30 C
Dhaka
Wednesday, June 16, 2021

What is this! দারাজের ৪৫০ টাকার মিনি কিবোর্ড-টাচপ্যাড

- Advertisement -asus motherboards

আজকে একটা অন্যরকম  পেরিফেরাল এর রিভিউ করবো, হয়তো পেরিফেরাল না বলে এটাকে গ্যাজেট বলাই ভালো হবে। চলুন দেখে নেওয়া যাক এই অদ্ভুত জিনিসটা আসলে কি। আজকের রিভিউতে থাকছে দারাজের Mini Keyboard+Touchpad ,একটি ভিন্নধর্মী প্রোডাক্ট।আমরা জানার চেষ্টা করবো এর কাজ,কোয়ালিটি সহ আদ্যপান্ত।

প্রোডাক্টের বৃত্তান্তঃ আমি কিভাবে এটার খোজ পেলাম 

প্রথমত আমি আমার এন্ড্রয়েড টিভির জন্য একটি Bluetooth Keyboard-mouse Combo খুজছিলাম দারাজে। দুর্ভাগ্যজনক ভাবে ৬৫০টাকার একটি কম্বো রিভিউ,সবকিছু চেক করে নেওয়ার পরেও আমার ইউনিটটি ফল্টি থাকায় সেটা আমি রিফান্ড করি। রিফান্ড করে কি অর্ডার দেওয়া যায় দেখতে দেখতেই মুলত এটার খোজ পাওয়া।

জিনিসটা মুলত কি? 

- Advertisement -

মুলত এটি একটা একদমই মিনি সাইজের ব্লুটুথ কিবোর্ড+টাচপ্যাড, শুধু কিবোর্ড বললে কিছুটা ভুল হবে, বরং All in one Multiplatform Multimedia কিবোর্ড-টাচপ্যাড বলা যেতে পারে একে। এর শর্ট স্পেসিফিকেশন মোটামুটি এরকমঃ

ব্রান্ডঃ  এর ব্রান্ড সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি।দারাজের প্রোডাক্ট লিংক থেকে যা জানা যায় তা হলোঃ

দেখতে কেমন,বিল্ড কোয়ালিটি,আকৃতিঃ 

- Advertisement -

ওজনে একেবারেই হালকা,পুরোটাই প্লাস্টিক বিল্ড।দেখতে কিছুটা হ্যান্ডহেল্ড কনসোল টাইপ ভাব আছে। ডান ও বামে নিচ থেকে উপরে কার্ভ করা, নিচেও তাই। উপরের দিকে ডানে ও বামে মাল্টিমিডিয়া সার্কেল রয়েছে (এই অংশটিকে অনেকটা ওয়াকম্যান/MP4 প্লেয়ার এর মত মনে হতে পারে) , প্রতিটি সার্কেলের সেন্টারে একটি ও চারদিকে চারটি বাটন রয়েছে। সার্কেলের পাশেই অবস্থান সারিবদ্ধ চারটি স্পেশাল বাটনের, মিউট,মেসেজ,LMB,Player একদিকে ও অন্যদিকে হোম,ব্রাউজার সহ আরো চারটি বাটন। আর ঠিক মাঝামাঝি অবস্থান করছে টাচপ্যাডটি।

- Advertisement -

বামদিকের সার্কেলের ঠিক নিচেই রয়েছে ৩টি indicator LED।

এই গেলো উপরের অংশ, নিচের দিকে একদম ছোট ছোট বাটন সম্বলিত মিনি কিবোর্ড।

Features, compatibility and usage: 

এই পেরিফেরালটি উইন্ডোজ পিসি/ল্যাপটপ,মোবাইল এবং এন্ড্রয়েড টিভির সাথে চালানো যাবে। দূর থেকে বসে যারা কাজ করতে চান তাদের জন্য কাজে দেবে এটি। লাগছে না কোনো মাউস কারণ সাথেই রয়েছে টাচপ্যাড। আকারে ছোট ও ওজনে হালকা হওয়ায় বহন করাও খুবই সহজ। বেশ কিছু এক্সট্রা ফাংশন বাটন ,মাল্টিমিডিয়া বাটন রয়েছে যেগুলো বেশ কাজে আসবে।এক ক্লিকে বিভিন্ন এপ্লিকেশন অন করা/বিভিন্ন ফাংশন এক্টিভেট করার জন্য বাটনগুলো অনেকেরই উপকারে আসবে।

তবে গেম খেলা বা টাইপিং এর কাজ একেবারেই করা যাবে না এটি দিয়ে, কেননা বাটনগুলো অত্যন্ত ছোট।

মুলত আমার কাছে মনে হয়েছে এই জিনিসটির বেস্ট ইউজ হবে যারা Smart TV বা Android TV বক্স চালান। এসব ডিভাইসগুলো সাধারণত যে রিমোট দেওয়া থাকে সেগুলো দিয়ে অপারেট করা অনেক বেশি কষ্ট, বিশেষ করে ইউটিউব/ব্রাউজার/প্লে স্টোরে স্ক্রল করা,টাইপ করা, যেকোনো অপশনে ক্লিক করা অনেক সময়সাপেক্ষ ও ঝামেলার ব্যাপার , এই কিবোর্ডটি সেইসব কাজ একেবারেই সহজ করে দিবে।

