অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসগুলো দেশে যখন প্রথম প্রথম আসা শুরু করে তখন মোবাইল কোম্পানিগুলো এদের বিজ্ঞাপনে এর WiFi ফাস্ট শেয়ারিং ফিচারটি বেশ ঢালাও করে প্রচার করছিলো। আমার এখনো মনে আছে গ্রামীণফোন তাদের প্রথম দিকের সিম্ফোনি সেটের একটি বিজ্ঞাপনে দেখিয়েছিলো যে, বন্ধুর মোবাইলে তোলা ছবি আপনি আপনার ফোনে টান্সফার করবেন কিন্তু বন্ধুর ট্রেন ছেড়ে দিচ্ছে, আর সেখানেই অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের Share Via WiFi ফিচারটি দেখানো হয়।
সাধারণ ভাবে এই শেয়ারিং ফিচারটি চালু করার জন্য আপনার নিজে থেকে বেশ কিছু কারিগরি করার প্রয়োজন হবে। যেমন প্রথমে WiFi tethering এর নাম দিতে হবে, পাসওর্য়াড দিতে হবে এবং তারপর যার ডিভাইসের সাথে কানেক্ট করতে চান সেখানেও এন্ট্রি দিতে হবে।
এই সব ঝামেলা এড়াতেই ShareIt অ্যাপের প্রচলন শুরু হয়। শেয়ার ইট অ্যাপটি নিজে থেকেই এই Tethering এর নাম পাসওর্য়াড খুলে নিয়ে জাস্ট একটি ট্যাপের মাধ্যমে WiFi শেয়ারিংয়ের জন্য এই অ্যাপটি বেশ জনপ্রিয়।
কিন্তু সময়ের সাথে সাথে ShareIt অ্যাপে চলে এসেছে বিজ্ঞাপন সিস্টেম। আর এটা এখন এতটাই বেশি ঝামেলা সৃষ্টি করে যে নোটিফিকেশন বারে কিংবা কোনো অন্য অ্যাপ চালু করার সময়েও ShareIt এর বিজ্ঞাপনগুলো পপআপ হয়ে পড়ে। তাও তো ভালো হতো, কিন্তু এমন এমন 18+ বিজ্ঞাপনও মাঝে মাঝে চলে আসে যার কারণে অনেকেরই বিড়ম্বনায় পড়তে হয়।
আজ আমি নিয়ে এসেছি এই ShareIt অ্যাপের কিছু বিকল্প অ্যাপস নিয়ে যেগুলো ব্যবহার করেও আপনি সহজেই WiFi শেয়ারিং এর মজা নিতে পারবেন শেয়ারইটের বিজ্ঞাপনের ঝামেলা ছাড়াই। তো চলুন মূল পোষ্টে চলে যাই।

MI Drop

আমার মতে শেয়ার ইট এর সবথেকে সেরা বিকল্প অ্যাপ হচ্ছে শাওমির MI Drop ! যারা শাওমি ডিভাইস ব্যবহার করেন তাদের কাছে এই অ্যাপটি আগে থেকেই ইন্সটল করা থাকবে। সবথেকে শান্তির ব্যাপার হচ্ছে এই অ্যাপে কোনো প্রকার বিজ্ঞাপন আপনি পাবেন না, আর অ্যাপটিও বেশ হালকা একটি অ্যাপ, মাত্র ৫/৬ মেগাবাইটের এই অ্যাপটি শাওমির ডিভাইস ছাড়াও অনান্য সকল অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়াও FTP এর সাহায্যে অ্যাপটি থেকে PC তে ফাইল ট্রান্সফার করতে পারবেন। আর শেয়ারইটের মতো ফাইল সেন্ডিং বা রিসিভ করার সময় Interrupt হয়ে গেলে সেটাকে Resume করারও ফিচার এতে রয়েছে।

Xender

শেয়ার ইটের পরেই প্লেস্টোরে সবথেকে জনপ্রিয় WiFi ফাইল ট্রান্সফার অ্যাপ হচ্ছে Xender । আর এই অ্যাপটির একটি ইউনিক ফিচার হচ্ছে এই অ্যাপ থেকে আপনি অন্য অ্যান্ড্রয়েডের সাথে সাথে আইফোন এবং পিসির সাথেও ফাইল ট্রান্সফার করতে পারবেন কোনো প্রকার কঠিন সেটআপ ছাড়াই। অ্যাপ ছাড়াও Xender এর রয়েছে আলাদা ওয়েব ভার্সন সেটার মাধ্যমে পিসিতে কোনো প্রকার ইন্সটলের ঝামেলা ছাড়াই এই ফিচার কে ব্যবহার করতে পারবেন।

Zapya

শেয়ারইটের আরেকটি সেরা অল্টারনেটিভ অ্যাপ হচ্ছে Zapya । এই অ্যাপে রয়েছে আকর্ষণীয় ইউজার ইন্টারফেস যেটা শেয়ার ইট এবং MI Drop থেকে বেশ আলাদা। আর শেয়ারইটের সকল ফিচারই এতে রয়েছে তো কোনো চিন্তার কারণ নেই।

FEEM

আপনি যদি শেয়ারইটের বিকল্প একটি অ্যাপ চান যেখানে কোনো অতিরিক্ত কোনো ফিচার দিয়ে ঠাসা থাকবে না তাহলে FEEM হচ্ছে আপনারই জন্য। কারণ FEEM অ্যাপে শুধুমাত্র ডিভাইস থেকে অন্য ডিভাইসে WiFi ফাইল ট্রান্সফার ছাড়া আর অন্য কোনো ফিচারই নেই। আর অ্যান্ড্রয়েডই নয়, এটাকে iOS, Windows 10, Mac, Linux ইত্যাদি সকল প্লাটফর্মই এটাকে ব্যবহার করতে পারবেন।

