31 C
Dhaka
Wednesday, April 14, 2021

নতুন অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন কেনার পর যা যা অবশ্যই করবেন!

- Advertisement -asus motherboards

দীর্ঘদিন ধরে অ্যাপলের আইফোন ব্যবহার করছেন এখন অ্যান্ড্রয়েডের ছায়াতলে আসতে চান কিংবা আগে ফিচার ফোন ব্যবহার করে এখন অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনে আসতে চাচ্ছেন তাদের জন্যই আজকের এই পোষ্ট। নতুন একটি অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন কেনার পর আপনার যে সকল পদক্ষেপ অনুসরণ করা উচিত সেটা নিয়েই আজকের এই সংক্ষিপ্ত পোষ্টটি সাজানো হয়েছে। তো চলুন ‍ভূমিকায় কথা না বাড়িয়ে সরাসরি মূল টপিকে চলে যাই।

- Advertisement -

১) আপনি যে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসটি কিনতে যাচ্ছেন ,প্রথমেই খেয়াল রাখুন সে ফোনটিতে Google এর Backup রয়েছে কিনা । আপনার Smart Phone টিকে অবশ্যই Google এর Backup এ রাখতে হবে ।আপনার আগের ডিভাইসের মেসেজগুলো, ফোন নম্বরগুলো এসবই Google আইডিতে সেভ করে রাখার অপশন রয়েছে। নতুন অ্যান্ড্রয়েডে শিফট হবার পরে গুগল সার্ভিসে জিমেইল আইডিতে লগ ইন করার পরপরেই আপনার আগের ডিভাইসের সকল তথ্যাবলি Sync হওয়া শুরু করবে। আপনার ফোনবুকের নাম্বার, মেসেজ, সেভ করা WiFi থেকে শুরু করে নিজের হটস্পটও আগের ডিভাইসের মতোই same to same পেয়ে যাবেন।

> কিছু কিছু ডিভাইস রয়েছে যেগুলোতে গুগলের সার্ভিস দেওয়া থাকে না যেমন Huawei এর বেশ কিছু ডিভাইসে গুগলের ব্যান দেওয়া রয়েছে। আবার চীন থেকে কোনো চায়না রম যুক্ত ডিভাইস কিনলে সেখানেও আপনি গুগলের সার্ভিসগুলো পাবেন না কারণ চীনে গুগলের সার্ভিস চলে না। তাই স্মার্টফোন কেনার সময় খেয়াল রাখবেন যে গুগলের সার্ভিস একটিভ করা রয়েছে কিনা এবং কেনার পর প্রথমেই ডিভাইস সেটআপ করার সময় আপনার মূল জিমেইল আইডি দিয়ে ডিভাইসটিকে Sync করে নিবেন।

২) এরপর আপনাকে আপনার স্মার্টফোনটির নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে ভাবতে হবে, যেমন –

- Advertisement -

ক) মোবাইল ফোনটি নিরাপদে ব্যবহারের জন্য অবশই মোবাইল কভার ব্যবহার করবেন ,যদিও এখন অনেক মোবাইলের সাথেই কভার দিয়ে দেয়া হয় , তারপরও আপনি ভালো মানের কভার ব্যবহার করুন । কারণ বক্সে দেওয়া কভারটি অনেক সময়ই সাধারণ মানের হয়ে থাকে।  আবার এমন কোনো বাল্কি কভার চয়েজ করবেন না যার কারণে সেটটি ওভারঅল মোটা হয়ে যায় এবং মোটা কভারের জন্য অনেক সময় ডিভাইস গরম হয়ে যেতে পারে।

