wallup.net

জ্বী! টাইটেলে বলা কথাটি সত্যই বটে। বছর কয়েক আগে যখন প্রথমবারের মতো উইন্ডোজ ১০ রিলিজ করা হয় তখন মাইক্রোসফট থেকে তাদের ইউজারদের জন্য একটি অফার প্রদান করা হয়েছিলো। যেটার মাধ্যমে তখনকার Windows 7, Windows 8.1 ইউজাররা একদম ফ্রিতে “উইন্ডোজ ১০” য়ে আপগ্রেড করে নিতে পারতো; অর্থাৎ সংষ্করণ ভেদে আপনি ১১০ ডলারের Windows 10 য়ে ফ্রিতে আপগ্রেড করে নিতে পারতেন। অফিসিয়াল ভাবে এই অফারটি ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে শেষ হয়ে যায়। কিন্তু পরবর্তীতে গত বছরের মাঝামাঝিতেও কেউ কেউ বলেছেন উক্ত পদ্ধতিতে ফ্রিতে উইন্ডোজ ১০য়ে আপগ্রেড হওয়া যেত। কিন্তু কিছুদিন আগে উইন্ডোজ ১০ এর নতুন সংষ্করণ (১৯০৯) মুক্তির পর বেশ কিছু ইউজাররা আবারো ইন্টারেনেট বলা শুরু করেছেন যে, তাদের পুরোনো উইন্ডোজ ৭ / উইন্ডোজ ৮.১ ডিভাইসগুলোতে আবারো একই ভাবে উইন্ডোজ ১০ য়ে “ফ্রিতে” আপগ্রেড নিচ্ছে।

একটি Reddit পোষ্টে  একজন মাইক্রোসফট কর্মী বলেছেন যে, এক বছরের জন্য যে উইন্ডোজ ১০ ফ্রি আপগ্রেড অফারটি চলেছিলো সেটা আসলে মাইক্রোসফটের একটি “Marketing Fluff” ছিলো যেটার মাধ্যমে মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ১০ এর ইউজার বৃদ্ধি করতে চেয়েছিলো, আর তিনি এই ফ্রি আপগ্রেড নিয়ে আরো বেশ কয়েকটি কথা বলেছেন, সেটা হুবহু নিচে তুলে ধরা হলো:

“You still can do this no problem, however careful, do an upgrade keeping everything as if you choose to yeet everything and start fresh, you lose your free upgrade. That old 7 license converts to a 10 digital license and from there you can clean install no problem. As for audits, this mainly is for volume licensing than anything. An SMB with 10-200 Windows 7 machines that were OEM licensed don’t really matter. If you try this with 1,000 computers, iffy. At the end of the day, Microsoft had four years to close that loophole and never did so if worse came to worse, you could technically go through legal avenues as the EULA for 10 literally doesn’t have a clause for this at all. You can’t shit on someone taking advantage of an activation workaround when you as the manufacturer never closed it.”

আর CNET সাইটে যখন এটা নিয়ে পোষ্ট লেখা হলো তখন তো বলা যাচ্ছে যে, এভাবে এখনো আপনি ফ্রিতে উইন্ডোজ ১০ য়ে আপগ্রেড করিয়ে নিতে পারবেন। উল্লেখ্য যে, মাইক্রোসফট ২০১৭ সালের পর আর এই “ফ্রি” আপগ্রেড নিয়ে কোনো কথাই বলে না। তবে গত বছরেও অনেকেই Windows 10 Media Creation Tool দিয়ে ফ্রিতে উইন্ডোজ ১০য়ে আপগ্রেড করে নিয়েছেন আর এবারও নতুন আপগ্রেড আসার পর আবারো এই পদ্ধতিতে আপনি ফ্রিতে উইন্ডোজ ১০য়ে আপগ্রেড করে নিতে পারবেন। তবে! হ্যাঁ তবে এটার জন্য:

শর্তাবলি:

১) আপনাকে জেনুইন উইন্ডোজ ৭ / উইন্ডোজ ৮.১ ইউজার হতে হবে। জেনুইন ইউজার আর Activated By Third Party টুল (crack/patch) এটার মধ্যে অনেক পার্থক্য রয়েছে। শুধুমাত্র যারা জেনুইন উইন্ডোজ ৭ / উইন্ডোজ ৮.১ ইউজার রয়েছেন তাদের জন্য এই পদ্ধতি কাজ করবে।

