eXTREMESLAND 2018 ল্যান টুর্নামেন্টের এশিয়া ফাইনাল চলাকালীন সময়ে পার্টিসিপেট করা ইন্ডিয়ান গেমিং টিম অপটিক ইন্ডিয়ার প্লেয়ার নিখিল ‘ফরস্যাকেন’ কুমাওয়াতের কম্পিউটারে একটিভ হ্যাক প্রোগ্রামের সন্ধান পাওয়া যায়। এ সময় গেমিং টুর্নামেন্টের এডমিন কুমাওয়াতের কম্পিউটার চেক করতে চাইলে তা করতে বাধা দেয় নিখিল। এতে করে আরো সন্দেহজনক হয়ে পরে মূল অবস্থা।

eXTREMESLAND 2018 সি এস গো টুর্নামেন্টের গ্রুপ সি ফাইনালে অপটিক ইন্ডিয়া খেলছিল ভিয়েতনামিজ টিম রেভোলুশনের বিপক্ষে। খেলার সেকেন্ড কার্ডের সময় সেই টুর্নামেন্টে ব্যাবহার করা এন্টি চিট ও হ্যাক প্রোগ্রাম B5 এডমিনদের নোটিফিকেশন জানায় নিখিলের কম্পিউটারে কিছু সন্দেহজনক প্রোগ্রাম চলছে। গেমিং টুর্নামেন্টের এডমিন সেটি চেক করতে আসলে নিখিল তার কম্পিউটার শো করতে অস্বীকৃতি জানায়। সেই এক্সাক্ট মুহূর্তের ছবি তুলে সি এস গো এশিয়ার একাউন্ট থেকে নীচের টুইট করা হয়।

এরপর ফাইনালি যখন নিখিলের থেকে কম্পিউটারটি উদ্ধার করা হয়, সে ততক্ষণে চিট প্রোগ্রামটি ডিলিট করে দেয়। কিন্তু বেশ কিছুক্ষণ চেস্টার পর এডমিনরা চিট প্রোগ্রামটি উদ্ধার করতে সমর্থ হয়। চিট প্রোগ্রামের ফোল্ডারটি ওপেন করে দেখা যায় সেটি ‘Word’ নামে সেভ করা আছে, অথচ তার টাইপ কোন ডক ফাইল টাইপের সাথে মেলে না। এরপর বেশ কিছুক্ষণ যাচাই বাছাই করার পর টুর্নামেন্ট এডমিন শিউর হয় সেটিই হচ্ছে ফ্ল্যাগ করা চিট প্রোগ্রাম।

এর বেশ কিছুক্ষণ পরেই সি এস গো এশিয়ার টুইটার একাউন্ট থেকে টুইট আসে যে, এরকম চিট প্রোগ্রাম ব্যাবহার করার জন্য ইন্ডিয়ান টিম অপটিক ইন্ডিয়াকে টুর্নামেন্ট থেকে ডিসকোয়ালিফাইড করা হয়েছে ও রেভোলুশন ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে। আর এখনো অপটিক ইন্ডিয়া থেকে কোন অফিসিয়াল স্টেট্মেন্ট পাওয়া যায় নি।

এছাড়া আরো তদন্তে জানা যায়, ২০১৭ সালে নিখিলের আগের স্টিম একাউন্ট ‘VAC’ ব্যান্ড হয়েছিল। অর্থাৎ নিখিল এর আগেও সি এস গো গেমের মধ্যে চিট ও হ্যাক ব্যবহার করে। যার কারণে নিখিলকে ই স্পোর্টস লিগ বা ESL এর সকল টুর্নামেন্ট থেকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়। অবশ্য অরিজিনাল ব্যানের সময় নিখিল আপিল করে যে, সে তার একাউন্টটি অন্য আরেকজনের কাছে বিক্রি করে দিয়েছিল। সেই হয়ত চিট ব্যাবহার করে থাকতে পারে।

This post is regarding the ROG Masters 2017 South Asia Qualifier.A protest was lodged by Team Iyati that Nikhil…

Posted by ESL India on Friday, August 18, 2017

এই ঘটনার জের ধরে অপটিক ইন্ডিয়া অফিসিয়ালি নিখিলকে তাদের টিম থেকে বের করে দিয়েছে। আরো বলা হয়েছে যে, নিখিল ছাড়া তার বাকি টিমমেট কেউই এই চিট সম্পর্কে জানত না আর এই চিট কেউ ব্যাবহার করার স্যাম্পল পাওয়া যায় নি। অপটিক ইন্ডিয়ার টুইটার একাউন্ট থেকে এই তথ্য নিশ্চিত করা গিয়েছে।

ইন্ডিয়ান ই স্পোর্টস ফ্যানদের জন্য এটি ছিল সত্যিই একটি কালো দিন। eXTREMESLAND 2018 এর প্রাইজ মানি ছিল এক লাখ ডলার। আজ পর্যন্ত কোন ইন্ডিয়ান ই স্পোর্টস টিম এত মেজর কোন টুর্নামেন্টে অংশ নিতে পারে নি। একেবারে প্রথম টুর্নামেন্টেই এরকম বড় দুর্ঘটনা আন্তর্জাতিক ই স্পোর্টস দুনিয়ায় ইন্ডিয়ানদের ভাবমূর্তি অনেক খানি নস্ট করে দিয়েছে।

সময় পেলে পড়ে আসতে পারেন স্টিমে এভেল্যাবল থাকা টপ ফ্রি গেমস সম্পর্কে।