(খ) ফেস আনলক সিস্টেম, এটা আমরা সবাই ব্যবহার করি, আমাদের ধারনা ফেস আনলক সিস্টেমের উপরে আর কোন সিস্টেম হতে পারে না কারন এটি তো আমার ফেস সনাক্ত করেই ওপেন হয় তাই অন্য কারো ফেস দিয়ে এটি ওপেন হবে না । আসলে ফেস আনলক সিস্টেম কোন নিরাপত্তা ব্যবস্থা নয় এটা শুধুমাত্র একটি নিয়ম বা পন্থা , যাতে সহজেই মোবাইল ফোনটি ব্যবহার করা যায় । আপনি যদি ১০০% নিরাপত্তার কথা মনে করেন তাহলে এটি (ফেস আনলক সিস্টেম) আপনার কাজের নয় । আপনি যদি ১০০% নিরাপত্তা চান আপনার মোবাইল ফোনের তাহলে অবশ্যই , ফিঙ্গারপ্রিন্ট লক ব্যবহার করুন অথবা ,  এবং তার সাথে পিন আনলক / প্যাটার্ন ব্যবহার করুন । একটি জিনিস খেয়াল রাখবেন , ফিঙ্গারপ্রিন্ট লক ব্যবহার করার সময় ২টি  বা তার অধিক আঙ্গুল ব্যবহার করুন । যাতে কোনো কারণে এক হাতের আঙ্গুলটি বিজি বা সমস্যায় পড়লে অন্য আঙ্গুল ব্যবহার করে আনলক করতে পারেন।

- Advertisement -

৩) একটি বিষয় আমরা অনেকেই গুরুত্ব দেই না , নতুন মোবাইল ফোন কিনলেন বা পুরাতন মোবাইল ফোন কিনলেন ,পুরাতন মোবাইল ফোন কেনার সময় বেশীরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় ফোরনর সাথে বক্স থাকে না ,আবার নতুন মোবাইল ফোন বক্সসহ কিনলেও হারিয়ে যায়। এক্ষেত্রে যে কাজটি করবেন ,মোবাইল ফোন কিনেই এর IMEI নম্বর আলাদা ভাবে লিখে রাখবেন বা নোটপ্যাডে লিখে অনলাইন ক্লাউড ড্রাইভে আপ করে রাখবেন । আর IMEI নম্বর বের করার জন্য-  মোবাইল ফোনের ডায়াল পেডে গিয়ে টাইপ করবেন, *#06# এটি টাইপ করলেই আপনার IMEI নম্বর চলে আসবে । যদি দুটি সিম কার্ডের ব্যবস্থা থাকে তখন দুটি IMEI নম্বর আসবে ।  এই IMEI নম্বর খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারন এই IMEI নম্বর ছাড়া কোনভাবেই আপনার মোবাইল ফোন খুঁজে পাবেন না ।

৪) এবার বাসায় এসে প্রথমেই মোবাইল ফোন কিনে আনার পরে ফুল চার্জ করে নিবেন । নতুন স্মার্টফোন কেনার সাথে সাথেই সবারই একটু চালাচালি / টিপাটিপি করতে ভালো লাগে তাই ফুল চার্জ করে নেয়ার পরে মোবাইল ফোন ব্যবহার করা শুরু করবেন । অনেকের ধারনা মোবাইল ফোন কিনে ৮ ঘন্টা চার্জ দিতে হয়। এটি ভুল ধারণা, কারণ মোবাইল ফোন full চার্জ হয়ে গেলে তখনই চার্জ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়

৫) সাধারণ কাজের জন্য স্মার্টফোন কিনলে বা বাজেট স্মার্টফোন কেনার পর অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় যে UI টা বেশ হেভি এবং তার জন্য নরমাল কাজ করতে গেলেও ল্যাগ এর দেখা পাওয়া যায়। যেমন বাজেট ডিভাইস ২ গিগাবাইট র‌্যাম কিন্তু অ্যান্ড্রয়েড ভার্সন ১০ দেওয়া তারপর কোম্পানির নিজস্ব UI স্কিন মারা, তাহলে ল্যাগ হবে না তো কি! কারণ তাদের ৬/৮ গিগাবাইট র‌্যামের ডিভাইসেও কিন্তু এই একই UI স্কিন দেওয়া রয়েছে। এক্ষেত্রে আপনি প্লেস্টোর থেকে সিম্পল লঞ্চার ইন্সটল করে ব্যবহার করুন।