আমার এক্সপেরিয়েন্সঃ 

আমি এটা কিনেছিলাম আমার এন্ড্রয়েড টিভি অপারেট করার জন্য। এবং সত্য বলতে আমার এক্সপেরিয়েন্স ছিল অসাধারণ।। রিমোট দিয়ে প্লেস্টোর,ব্রাউজার,ইউটিউব বা নেটফ্লিক্স অপারেট করা যে কি পরিমাণ কঠিন কাজ তা যারা এন্ড্রয়েড টিভি চালান তারাই জানেন, অনেক রিমোটে কার্সর দেওয়া থাকলেও তা দিয়ে ভালোভাবে অপারেট করা যায় না। বিশেষ করে সার্চ দেওয়া,পাসওয়ার্ড লেখার সময় টাইপ করা একটি দুর্বিসহ ব্যাপার।। একটি চ্যানেল চেঞ্জ/ভিডিও চেঞ্জ/ব্যাক/ফরোয়ার্ড/ভলিউম চেঞ্জ মিউট বা যেকোনো কাজ ই অত্যন্ত সময়সাপেক্ষ হয়ে দাড়ায় রিমোটে।

এটি দিয়ে আমি খুব সহজেই কাজ করতে পারছিলাম, পাসওয়ার্ড লেখা, ব্রাউজারে সার্চ করা, টাইপ করা,ইউটিউব বা প্লেস্টোরে ন্যাভিগেট করা, ভিডিও সার্চ করার সময় নাম টাইপ করার ক্ষেত্রে অনেক বড় সুবিধা পেয়েছি ও সময় বেচে গিয়েছে অনেক।। দ্রুত স্ক্রল করার ক্ষেত্রেও পেয়েছি সুবিধা।

টাচপ্যাডটির কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করতে হয়, টাচপ্যাডটি যথেষ্ট ফাস্ট ও একুরেট, মজার ব্যাপার হলো টাচপ্যাডে Gesture রয়েছে এন্ড্রয়েড ডিভাইসগুলোর মত। মিনি কিপ্যাডের এক পাশে Left Mouse,Right Mouse বাটন ও রয়েছে (যেটি বিভিন্ন সময়ে কাজে এসেছে)। মাল্টিমিডিয়া সার্কেলের পাশের একদম ছোট ছোট ম্যাক্রো কি গুলো ও এক ক্লিকে বিভিন্ন app ওপেন করা, ক্লোজ করা, হোমপেজে যাওয়া, মিনিমাইজ করার মত কাজে সাহায্য করেছে খুবই। আমার এন্ড্রয়েড টিভি চালানোর এক্সপেরিয়েন্স কে অনেক বেশি enrich করেছে এই ছোট্ট জিনিসটি।

অনেক দূর থেকেই সম্পুর্ণ ভালোভাবে কন্ট্রোল করা যায় এটি। Bluetooth receiver এর স্ট্রেংথ ও এর মধ্যে যে bluetooth interface দেওয়া হয়েছে তার কোয়ালিটি ও স্ট্রেংথ ও অনেক ভালো মনে হয়েছে আমার কাছে।

টুকটাক অন্যন্য ফিচারঃ 

Oneclick Funtion কি গুলো বেশ ভালো কাজে আসবে, নিচের ছবিতে দেওয়া হলো ফাংশনগুলো।Cursor এর স্পিড চেঞ্জ করার ও অপশন রয়েছে।

টাইপিং এক্সপেরিয়েন্স কেমনঃ 

কিপ্যাডটি একদম পুরাতন আমলের বাটন ফোনগুলোর মত। সেসব ফোনে যেরকম রাবারের কিপ্যাড দেখতে পাওয়া যেত শক্ত শক্ত ,ঠিক সেরকম। পুরনো আমলের কথা মনে পড়ে যাবে অনেকেরই। রিমোটের মতই রাবারের প্যাড ব্যবহার করা হয়েছে যা অনেক সময়ই শক্ত মনে হবে। বেশ ফোর্স এর দরকার হবে এক একটি বাটন প্রেসের জন্য। বলা বাহুল্য সার্চবারে এড্রেস লেখা/সার্চ করা, ইউটিউব/প্লেস্টোরে সার্চ দেওয়া/পাসওয়ার্ড টাইপ করা ছাড়া কেও যেচে এই জিনিস দিয়ে কিছু টাইপ করতে চাইবেন না।

অন্যন্য প্লাটফর্মঃ 

তবে আমার মনে হয়েছে এন্ড্রয়েড টিভি বক্স অপারেশন ছাড়া এই ডিভাইস আর কারো সেরকম কাজে আসবে না।

