31 C
Dhaka
Saturday, July 13, 2024

এনাউন্স হলো Windows 11 : দেখে নিন উল্লেখযোগ্য ফিচারস

- Advertisement -

অবশেষে গতকাল Microsoft Windows Event এর মাধ্যমে অফিশিয়ালি রিভিল হয়ে গেলো windows 11।চলুন দেখে নেওয়া যাক উল্লেখযোগ্য ফিচারস, জেনে নেওয়া যাক Available features, নতুন কি কি থাকছে, কবে পাওয়া যাবে ইত্যাদি সব প্রশ্নের উত্তর।

উইন্ডোজ ১১ এর লিকড বিল্ডে আমরা টূকটাক ছোটখাট চেঞ্জ দেখতে পেয়েছিলাম,সেগুলো নিয়ে এখানে আলাদা আলোচনা করবো না। বরং গতকালের ইভেন্টের সবথেকে উল্লেখযোগ্য ফিচারগুলোই নিচে তুলে ধরছি। নিচের লিংক থেকে ঘুরে দেখে আসুন লিকড উইন্ডোজ ১১ নিয়ে আমাদের আর্টিকেলটি ও জেনে নিন UI,START MENU,SNAPS,Widgets সহ আরো বেশ কিছু নতুন উল্লেখযোগ্য ফিচার সম্পর্কে।

- Advertisement -

লিকড উইন্ডোজ ১১ ও আমাদের অভিজ্ঞতা

কবে পাওয়া যাবে Windows 11? ফ্রিতে পাওয়া যাবে কি? 

Holiday Season অর্থাৎ অক্টোবরের Sun Valley Update টিই হতে যাচ্ছে উইন্ডোজ ১১। মাইক্রোসফট আরো নিশ্চিত করেছে যে উইন্ডোজ ১০ এর ইউজাররা ফ্রিতেই আপডেট/আপগ্রেড করতে পারবেন উইন্ডোজ ১১ এ।।

আপনার পিসিতে উইন্ডোজ ১১ চলবে কি না তা জানতে Windows PC Health Check নামের একটি টূল ডাউনলোড করুন।

- Advertisement -

লিংকঃ Windows PC Health Check 

গেমিং এ এখন পর্যন্ত সেরা পারফর্মেন্স এর প্রতিশ্রুতিঃ 

উইন্ডোজের ইতিহাসে সবথেকে Gaming Friendly অপারেটিং সিস্টেম হতে যাচ্ছে উইন্ডোজ ১১। গেমিং এ পারফর্মেন্স বুস্ট এর সাথে সাথে লোডিং টাইম ও হবে আগের থেকে ফাস্ট। কারণ মাইক্রোসফট Direct Storage নামের নতুন একটি ফিচার ঘোষণা করেছে (যেটি এক্সবক্স এর একটি ফিচার ছিল)  যেটির কারণে গেমগুলো গ্রাফিক্স কার্ডে সরাসরি Assets আপলোড করতে পারবে, যার কারণে লোডিং টাইম হবে অনেক ফাস্ট ও ইন্সট্যান্ট গ্রাফিক্স রেন্ডারিং হবে। অর্থাৎ এই ফিচারের ফলে লোড টাইম অনেক কমে আসবে।

- Advertisement -

অর্থাৎ এর ফলে সমগ্র গেমিং এক্সপেরিয়েন্স আগের থেকে অনেক বেটার হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সবথেকে ফাস্টঃ

গেমিং ছাড়াও সম্পুর্ণ উইন্ডোজ ১১ ই হবে অনেক ফাস্ট এই প্রতিশ্রুতি দিয়েছে মাইক্রোসফট। চালু হওয়া,বন্ধ হওয়া,Microsoft Edge এর ব্রাউজিং সহ সবকিছু হবে অনেক দ্রুত। ব্যাকগ্রাউন্ডের উইন্ডোজ আপডেট হবে আগের থেকে ৪০% ফাস্ট।

Gaming এ  Auto HDR ফিচারঃ

Auto HDR, এটিও Xbox এর আরেকটি আকর্ষনীয় ফিচার। এবার এই অটো HDR ফিচারকে উইন্ডোজে ব্যবহার করা যাবে।  যেকোনো Non-HDR গেমকে উইন্ডোজ সম্পুর্ণ AI এর মাধ্যমে লাইটিং, ও কালার এডজাস্ট বা বুস্ট/ইম্প্রুভ করবে, অর্থাৎ ডাইনামিক রেঞ্জে ব্যাপক চেঞ্জ করতে পারবে এই ফিচারটি। ১০০০ এর ও বেশি গেমে এই ফিচার আনার ঘোষণা দিয়েছে মাইক্রোসফট। অর্থাৎ গেমের ভিউজুয়ালে ডাইনামিক রেঞ্জ,কালার,লাইটিং কোয়ালিটি বৃদ্ধির আরেকটি টেকনিক আমরা পেয়ে যাচ্ছি।

