আমার কাছে পার্সোনালি আছে একটি গিগাবাইটের RX 480 4GB জিপিউ যেটি আমি ২০১৭ সালের জানুয়ারি মাসে কিনি। উল্লেখ্য তখনো আমার পিসি বিল্ডার বাংলাদেশে যোগদান করা হয় নি। এটি কেনার প্রায় দেড় বছরের মধ্যে থার্মাল পেস্ট শুকিয়ে গেলে আমি বাজারে থাকা ২০০ টাকার থার্মাল পেস্ট কিনে কাজ চালাতে থাকি। কিন্তু দেখা যায়, সেটিতেও কোন কাজ হচ্ছে না। তাই এক হাজার টাকার মধ্যে খুঁজতে থাকি থার্মাল পেস্ট। আর দেখতে দেখতে পেয়ে গেলাম Thermaltake TG3 এর সন্ধান।

অবশ্য আমার পছন্দ ছিল আর্কটিক বা থার্মাল গ্রিজলির থার্মাল পেস্ট নেয়া কারণ তাদের আন্তর্জাতিক রিভিউ বেশ খানিকটাই পজিটিভ। কিন্তু থার্মালটেকের এই পেস্ট নিয়ে কোথাও তেমন রিভিউ দেখিনি। তাছাড়া Thermaltake TG2 নেয়ার আরেকটি কারণ হচ্ছে বাংলাদেশে নামী দামী থার্মাল পেস্টগুলো এভেল্যাবল না থাকা। তাই নিজস্ব কৌতূহল মেটানোর জন্য এবং আপনাদের এই পেস্টের পারফর্মেন্স সম্পর্কে জানানোর জন্য নিজের পকেটের টাকা খরচ করে কিনে নিয়ে আসি Thermaltake TG3 আর সেটি এপ্লাই করি আমার চরম গরম গিগাবাইট RX 480 এর উপর।

Test System

I5 6500 CPU

ASUS H110M-K Motherboard

Antec GX Casing (Stock Fans)

Gigabyte RX 480 4 GB Windforce Edition (Test Subject)

Room Temperature: 28 Degree Celcius

Temperature

Thermaltake TG3 এপ্লাই করার আগে এপ্লাই করার পরে
আইডল টেম্পারেচার (৭ ওয়াট ড্র) ৪৫ ডিগ্রী সেলসিয়াস ৩৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস
ফুল লোড টেম্পারেচার (১৩৫ ওয়াট ড্র) ৮৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস ৭০ ডিগ্রী সেলসিয়াস

থার্মাল পেস্ট এপ্লাই করার পর আমরা আইডল তাপমাত্রায় ৭ ডিগ্রী সেলসিয়াসের উন্নতি দেখতে পাই এবং ফুল লোডে প্রায় ১৭ ডিগ্রী সেলসিয়াসের উন্নতি দেখতে পাই। এছাড়া, ফ্যান স্পীড আইডল অবস্থায় অটোমেটিক থাকলেও দুটি ক্ষেত্রেই ফুল লোডে ১০০% ছিল।

In-Game Screenshot (After applying Thermaltake TG3)

Overall Opinion

আসলে বাংলাদেশে ডেডিকেটেড থার্মাল কন্ট্রোল কোম্পানিগুলোর প্রোডাক্ট অফিসিয়ালি না পাওয়া যাওয়ার কারণে থার্মালটেকের এই প্রোডাক্টই একমাত্র ভরসা সাধারণ মানুষের কাছে। কিন্তু, তাপমাত্রার এই উন্নতি কিছুটা অবাকই করেছে আমাকে। তাই যারা একদম হার্ডকোর অভারক্লকিঙ্গে না গিয়ে মূলত পুরোন থার্মাল পেস্ট বদলে বা পরিস্কার করে নতুন থার্মাল পেস্ট খুজছেন কিন্তু এক হাজার টাকার উপরে একদমই যেতে নারাজ তাদের জন্য ভালো অপশন হতে পারে Thermaltake TG3 থার্মাল পেস্ট।

তবে খেয়ালে রাখা দরকার এটা হচ্ছে সম্পূর্ণ ডে ওয়ান রিভিউ। অর্থাৎ এপ্লাই করার প্রথম চার থেকে পাঁচ ঘন্টা চালানোর পর টর্চার টেস্ট করে রিভিউটি দেয়া হয়েছে। লং টার্ম ব্যবহারের অভিজ্ঞতা তিন চার মাস পরে জানানো হবে।

পিসি বিল্ডার বাংলাদেশের অন্যান্য রিভিউ পড়ুন এখানে

দাম এবং এভেল্যাবিলিটি

Thermaltake TG3 পাওয়া যাবে আপনার নিকটস্থ কম্পিউটার শপগুলোতে। যদি না পেয়ে থাকেন তাহলে যোগাযোগ করুন থার্মালটেকের অফিসিয়াল ডিস্ট্রিবিউটর ইউসিসি এর সাথে।

এটির ম্যাক্সিমাম রিটেইল প্রাইস হচ্ছে বরাবর এক হাজার টাকা। তবে বারগেনিং করে ৫০ টাকা কমে ৯৫০ টাকায়ও পেতে পারেন যেটা আমি সৌভাগ্যবশত পেয়েছি।

থার্মাল টেকের এই থার্মাল পেস্ট কিনতে ক্লিক করুন এখানে