২) জেনুইন ইউজার বলতে আপনার মাইক্রোসফট একাউন্টে জেনুইন Windows 7 কিংবা Windows 8.1 লাইসেন্স থাকতে হবে।

৩) OEM লাইসেন্স দিয়ে কাজ হবে, তবে সকল মেনুফ্যাকচারের জন্য এটা কাজ নাও করতে পারে। যেমন আমি নিজে গতবছর Dell আর Acer ল্যাপটপে উইন্ডোজ ৮.১ থেকে এই পদ্ধতিতে উইন্ডোজ ১০ য়ে আপগ্রেড করতে পেরেছিলাম কিন্তু Levono ল্যাপটপে Windows 8.1 OEM কী থাকা সত্বেও এটা কাজ করেনি।

৪) OEM লাইসেন্স দিয়ে যদি কাজ হয় তাহলে সরাসরি আপনি আপডেট না দিয়ে Windows 10 (1909) ক্লিন ইন্সটল করতে পারবেন, এতে আপনার Windows 7 / 8 / 8.1 OEM লাইসেন্সটি Windows 10 (1909) লাইসেন্সে কনর্ভাট হয়ে যাবে। আর একবার কনর্ভাট সাকসেসফুল হয়ে গেলে আপনি মাইক্রোসফট একাউন্ট লগইন করে আপনার একাউন্টে Windows 10 এর ডিজিটাল লাইসেন্স Sync করে নিতে পারবেন।

OEM চেকিং:

আপনি যদি জেনুইন উইন্ডোজ ৭ / ৮.১ ইউজার হয়ে থাকেন যার মাইক্রোসফট একাউন্টে ডিজিটাল উইন্ডোজ ৭ বা উইন্ডোজ ৮.১ লাইসেন্স রয়েছে তারা এই OEM চেকিং ধাপটি এড়িয়ে যান। OEM কী হচ্ছে আপনি যখন কোনো ল্যাপটপ কিনবেন তখন ল্যাপটপের সাথে উইন্ডোজের যে সংস্করণটি Pre-Activated হয়ে আসে সেটার লাইসেন্স কী কেই OEM Key বলা হয়। উল্লেখ্য যে সকল Pre-Activated ল্যাপটপের Windows কিন্তু জেুনইন উইন্ডোজ নয়; বিশেষ করে চাইনিজ সস্তা ব্রান্ডের ল্যাপটপগুলোতে এই সমস্যা হয়ে থাকে। কিন্তু Dell, Acer, HP ইত্যাদি ব্রান্ডের দামী ল্যাপটপগুলোতে OEM লাইসেন্স দিয়ে উইন্ডোজ একটিভ করে দেওয়া থাকে। আপনি বছর কয়েক আগে ল্যাপটপ কিনলেন যেখানে Windows 8.1 OEM কী দিয়ে একটিভ করা ছিলো সেখানে আপনি প্রথমবার যখন কোনো মাইক্রোসফট একাউন্ট লগইন বা রেজিস্টার করবেন তখন আপনার উক্ত মাইক্রোসফট একাউন্টে Windows 8.1 OEM Key টা উইন্ডোজ ৮.১ ডিজিটাল লাইসেন্সে কনর্ভাট হয়ে যাবে এবং একাউন্টে Sync হয়ে যাবে। এরপর আপনার যখন অন্য কোনো Windows 8.1 ল্যাপটপে আপনার মাইক্রোসফট একাউন্ট লগইন করে একটিভ করার চেষ্টা করবেন তখন ওই ল্যাপটপটিও Windows 8.1 এর ডিজিটাল লাইসেন্স যা আপনার মাইক্রোসফট একাউন্ট থেকে Sync হয়ে একটিভ হয়ে যাবে!

