কোন কালারের হার্ড ড্রাইভ কিনবেন? Western Digital Colored HDD Explained Blue, Black, Red, Purple or Gold

য়েস্টার্ন ডিজিটাল (Western Digital) কর্পোরেশন সংক্ষেপে (WDC বা WD) , হার্ড ড্রাইভের দুনিয়ায় যাদের অবস্থান শক্তপোক্ত। সেটা এক্সটার্নাল হোক বা ইন্টার্নাল হোক। তাদের বিভিন্ন কালারের বিভিন্ন হার্ড ড্রাইভ রয়েছে যা নতুন পিসি বিল্ডারদের  প্রায়শ দ্বিধাদ্বন্দে ফেলে দেয়। কোনটার চেয়ে কোনটা বেটার হাবিজাবি অনেক কিছু। তাই আজকে ওয়েস্টার্ন ডিজিটালের কালার এইচডিডি (HDD) নিয়ে বিশদ আলোচনা হবে। আশা করি পুরোটা পড়ার পর আপনার মাথার ওজন কিঞ্চিৎ বেড়ে যাবে, আশা পাশের মানুষ জনকেও আপনার এই আলগা জ্ঞ্যানের ভাড় কিছুটা সামলাতে হতে পারে। লম্বা লেখা, সুতরাং চা(টা) কফি সাথে নিয়ে বসুন।

এই আর্টিকেলে যেসব হার্ডড্রাইভের আলোচনা করেছি সবই  3.5’’ inch & Sata III ইন্টারফেজ।

তো চলুন শুরু করা যাক।

##প্রথমে ব্ল্যাক ও Blue নিয়ে স্পেসিফিক আলোচনা হবে যেহতু এই দুইটি লাইনআপ ডেক্সটপ কনজ্যুমার লেভেল হার্ড ড্রাইভ। যা বাজেট পিসি বিল্ডিং এ কনফিউশন এর সৃষ্টি  করে।

   WD Blue   

ওয়েস্টার্ন ডিজিটাল (Western Digital) Blue লাইন আপে বর্তমানে 500gb-6tb পর্যন্ত স্টোরেজে পাওয়া যাচ্ছে। 5400rpm ও 7200rpm এই দুই rotational speed (স্পিন স্পিড) এ এভাইলেবল। ১ টেরাবাইটের নিচের মডেল গুলোতে 7200rpm স্পিড থাকলেও এর উপরের মডেল গুলোরে 5400rpm স্পিড এ সীমাবদ্ধ। ক্যাশ মেমোরি সব মডেল গুলোতে 64mb।

কাদের জন্য BLUE লাইন আপঃ

Western Digital Blue Hard drive Seriesওয়েল, যারা ডে টু ডে ইউজার তাদের জন্য মূলত এই লাইন আপ। প্রাইজ পার জিবি হিসেবে এই লাইন আপের ড্রাইভ গুলো মুলত সস্তা। ওএস স্টোরেজ বা প্রাইমারি স্টোরেজ এর জন্য এর লাইন আপ। ডেস্কটপে RAID (0,1) এনভারোমেন্ট সেটাপ করতে চান এর জন্য এই লাইন আপ রিকামান্ডেড।

Pros:

  • পারফরমেন্স এন্ড প্রাইস কম্পারিজনে এই লাইন আপ তুলানামূলক সস্তা।
  • নয়েজ লেভেল কম।
  • লো পাওয়ার কঞ্জাম্পশন।
  • ক্যাপাসিটি রেঞ্জ ডিসেন্ট, আপ টু ৬ টেরাবাইট।

Cons:

  • ২ বছর ওয়ারেন্টি।
  • ১ টেরার উপরের মডেলে rpm বা স্পিন স্পিড কম। ডাটা ডেনসিটিও কম ।
  • ভাইভ্রেশন কন্ট্রোল টেকনোলজি(VCT), TLER, CPT ইত্যাদি ইমপ্লেটেশন না থাকা।

বটম লাইনঃ

এই লাইন আপের ১টেরা মডেলে  ডাটা ডেনসিটি হাই কারন এইখানে ১টেরার সিংগেল প্লেটার ইউস করা হয়েছে। ডাটা ডেনসিটি হাই থাকার থাকে এক্সেস টাইমও কম। নয়েজও কম। আর এই মডেলে স্পিন স্পিড 7200 থাকায় পারফরমেন্সও যথেষ্ট বেটার 5400rpm থেকে। সব মিলিয়ে এই লাইন