বাজে টাইপিং এক্সপেরিয়েন্স+একদম ছোট ছোট বাটন  এর জন্য এটা দিয়ে পিসিতে দূর থেকে টাইপ করার কাজ কেওই করতে চাইবেন না, অন্যন্য বাটনগুলো দিয়ে ছোট খাট ফাংশন এর কাজ করা যেতে পারে হয়তো। স্মার্টফোনেও এটি দিয়ে কাজ করার কোনো কারণ নেই।

Backlit Lighting: 

এই ৪৫০ টাকার ছোট্ট জিনিসটাতে রয়েছে lighting ও। আরজিবি না থাকলেও রয়েছে ব্যাকলাইট, তা আবার ৭টি কালারে চেঞ্জ ও করা যাবে। এই কিউট জিনিসটির সৌন্দর্য আরো বৃদ্ধি করে দিয়েছে Backlit। বাটনের ফন্টগুলোর ভিজিবিলিটি ও ছিল যথেষ্ট ভালো। লাইটের Intensity,brightness ও ছিল অনেক।

কতদিন টিকবে?Internal parts, charging and battery: 

সত্যি বলতে আমার মনে হয়েছে একদমই সস্তা ম্যাটেরিয়াল দিয়ে তৈরী এই জিনিসটি। দাম হিসেবে আপত্তি করার সুযোগ ও নেই অবশ্য। উপর নিচ সব জায়গাতেই তা স্পষ্ট ছিল ডিভাইসটির। হয়তো চীনে এটা বানাতে ১৫০টাকা ও খরচ হয়নি। ভেতরে খুবই সস্তা পিসিবি বোর্ড, কিপ্যাডের কথা তো আগেই বলেছি।হাত থেকে কয়েকবার পড়লে কি হতে পারে তা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ক্রেতার ভাগ্যের উপরই নির্ভর করছে।

ভেতরে দেওয়া রয়েছে ফিচার ফোন/বাটন ফোনের মধ্যে যে ধরণের ব্যাটারি থাকতো ঠিক সেরকম ব্যাটারি। চার্জার দেওয়া নেই, দেওয়া ছিল চার্জিং কেবল। যেহেতু চার্জার দেওয়া নেই, চার্জিং কেবলটি কোন ধরনের চার্জারের সাথে পেয়ার করা হচ্ছে তার উপর নির্ভর করে overvoltage/over charge/over current  এর মত ঘটনা ঘটতে পারে খুবই সহজে, যার কারণে কিবোর্ড/প্যাড/লাইট নষ্ট হয়ে যেতে পারে বা  অতি দ্রুত চার্জিং পোর্ট/ব্যাটারি নষ্ট হয়ে যেতে পারে/চার্জ নেওয়া বন্ধ করে দিতে পারে/ব্যাটারি ড্রেইন ইস্যু সৃষ্টি হতে পারে।

এমনিতে আমি একটানা চালাইনি এটি, তাই কতক্ষণ ব্যাকআপ দেবে তা নিশ্চিতভাবে বলা যাচ্ছে না। Light on আছে কি না, কি ধরণের কাজ হচ্ছে তার উপরেও নির্ভর করবে। তবে এই ব্যাটারি যে একটানা সারাদিন সার্ভিস দেবে সেটা নিশ্চয় কেওই আশা করবেন না। আর ব্যাটারির কোয়ালিটি অনুসারে Idle drain হওয়া টাও খুবই স্বাভাবিক।এমনিতেও ভালোভাবে চললেও কতদিন চলবে তা নিয়ে রয়েছে সন্দেহ। ৩/৫মাস পর হঠাত নষ্ট হয়ে গেলেও কিছু বলার থাকবে না।

 

উপসংহারঃ 

একটি নিতান্তই নিম্নমানের কিন্ত অদ্ভুত ধরনের ডিভাইস বলা যেতে পারে এটিকে। ৪৫০ টাকায় লাইটিং,ছোট্ট কিবোর্ড এর সাথে টাচপ্যাড, wireless হওয়ায় দূর থেকে কন্ট্রোল করার সুবিধা  ইত্যাদি আকর্ষনীয় ফিচার থাকলেও দামের জন্যই এর বিল্ড কোয়ালিটি,ইন্টারনাল ম্যাটেরিয়ালস,পুরোনো আমলের রাবার বাটনস, অত্যন্ত নিম্নমানের  ও সম্পুর্ণ অনিশ্চিত আয়ু/লাইফ ।পিসি/ল্যাপটপ বা মোবাইলের জন্য এটি কেনার কোনো কারণ দেখছি না, তবে স্মার্ট টিভি/এন্ড্রয়েড টিভি বক্স  যারা চালান, তাদের জন্য এটি হতে পারে Life-saver।

দামঃ ৪৫০ টাকা 

প্রোডাক্ট লিংকঃ দারাজ

- Advertisement -asus graphics card
Soaad Bin Zaman Shoron
Gamer | Memer | Tech Enthusiast | Sports Lover | Food Hunter | JUST PHYSICS 2018

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here