা বলব বাজারে আসা আসুসের লেটেস্ট X570 মাদারবোর্ড নিয়ে। রাইজেন থার্ড জেন লঞ্চকে কেন্দ্র করে আসুস মোট ১২ টি মাদারবোর্ড রিলিজ করেছে ৮ ধরণের ক্রেতাদের জন্য। ফুল বাজেট অরিয়েন্টেড থেকে

ASUS Prime X570 Series

আসুসের প্রাইম সিরিজের মাদারবোর্ডগুলো মূলত বাজেট অরিয়েন্টেড ইউজারদের দিকে টার্গেট করা হয়ে থাকে। যারা একদমই ওভারক্লক করতে চান না বা বেশি করে হলেও ১০০ মেগাহার্টজ ওভারক্লক করবেন তাদের জন্য বেশ ভালো বাজেট অপশন হচ্ছে প্রাইম সিরিজের মাদারবোর্ডগুলো। এই সিরিজে মোট দুটি মাদারবোর্ড রয়েছে।

  • PRIME X570-P
  • PRIME X570-PRO

তাই যাদের পছন্দের কালার হচ্ছে সাদা আর বাজেটের মধ্যেই পিসিআই এক্সপ্রেস ৪.০ এবং থার্ড জেনারেশন রাইজেন ফুল ইউটিলাইজ করতে চাচ্ছেন তাদের কাছে একটি বায়িং অপশন হয়ে উঠতে পারে আসুসের Prime X570 মাদারবোর্ডগুলো।

ASUS X570 TUF Gaming Series

আসুস মূলত তাদের TUF Gaming সিরিজের লঞ্চ করে ইন্টেলের 200 সিরিজের মাদারবোর্ডের মাধ্যমে। কিন্তু তখনকার প্রাইসিং শুরুর দিকে কিছুটা প্রিমিয়াম হলেও এখন যারা বাড়তি খরচ না করে মাদারবোর্ডে থাকা অধিকাংশ গেমিং ফিচারগুলো চান তাদের জন্য বেশ সুযোগ্য অপশন হয়ে উঠেছে টাফ সিরিজের কম্পোনেন্টগুলো। X570 মাদারবোর্ডের জন্য আসুসের দুটি মডেল রয়েছে।

  • TUF GAMING X570-PLUS (WI-FI)
  • TUF GAMING X570-PLUS

মাদারবোর্ড দুটির সম্পূর্ণ কনফিগারেশন হুবহু সেইম। দুটি মডেলের পার্থক্য হচ্ছে শুধুমাত্র ওয়াই ফাই সাপোর্টে। তাই আপনার যদি আলাদা ঝাক্কি ঝামেলা না করে অল ইন ওয়ান মাদারবোর্ডের প্রয়োজন হয় তাহলে নিতে পারেন ওয়াইফাই ভার্শনটি। কিন্তু বিল্ট ইন ওয়াইফাই যদি প্রয়োজন না হয় তাহলে বেসিক মডেলটিও নিতে পারেন।

TUF Gaming X570-Plus (WiFi) মডেলটির এমআরপি নির্ধারণ করা হয়েছে ২১,৮০০ টাকা।

ROG Strix X570 Series

ROG Strix সিরিজের মাদারবোর্ডগুলো হচ্ছে মূলত আসুসের মিড বাজেট রেঞ্জের গেমিং ফিচার সমৃদ্ধ মাদারবোর্ডগুলো। TUF সিরিজে কেবলমাত্র বেসিক গেমিং ফিচার পাওয়া গেলেও এই সিরিজের মাদারবোর্ডে ব্যবহার করা হয় এন্ট্রি লেভেল প্রিমিয়াম রেঞ্জের সকল কম্পোনেন্ট। এছাড়াও, ভালো ওভারক্লকিং সাপোর্টের জন্য দেয়া আছে প্রিমিয়াম ভোল্টেজ ক্যাপাসিটর। ROG Strix X570 সিরিজে মোট তিনটি মাদারবোর্ড রিলিজ করা হয়েছে।

  • ROG STRIX X570-E GAMING
  • ROG STRIX X570-F GAMING
  • ROG STRIX X570-I GAMING

এই তিনটি মাদারবোর্ডের মধ্যে শুধু X570-I হচ্ছে মিনি আইটিএক্স ভ্যারিয়েন্ট মডেলের। যারা অন দা গো লাইটওয়েট থার্ড জেনারেশন রাইজেন সিস্টেম বানানোর পরিকল্পনা করছেন তাদের জন্য পারফেক্ট বায় হচ্ছে এই মডেল। বাকি দুটি মডেল অর্থাৎ X570-E এবং X570-F হচ্ছে ফুল এটিএক্স ভার্শনের।