আপের ১টেরা নরমাল ইউজারদের জন্য পারফেক্ট। আর স্পিড যদি স্যক্রিফাইস করা যায় তাহলে ১টেরার উপরের মডেল গুলো বেটার কস্ট পার জিবি হিসেবে ঐগুলো অনেক চিপার।

**খুব সম্ভবত ২০১৫ সালে এর দিকে WD Green লাইনকে WD blue এর সাথে মার্জ করে দেয় । ফলে গ্রীন এর ফিচার সব এখন ব্লুতে পাওয়া যায়।

   WD BLACK   

ওয়েস্টার্ন ডিজিটালের (Western Digital) ব্ল্যাক লাইন আপে ব্লুর মত 500gb-6tb পর্যন্ত ক্যাপাসিটির স্টোরেজে পাওয়া যাচ্ছে। এই লাইন আপে শুধু 7200rpm  rotational speed (স্পিন স্পিড) এ এভাইলেবল। 500gb-3tb মডেল গুলোতে ক্যাশ মেমোরি 64mb। 4tb-6tb তে ক্যাশ মেমোরি 128mb।

কাদের জন্য ব্ল্যাক লাইন আপঃ

Western Digital Black Hard Driveযারা মূলত পাওয়ার ইউজার, হার্ডকোর গেমার, টেক এন্থুসিয়াস্ট তাদের জন্য ব্ল্যাক। ওয়েস্টার্ন ডিজিটাল এই লাইন আপের নাম দিয়েছে পার্ফরমেন্স হার্ড ড্রাইভ। মোদ্দা কথা যাদের জন্য স্পিড ও রিল্যায়াবিলিটি একটা বড় ফ্যাক্টর তারাই এই লাইন আপের ক্রেতা।

Pros:

  • ৫ বছরের লম্বা ওয়ারেন্টি পিরিয়ড়।
  • লারজার ক্যাশ মেমোরি।
  • ক্যাপাসিটি রেঞ্জ বড়, আপ টু ৬ টেরাবাইট।
  • ভাইব্রেশন কন্ট্রোল, টাইম লিমিটেড ডাটা রিকোভারি, রিল্যায়াবিলিটি এর জন্য আরো অনেক নতুন টেকনোলজির ইমপ্লেটেশন থাকা।

Cons:

  • পাওয়ার কঞ্জাম্পশন  বেশি।
  • নয়েজ লেভেলও  ব্লু থেকে বেশি।
  • প্রাইজ পার জিবি হিসেব করলে কস্ট বেশি ।

বটম লাইনঃ

বাস্তবে এই লাইন আপের 1 বা 2tb মডেল গুলোতে স্পিড ও লেটেন্সি ইত্যাদি খুব একটা ব্লু লাইনের  হার্ডডিস্কের সাথে তুলনা করলে খুব বেশি নাহ। মানে বড় পার্থক্য না যা চোখে পড়ার মত। কিন্তু 4tb বা 6tb ফ্ল্যাগশিপ মডেল এ স্পিড ডিফারেন্স আছে। 6tb মডেল 1.2tb এর ৫টা প্লেটার এবং ১০টা রিড রাইট হেডস। সো বুঝতেই পারছেন ডাটা ডেনসিটি বেশি ও লেটেন্সিও কম আলটিমেল্টি স্পিডও বেশি।

   WD Red   

Wstern Digital Red Hard Disk Driveওয়েস্টার্ন ডিজিটাল (Western Digital) রেড বিশেষভাবে NAS(Network Attached Storage) এর জন্য বানানো। এই লাইন আপ 750gb থেকে 10tb বিশাল রেঞ্জের ক্যাপাসিটি এভাইলেবল। Rotational speed 5400rpm ও ক্যাশ মেমোরি 65mb থেকে শুরু করে 256mb পর্যন্ত এভাইলেবল উপরের মডেল এর জন্য। এই লাইনআপের সব ড্রাইভের জন্য ৩ বছরের ওয়ারেন্টি । রেড ড্রাইভগুলো এমনো ভাবে বানানো যাতে অলয়েজ অন এনভাইরোমেন্টে পার্ফম করতে সক্ষম হয়, যেটা নরমাল হার্ডড্রাইভ গুলোর ক্ষেত্রে করা হয় না। তাছাড়া NAS এর ক্ষেত্রে সাধারনত অনেক গুলো হার্ডড্রাইভ ইউস করা হয় তাতে হিট আউটপুট , ভাইব্রেশন ও নয়েজ অনেক গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্ট।