আপনার ল্যাপটপে বা ডেক্সটপে OEM কী রয়েছে কিনা সেটা আগে আপনার চেক করা উচিত। এর জন্য প্রথমে ShowKeyPlus নামের একটি ছোট্ট সফটওয়্যারকে ডাউনলোড করে নিন এখানে ক্লিক করে। তারপর সফটওয়্যারটির উপর রাইট বাটন ক্লিক করে Run as Administrator অপশনে ক্লিক করুন।

এখানে Product Name ঘরে আপনার বর্তমান উইন্ডোজ সংষ্করণটি দেখাবে। নিশ্চিত করবেন যে এখানে Windows 7 বা Windows 8.1 রয়েছে (আমার ল্যাপটপে আগে থেকেই উইন্ডোজ ১০ দেওয়া রয়েছে) । নিচের OEM Key ঘরে যদি কোনো সিরিয়াল কী থাকে তাহলে বুঝবেন যে আপনার ল্যাপটপ বা ডেক্সটপের ফার্মওয়্যারে OEM Key রয়েছে।

ফ্রি আপগ্রেড

OEM কী বা জেনুইন উইন্ডোজ ৭ / ৮ / ৮.১ লাইসেন্স সম্বলিত মাইক্রোসফট একাউন্ট দিয়ে যদি কোনো ডেক্সটপ বা ল্যাপটপ আপনি বর্তমানে চালিয়ে থাকেন তাহলে এক্ষুনিই আপনি জেনুইন উইন্ডোজ ১০ ১৯০৯ ভার্সনে ফ্রিতে আপগ্রেড করতে পারবেন। এর জন্য সরাসরি চলে যান মাইক্রোসফট ওয়েবসাইটে এখানে ক্লিক করে।

এবার Download tool now বাটনে ক্লিক করে Windows 10 Media Creation Tool টি ডাউনলোড করে নিন।

তারপর মিডিয়া ক্রিয়েশন টুলটি চালু করুন এবং License Terms একসেপ্ট করুন।

এবার পরবর্তীতে উইন্ডোতে Upgrade this PC now ঘরে টিক দিয়ে Next বাটনে ক্লিক করুন।

এবার টুলটিতে Keep Personal Files and Apps অপশনে টিক দিন (না হলে সকল ফাইলস ও অ্যাপস মুছে যাবে), তারপর Install বাটনে ক্লিক করুন।

Install বাটনে ক্লিক দেওয়া মাত্রই আপনার উইন্ডোজ ৭ / উইন্ডোজ ৮.১ পিসিতে উইন্ডোজ ১০ ১৯০৯ ভার্সনটি ইন্সটল হওয়া শুরু করবে! Windows 10 1909 ভার্সনটির সাইজ প্রায় ৬ গিগাবাইটের মতো, আপনার ইন্টারনেট স্পিড আর আপনার পিসির প্রসেসিং ক্ষমতার উপর এই আপগ্রেডশন টাইমটি নির্ভর করবে।

Windows 10 ইন্সটল শেষ হবার পর ইন্টারনেটে কানেক্ট থাকা অবস্থায় ‍Settings > Windows Update > Activition উইন্ডোতে আসুন তাহলে দেখবেন যে আপনার পিসির উইন্ডোজ ১০ ডিজিটাল লাইসেন্সে একটিভেটেড হয়ে যাবে। একই সাথে এখানে যদি একটিভ না হয় তাহলে আপনি আপনার Windows 7 বা Windows 8.x এর জেনুইন প্রডাক্ট কী প্রবেশ করেও উইন্ডোজ ১০কে একটিভ করিয়ে নিতে পারেন।

একটিভেশন উইন্ডোতে Windows is activated with a digital license লেখাটি দেখতে পাবেন। আর মাইক্রোসফট একাউন্ট দিয়ে লগইন করানো থাকলে উপরের চিত্রের মতো দেখতে পাবেন। উল্লেখ্য যে, Windows 7 বা Windows 8.1 এর যে সংষ্করণটি আপনার ছিলো শুধুমাত্র সে সংস্করণেই Windows 10 এর আপগ্রেডটি পাবেন। যেমন চিত্রে দেখতে পাচ্ছেন যে Windows 10 Home সংস্করণটি লেখা রয়েছে তার মানে Windows 8.1 Home এডিশন থেকে আপনি ফ্রিতে Windows 10 Home এডিশনে আপগ্রেড হয়ে গেলেন। এরপর থেকে সরাসরি Windows 10 Home এডিশনের ISO ফাইল ডাউনলোড করে সরাসরি ক্লিন ইন্সটল দিতে পারবেন।

Avatar
Fahad is a freelance writer and editor with nearly 10 years' experience in Bangla Technology Blogging who, while not spending every waking minute selling himself to websites around the world, spends his free time writing. Most of it makes no sense, but when it does, he treats each article as if it were his Magnum Opus - with varying results.