X570-F এবং X570-E এর মধ্যে পার্থক্য হচ্ছে কেবল ওয়াইফাই সাপোর্ট। অর্থাৎ X570-F মাদারবোর্ডে কোন ওয়াইফাই সাপোর্ট নেই যেখানে X570-E মাদারবোর্ডে রয়েছে। এছাড়াও X570-E মাদারবোর্ডে আছে এক্সট্রা আরজিবি লাইটিং। এই দুটি জিনিস ছাড়া দুটি মাদারবোর্ডের প্রায় সকল কনফিগারেশনই সেইম। সুতরাং আপনার যদি একটু এক্সট্রা গেমিং লুক এবং ওয়াইফাই সাপোর্টের প্রয়োজন হয় তাহলে নিতে পারেন ROG Strix X570-E Gaming মাদারবোর্ডটি। অপরদিকে অতিরিক্ত ব্লিং ছাড়া স্টাইলিশ লুক আর ওয়াইফাই সাপোর্ট ছাড়া যদি আপনি চলতে পারেন তাহলে আপনার জন্যই হচ্ছে ROG Strix X570-F Gaming মাদারবোর্ডটি।

ROG Strix X570-F Gaming এর এমআরপি নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০,৫০০ টাকা।

ASUS Pro Workstation Series

যারা একদমই ফুল টাইম কন্টেন্ট ক্রিয়েটর, এক সাথে তিন চারটি কোয়াড্রো বা টাইটান জিপিউ চালাতে হয় এবং কাছে থাকা সিস্টেম দিয়ে প্রোডাক্টিভিটি ছাড়া আর তেমন কোন গেমিং বা অন্য কাজ করা হয় না তাদের জন্য রয়েছে আসুসের ওয়ার্ক স্টেশন ক্যাটাগরির X570 Pro WS মাদারবোর্ড।

এই মাদারবোর্ডের তিনটি পিসিআই স্লটে ব্যবহার করা হয়েছে X8/X8/X8 কনফিগারেশন যাতে আপনি আপনার জিপিউ বা স্টোরেজকে ফুল স্পীডে ইউটিলাইজ করতে পারেন। এছাড়াও, এই মাদারবোর্ডে আছে ECC র‍্যাম সাপোর্ট যা হেভি ওয়ার্কলোডে কাজে লাগে।

ROG Crosshair VIII Series

ROG Crosshair এর সিরিজ এর মডেলগুলো হচ্ছে সম্পূর্ণ প্রিমিয়াম সিরিজের মাদারবোর্ড। যারা তাদের থার্ড জেনারেশন রাইজেন প্রসেসর হতে ম্যক্সিমাম পারফর্মেন্স চাচ্ছেন এবং বাজেট ও কোয়ালিটি নিয়ে কোন প্রকার কম্প্রোমাইজ করতে ইচ্ছুক নন তাদের জন্যই হচ্ছে ROG Crosshair সিরিজের মাদারবোর্ড। এই সিরিজে রয়েছে মোট চারটি মাদারবোর্ড।

  • ROG CROSSHAIR VIII FORMULA
  • ROG CROSSHAIR VIII HERO
  • ROG CROSSHAIR VIII HERO (WI-FI)
  • ROG CROSSHAIR VIII IMPACT

এদের মধ্যে শুধুমাত্র Impact মাদারবোর্ডটি হচ্ছে মাইক্রো এটিএক্স ফর্ম ফ্যাক্টরের। অপরদিকে বাকি তিনটি হচ্ছে ফুল এটিএক্স ফর্ম ফ্যাক্টরের। হিরো মাদারবোর্ডটির দুটি ভ্যারিয়ান্ট রয়েছে। একটি হচ্ছে ওয়াইফাই ছাড়া, অপরটি হচ্ছে ওয়াইফাই সহ। ফর্মুলা মাদারবোর্ডটি হচ্ছে আসুস আরওজি লাইন আপের একেবারেই প্রিমিয়াম ফ্ল্যাগশিপ মাদারবোর্ড।

আপনি যদি আমার মত মাইক্রো এটিএক্স ফর্ম ফ্যাক্টরের ভক্ত হয়ে থাকেন তাহলে নিতে পারেন Impact মাদারবোর্ডটি। কিন্তু আপনার পছন্দ হয় যদি ফুল সাইজ মাদারবোর্ড আর প্রিমিয়াম লেভেলে না গিয়েও প্রিমিয়াম সব ফিচার চান তাহলে নিতে পারেন Hero অথবা Hero (WiFi)। আর যদি কোয়ালিটি এবং ফিচারে সামান্যটুকু কম্প্রোমাইজ করতে রাজি না থাকেন তাহলে অবশ্যই নিতে পারেন Crossahair VIII Formula মাদারবোর্ডটি।

বাংলাদেশে এখনো অফিসিয়ালি উপরে উল্লেখিত মাদারবোর্ড দুটির দাম ছাড়া আর কোন মাদারবোর্ডের এমআরপি পাওয়া যায় নি। দাম সম্পর্কে কোন তথ্য পাওয়া মাত্রই আপনাদের তা জানানো হবে। আসুসের সকল প্রোডাক্টের একমাত্র অথরাইজড ডিস্ট্রিবিউটর হচ্ছে গ্লোবাল ব্র্যান্ড প্রাইভেট লিমিটেড। আসুস সম্পর্কিত সকল তথ্য জানার জন্য যোগাযোগ করুন তাদের সাথে।