বিশেষ করে পুরনো গেমগুলোতে ,যেগুলো শুধুই SDR সমর্থন করে, এই ফিচারের মাধ্যমে HDR স্টান্ডার্ড রেজাল্ট পাওয়া সম্ভব হবে।

Xbox Built in App:

Xbox App টি এবার বিল্টইন আসতে যাচ্ছে। মাইক্রোসফট এর গেম পাস, এক্সবক্স স্টোর এবার সরাসরি এক্সেস করা যাবে App থেকেই। গেম পাস সাবস্ক্রাইবাররা xCloud technology দিয়ে সরাসরি স্ট্রিম ও করতে পারবেন।

সরাসরি Android Apps চালানো যাবে উইন্ডোজেঃ 

সাধারণ ইউজারদের জন্য সবথেকে কার্যকর ফিচার মনে হয় এটিই হতে যাচ্ছে। উইন্ডোজ স্টোর অনেকের জন্যই সুবিধাজনক ছিল না, এটি শুধু UWP Apps সাপোর্ট করতো, অনেক দরকারী প্রয়োজনীয় App ই ছিল না এই স্টোরে। ট্যাবলেট,ল্যাপটপ, ফোন ইউজারদের টার্গেট করেই App গুলোর ডেভেলপমেন্ট,ইন্টারফেস ও প্রোগ্রামিং করা হতো ।

তবে ব্যপক পরিবর্তন আসছে এবারের উইন্ডোজ স্টোরে, সাপোর্ট থাকছে Win32 ভার্সন এর। (এটি সবথেকে কমন ও বেশি ব্যবহ্বত Application framework, আমাদের পিসির প্রায় সব এপ্লিকেশন,গেমস ই Win32 ভিত্তিক)।  ডেভেলপারদের জন্য নিজেদের পেমেন্ট সিস্টেম চালু করার অনুমতি/সুযোগ ও দিচ্ছে এই স্টোর।

আর শেষে থাকছে সবথেকে বড় হাইলাইটস, সরাসরি Android Apps চালানো যাবে পিসিতেই।Amazon App Store এর সাথে Collaboration এর মাধ্যমে আপনি উইন্ডোজ স্টোরে কোনো App সার্চ করলে তা যদি পাওয়া যায়, তখন এমাজন স্টোর/এমাজন একাউন্ট এর মাধ্যমে সেটি ইন্সটল করা যাবে। সরাসরি চালানো সম্ভব হবে ইন্টেলের Bridge Technology এর মাধ্যমে।

সম্পুর্ণ নতুন Microsoft Store: 

সম্পুর্ণ রুপে ঢেলে সাজানো হচ্ছে মাইক্রোসফট স্টোরকে তা আমরা আগেও বলেছি। এর ইন্টারফেস,লেআউট,ফিচার সবকিছুই নতুন করে সাজানো হবে। এন্টারটেইনমেন্ট ট্যাবে জনপ্রিয় সব মুভি,টিভি শো আসবে। Faster ,Easy to Navigate,Easy to Use হওয়ায় এবারের স্টোর থেকে ইউজার যথেষ্ট Benefitted হবেন আশা করা যায়।

Microsoft Message ও Microsoft Team:

মাইক্রোসফট এর কনফারেন্সিং/ভিডিও কলিং App Microsoft Team এবার সরাসরি Integrated থাকছে উইন্ডোজের সাথে। ক্রস প্লাটফর্ম ভিডিও চ্যাট/ কনফারেন্স/কল করা যাবে, অর্থাৎ WIndows 11 থেকে IOS,Androi সহ অন্যন্য OS এ কল করা যাবে। করা যাবে মেসেজিং ও।

মাল্টি-মনিটর সেটাপ চালানো এখন সহজঃ 

ল্যাপটপের সাথে একাধিক মনিটর চালানো যাবে এখন আরো সহজে।এডভান্স মাল্টি মনিটর সেটিংসে বেশ কিছু অপশন যোগ করা হয়েছে, উইন্ডোজ তার Monitor এর হিস্টোরি মনে রাখবে। অর্থাৎ একাধিক মনিটরে বিভিন্ন Window,tabs ওপেন রাখার পর তা Disconnect করে Reconnect করলে উইন্ডোজ আবার দ্বিতীয় মনিটরে পুর্বের Tabs/windows গুলোই চালু করবে।

 

- Advertisement -

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here