৬) মোবাইল কেনার পর দেখবেন আগে থেকেই অনেক স্মার্টফোন ইন্সটল দেয়া রয়েছে ,আপনি এই অ্যাপস গুলো থেকে আপনার যেগুলো দরকার নেই, ব্যবহার করা হবে না সেগুলো ডিলিট করে ফেলবেন, এ অ্যাপস গুলোর কোনটি আপনার ডাটা চুরি করবে বুঝতে পারবেন না । আর কম অ্যাপস থাকলে সেটও ফ্রি থাকবে।

কিছু অ্যাপস আছে মুছে ফেলা যায় না ,তখন আপনার মোবাইলের setting অপশনে গিয়ে Force-Stop করে দিবেন । আর এক মোবাইলের চার্জার দিয়ে আরেক মোবাইল চার্জ দিবেন না যেমন- Oppo মোবাইলের চার্জার দিয়ে Nokia মোবাইল চার্জ দিবেন না ,আপনার ফোনের যে চার্জার সেটি দিয়েই চার্জ দিবেন তাহলে আপনার মোবাইলের ব্যাটারী ভালো থাকবে ।

৭) ডিভাইসটি বাসায় এনে ফুল চার্জ দেওয়ার পর সবার আগে যেটা করবেন, তা হচ্ছে সিস্টেম আপডেট এসেছে কিনা সেটা চেক করুন। নতুন ডিভাইস হলেও সিস্টেম আপডেট চলে আসতে পারে। আর সিস্টেম আপডেট এর মাধ্যমে ডিভাইসটির অনেক ধরণের সফটওয়্যার ইস্যু ফিক্সড করে দেওয়া হয়। তাই ডিভাইসটিতে অ্যাপস ইন্সটলের আগে সিস্টেম আপডেট চেক করে নিন, আর আপডেট এসে গেলে আপডেট দিয়ে তারপর আপনার কাস্টমাইজেশন শুরু করতে পারে।

পরিশিষ্ট:

যদি আনঅফিসিয়াল ভাবে স্মার্টফোনটি কিনে থাকেন তাহলে দেখবেন যে শপ ভেদে ৭ থেকে ৩০ দিনের রিপ্লেসমেন্ট ওয়্যারেন্টি দেওয়া থাকে। এই সময়কালের মধ্যে আপনার কাজ হচ্ছে ডিভাইসের সমস্যাগুলোকে ঘেঁটে ঘেঁটে খুঁজে বের করা। কারণ এই সময়কালের মধ্যে ডিভাইসে কোনো সমস্যা থাকলে সেটা বিনামূল্যে শপ থেকে সারিয়ে নিতে পারবেন কিংবা মেজর সমস্যা থাকলে নতুন ডিভাইসও Swipe করে নিয়ে আসতে পারবেন। এক্ষেত্রে খুঁজে দেখুন কোন সমস্যা আছে কিনা, যেমন সঠিক সময়মত ডিভাইস চার্জ হচ্ছে কিনা, চার্জ হবার সময় সেট অতিরিক্ত গরম হচ্ছে কিনা। কল দিয়ে সাউন্ড ক্লিয়ার শোনা যায় কিনা। ব্যাটারি ব্যাকআপ ব্যাটারি সাইজ হিসেবে ঠিকঠাক রয়েছে কিনা। Overnight ব্যাটারি বেশি ড্রেইন হয় কিনা। ক্যামেরা কোয়ালিটি ঠিক আছে কিনা। ভিডিও গেমস খেলার সময় পারফরমেন্স প্রসেসর / র‌্যাম অনুযায়ী ঠিক পাচ্ছেন কিনা ইত্যাদি।

- Advertisement -asus graphics card
Fahad Hossain
Fahad Hossain
Fahad is a freelance writer and editor with nearly 10 years' experience in Bangla Technology Blogging who, while not spending every waking minute selling himself to websites around the world, spends his free time writing. Most of it makes no sense, but when it does, he treats each article as if it were his Magnum Opus - with varying results.

2 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here