TeamViewer For Remote Control

টিম ভিউয়ার সফটওয়্যারটি আপনি কম্পিউটারে এর আগেও ব্যবহার করে থাকতে পারেন। এটি এক কম্পিউটার থেকে অন্য কম্পিউটারে একসেস করার কাজে বেশ জনপ্রিয় । আর এর অ্যান্ড্রয়েড সংষ্করণ বা রিমোট কনট্রোল দিয়ে আপনি এক মোবাইল ডিভাইস থেকে অন্য মোবাইল ডিভাইসে WiFi ফাইল ট্রান্সফার করতে পারবেন। আর এই অ্যাপটি দিয়ে আপনি দুটি ডিভাইসে একই সাথে আদান-প্রদান করতে পারবেন মানে দুই-মুখ ট্রান্সফার এতে রয়েছে।

AirDroid

ShareIt এর আরেকটি সেরা এবং জনপ্রিয় অল্টারনেটিভ হচ্ছে AirDroid । এটি মোবাইল ডিভাইস ছাড়াও একে আপনি ডেক্সটপেও ব্যবহার করতে পারবেন। আর এটিও একটি ফ্রি অ্যাপ। আর শেয়ারইট কিন্তু এখন WiFi ছাড়াও Bluetooth ব্যবহার করে থাকে। কিন্তু AirDroid শুধুমাত্র আপনার ডিভাইসের WiFi ব্যবহার করবে।

Files Go

আপনি যদি শেয়ার ইটের বিকল্প কোনো অ্যাপ চান আবার সেটায় গুগলের ভরসাও চাচ্ছেন তাহলে Files Go আপনার জন্য সেরা হবে। কারণ ফাইলস গো অ্যাপটি হচ্ছে গুগলের, আর এটি মূলত একটি Storage Cleaner অ্যাপ। তবে এটায় ক্লিনিংয়ের পাশাপাশি ফাইল শেয়ারিংয়েরও ফিচার রয়েছে। যেটা অন্য ডিভাইসের Files Go এর সাথে WiFi এর মাধ্যমে ফাইল শেয়ার করতে পারবে।

Easy Share

এই অ্যাপটির ইন্টারফেস অনেকটাই শেয়ারইটের মতো। তাই আপনারকে এই অ্যাপটি ব্যবহার করতে তেমন কস্ট করতে হবে না। আর শেয়ার ইটের মতোই এটা দিয়ে আপনি ভিন্ন ভিন্ন ডিভাইসে সকল ধরণের ফাইলস শেয়ার করতে পারবে। আর অ্যাপটি ফাইল শেয়ারিংয়ের জন্য WiFi P2P কানেক্টশন ব্যবহার করে থাকে যেটায় 20MB/s স্পিড পর্যন্ত আপনি পেয়ে যাবেন। আর একই সাথে আপনার ডিভাইসের অ্যাপের ব্যাকআপও আপনি এটায় নিতে পারবেন।

Silfer File Transfer

প্রায় সকল প্লাটফর্মেই আপনি এই অ্যাপটিকে পেয়ে যাবেন। আর এটিও একটি ফ্রি শেয়ারইটের বিকল্প সফটওয়্যার। আর সব থেকে মজার ব্যাপার হচ্ছে এটি ইউজার ইন্টারফেসও অনেকটা ShareIt এর মতোই। অন্যদিকে পিসিতে ব্যবহার করতে চান কিন্তু আলাদা করে সফটওয়্যার ইন্সটল করতে চান তাদের জন্যও রয়েছে চমৎকার সমাধান। Silfer এর রয়েছে আলাদা ওয়েব সংষ্করণ যার মাধ্যমে কোনো সফটওয়্যার ইন্সটলের ঝামেলা ছাড়াই পিসিতে ফাইলস টান্সফার করতে পারবেন।
এই অ্যাপের সবথেকে দারুণ ফিচার হচ্ছে এটি দিয়ে আপনি একই সময়ে একাধিক ডিভাইসের সাথে দুমুখি ফাইল টান্সফার করতে পারবেন! এটি ফাইল ট্রান্সফারের জন্য WiFi, WiFi-Direct এবং Hotspot ব্যবহার করে থাকে।

Dukto

আমাদের আজকের লিস্টের সবথেকে শেষে রয়েছে Dukto অ্যাপটি! মজার ব্যাপার হলো এই অ্যাপটির শেষ আপডেট এসেছিলো ২০১৪ সালে! মানে নিমার্তারা অ্যাপটিকে ছেড়ে চলে গিয়েছেন, কিন্তু আরো মজার ব্যাপার হচ্ছে এই অ্যাপটি এখনো কাজ করে! আর এত আগের অ্যাপ হওয়া স্বত্বেও এই অ্যাপের Windows, Mac সংষ্করণও রয়েছে। তবে কোনো ওয়েব সংষ্করণ নেই তাই পিসিতে ব্যবহার করতে হলে আপনাকে পিসিতে এর সংষ্করণটি ইন্সটল করে নিতে হবে। এছাড়াও কানেক্ট করার জন্য আপনার সেন্ডারের IP Address নিদির্ষ্ট ঘরে বসাতে হবে।

Avatar
Fahad is a freelance games journalist who, while not spending every waking minute selling himself to websites around the world, spends his free time writing. Most of it makes no sense, but when it does, he treats each article as if it were his Magnum Opus - with varying results.