Pros

  • নিজস্ব ড্রাইভার NASware যা রিল্যায়াবিলিটি ও পার্ফমম্যান্স ইঙ্ক্রিস করবে।
  • 3DActive Balance Plus যা প্রোডাক্টের লনজেবিটি বাড়াতে সাহায্য করবে।
  • HelioSealTM Technology ইমপ্লিমেন্টেশন যাতে করে নয়েজ ও ভাইব্রেশন রিডিউস করবে।
  • 24×7 environment এ পার্ফম করার জন্য অপটিমাইজড।
  • বিশাল রেঞ্জের ক্যাপাসিটি।

Cons

  • স্পিন স্পিড কম ।
  • ৮টি ড্রাইভ বে তে সীমাবদ্ধ।
  • Price Per GB এর ক্ষেত্রে কস্টলি বলা চলে।

বটম লাইনঃ

NAS-friendly ড্রাইভ হিসেবে এই লাইন আপ অনন্য ।স্পিন স্পিড কম হলেও সেটা অন্যান্য যেসব ফিচার ও টেকনোলজি  ইউস করেছে তাতে ঐটা আর মোটামুটি দৃশ্যত হয় না আর। তাছাড়া ওয়েস্টার্ন ডিজিটালের সাথে এনক্লোসার ম্যানুফ্যাকচারদের সাথে ভাল পার্টনারশিপ থাকায়  লারজ স্কেলের এনক্লোসার কম্পাবিলিটি রয়েছে। ওভারল লো নয়েজ লেভেল, লো হিট আউটপুট এবং লো পাওয়ার কন্সাম্পশন এইসবের কারনে NAS জগতে রেড অনেক এগিয়ে।

   WD Purple   

Western Digital Purple Hard Driveওয়েস্টার্ন ডিজিটাল (Western Digital) পারপাল হচ্ছে সার্ভাইলেন্স গ্রেড ড্রাইভ । এইগুলো  24/7  ইউজেস এর জন্য বানানো। এ লাইন আপের মডেল গুলোতে একসাথে ৬৪টি ক্যামেরা সাপোর্টেড। সার্ভাইলান্স ড্রাইভগুলো সাধারণত রিডের এর চেয়ে রাইটের এর প্রয়োজন বেশি । তাই সার্ভাইলেন্স হার্ড ড্রাইভ গুলো  সাধারণত রাইট এর উপর বেশি জোর দিয়ে থাকে কিন্তু ওয়েস্টার্ন ডিজিটাল এই জায়গা থেকে সরে এসে তারা রিড রাইট এর উপর সামন ভাবে জোর দিয়েছে যাতে করে লাইভ স্ট্রিমিং স্মুথ হয়। তাছাড়া WD AllFrame 4K technology দিয়েছে যার কারনে ভিডিও এর ফ্রেইম লস ও অন্য ইরর রিডিউস করার জন্য। এই রেঞ্জেরও বরাবরের মত বিশাল ক্যাপাসিটি রেঞ্জ । যা 500gb থেকে শুরু করে 10tb সাথে 5400rpm স্পিন স্পিড। ক্যাশ মেমোরি 64mb থেকে শুরু করে উপরের মডেল গুলোর জন্য 256mb পর্যন্ত এভাইলেভল। এবং সাথে ৩ বছরের ওয়ারেন্টি।

Pros:

  • সার্ভাইলেন্স সিকিউরিটি সিস্টেম ।
  • হাই টেম্পারাচার এ ফ্লোলেসলি পার্ফম করবে।
  • লো পাওয়ার কঞ্জাম্পশন।
  • IntelliSeek Technology, HelioSealTM Technology( নয়েস ও ভাইভ্রেশন রিডিউস করবে)
  • DVR & NVR দুইটা ভিডিও রের্কড সিস্টেমই সাপোর্টেড ।
  • 180 TB/yr রেটেড  ওয়ার্কলোড।

Cons:

  • স্পিন বা রোটেশনাল স্পিড কম। 5400rpm এর সীমাবদ্ধ।
  • মাত্র ৮টা ড্রাইভ সাপোর্ট করবে একসাথে। যা একটা লিমিটেশন আপগ্রেডিং এর ক্ষেত্রে।
  • ডাটারেস্কিউ অপশান না থাকা। মানে ওয়েস্টার্ন ডিজিটাল আপনাকে প্রফেশনাল ডাটা রিকোবারি সুবিধা দিবে না।
  • দামও অন্যান্য ম্যানুফ্র্যাকচারের সার্ভাইলেন্স হার্ড ড্রাইভের তুলনায় বেশি।

বটম লাইনঃ

৩ বছরের একটা ডিসেন্ট ওয়ারেন্টি সাথে অনেকগুলো টেকনোলজির ইমপ্লিমেন্টেশন থাকা সব মিলিয়ে সার্ভাইলেন্স ড্রাইভ হিসেবে অপটিমাইজড ওয়েস্টার্ন ডিজিটালের এই লাইন আপ।

   WD Gold   

Western Digital এর গোল্ড লাইনআপ মূলত ডাটাসেন্টার এন্টারপ্রাইজ ক্লাস হার্ডড্রাইভ। ডাটা সেন্টার রিলেটেড হওয়ায় বুঝতেই পারছেন বিশাল ক্যাপাসিটির রেঞ্জ হবে। হ্যাঁ এদের রেঞ্জ আপটু 12tb পর্যন্ত 1tb থেকে শুরু করে। 1-12tb হার্ড ড্রাইভে ক্যাশ মেমোরি 128mb। এর উপরের মডেল গুলোতে 256mb পর্যন্ত এভাইলেবল। রোটেশনাল স্পিড 7200rpm এস এগুলো এন্টারপ্রাইজ ক্লাস হার্ডড্রাইভ। নামকরন এর সার্থকতা এই লাইন আপের সাথে বিশেষভাবে যায়। কারণ এই লাইন আপ হচ্ছে ওয়েস্টার্ন ডিজিটালের সবচেয়ে এক্সপেন্সিভ যেমনটা গোল্ড এর দাম । মোদ্দা কথা ব্যাং ফর ইউর বাক।

Pros:

  • ম্যাসিভ ওয়ার্কলোড নিতে সক্ষম। বছরে প্রায়ই 550tb।
  • ৫ বছরের লম্বা ওয়ারেন্টি পিরিওড।
  • যত প্রকারের টেকনোলজি এই আর্টিকেলে ম্যানশন করা হয়েছে সব এই লাইন আপে বিদ্যমান।আরো অনেক টেকনোলজি যেমনঃ RAFFTM , DFH, RAID-Specific ইত্যাদি।
  • 2.5million hours of MTBF(Mean Time Between Failure)।
  • Duel Actuator যাতে ডাটা প্রেসেশন অনেক বেশি থাকে একুরেট।
  • ক্যাশ মেমোরি ও স্পিন স্পিড অনেক বেশি।

লিখতে চাইতে টনস ওফ প্রোস পাওয়া যাবে।

Cons:

  • Price Per GB হিসাব করলে এটা অনেক কস্টলি , কিন্তু যাদের কাছে পার্ফমেন্সটায় মূখ্য বিষয় তাদের কাছে এটা কোনো বিষয়ই নাহ।
  • DataRecovery সার্ভিস তারা দেয় নাকি এটার ব্যাপার এক্সেট কোনো ইনফো পাওয়া যায়নি। এটা একটা ফ্লস। যেমন টা সিগেইট দিয়ে থাকে।

বটম লাইনঃ

এই লাইন আপের ক্ষেত্রে বলতে হবে 10tb 12tb এই দুইটা মডেলই এগিয়ে থাকবে।কারন প্রথমেই Price Per GB তে এসে অনেক কম কস্টলি হয়ে যাবে। আর এই মডেল গুলোতে রিড রাইট স্পিড ও নিচের মডেল গুলো থেকে বেশি থাকে। 256mb ক্যাশ মেমোরি শুধু এই দুই মডেলেই এভাইলেভল। সো আফটার প্রাইজকে কম্প্রোমাইজ করতে পারলে চাহিদার প্রায় সব টুকুই এই লাইন আপ পূরন করতে সক্ষম ।

সবশেষে

উপসংহার হিসেবে বলতে গেলে ওয়েস্টার্ন ডিজিটাল (Western Digital) এমন একটা কোম্পানি যারা কঞ্জুমার থেকে শুরু করে প্রোজিউমার সকলের চাহিদা মিটাতে সক্ষম। এন্ট্রি লেভেল থেকে তাদের হার্ড ড্রাইভ শুরু এফ্রোডাবিলিটির কথা মাথায় রেখে যা শেষ হয়েছে গ্লোল্ড লাইন আপ দিয়ে। যা ওয়েস্টার্ন ডিজিটাল বিভিন্ন কালার স্কিম দিয়ে বাজারজাত করেছে তাঁরা।