25 C
Dhaka
Wednesday, February 8, 2023

আপনি কোন জেনারেশনের পিসি প্রসেসর ব্যবহার করছেন? জানুন সহজেই!

- Advertisement -

পিসি কেনার সময় কিংবা পিসিকে বিক্রি করার সময় আমাদেরকে অবশ্যই পিসির অনান্য বিষয়ের পাশাপাশি প্রসেসরের উপরেও খেয়াল রাখা উচিত। সাধারণত যেহেতু পিসি কেনার আগে কিংবা সেকেন্ড হ্যান্ড পিসি কেনা বা বিক্রির আগে CPU বক্স খুলে প্রসেসর তো আর কেউ দেখেন না তাই আমাদেরকে সফটওয়্যার বেসিসেই প্রসেসরের তথ্যের উপর নির্ভর করে থাকতে হয়। আপনি যদি টেকনোলজি সম্পর্কে তেমন একটা জ্ঞান না রেখে থাকেন তাহলে নতুন কিংবা পুরাতন পিসি কিনতে গিয়ে অনান্য সেক্টরের মতোই প্রসেসরেও মার খেয়ে যেতে পারেন। কারণ আমরা জানি সফটওয়্যার দিয়ে প্রসেসরের নাম এবং স্পিডকে পরিবর্তন করা যায়। আমি আজকের পোষ্টে দেখাবো কিভাবে আপনি আপনার বর্তমান কিংবা যেকোনো পিসির প্রসেসরের জেনারেশন বুঝতে পারবেন। তো চলুন দেখা যাক কোন জেনারেশনের পিসি আপনি ব্যবহার করছেন!

জেনারেশন কেন গুরুত্বপূর্ণ?

এটা একটি সুন্দর প্রশ্ন! জেনারেশন কেন গুরুত্বপূর্ণ আর কেনই বা আপনি বেশি টাকা দিয়ে লেটেস্ট জেনারেশনের পিসি কিনবেন? আসলে টেকনোলজি প্রতিনয়তই পরিবর্তিত হচ্ছে, আর এই পরিবর্তিত টেকনোলজির সাথে খাপ খাইয়ে নিতেই নতুন জেনারেশন আমাদের সামনে চলে আসে। নতুন জেনারেশন মানেই আগের জেনারেশনের থেকে বেশি স্পিড, বেশি টেকসই এবং বেশি মানানসই হয়ে থাকে।
বর্তমানে ৯বম জেনারেশন চলছে। আর বাজারে গিয়ে আপনি যদি বলেন আমাকে কোর আই ৩ প্রসেসরওয়ালা পিসি দেন। আর এখানে যদি আপনি জেনারেশনের ব্যাপারে অজ্ঞ থাকেন তাহলে আপনাকে যেকোনো জেনারেশনের আই ৩ ধরিয়ে দিলেও আপনি বুঝবেন না। আপনি অবশ্যই দেখে থাকবেন যে বাজারে কোর আই ৩ ওয়ালা পিসি ১৮ হাজার টাকাও পাওয়া যায় আবার ৪০ হাজার টাকার উপরেও পাওয়া যায়। সেটাও Core i3 আর আপনার টাও Core i3 ! তাহলে পার্থক্য কোথায়? পার্থক্য হচ্ছে জেনারেশনের আর Cache মেমোরিতে। তাই আপনার ১৮ হাজার টাকার আই ৩ এর স্পিড অবশ্যই লেটেস্ট জেনারেশনের আই ৩ এর থেকে তুলনামূলকভাবে অনেক কম হবে।

- Advertisement -

আর তাই জেনারেশন সম্পর্কে ধারণা না থাকলে বিশেষ করে সেকেন্ড হ্যান্ড পিসি কিনতে গিয়ে আপনি ধরা খেতে পারেন যদি কিনা বিক্রয় ডট কম বা অনান্য কমার্স সাইট থেকে পিসি কিনতে যান তাহলে। শপে গিয়ে নতুন পিসি কিনতে গিয়েও আপনি এইরকম প্রতারণার শিকার হতে পারেন তবে এটা খুবই কম হয়ে থাকে।

ইন্টেল

আমাদের দেশে ইন্টেল প্রসেসর সবথেকে বেশি ব্যবহৃত হয়ে থাকে। বিশেষ করে আমজনতারাই বেশি ইন্টেল প্রসেসর ব্যবহার করে থাকে আর আমার মতো বুদ্ধিমান(!) এবং টেক এক্সপার্ট যারা Value for Money খুঁজে থাকেন তারাই AMD এর প্রসেসর ব্যবহার করে।

প্রথমে আপনার পিসির ডিটেইলস আপনাকে জানতে হবে এবং বুঝতে হবে। এর জন্য প্রথমে This PC এর উপর রাইট ক্লিক করুন। (ফাইল এক্সপ্লোরার থেকে খুলুন, ডেক্সটপ থেকে নাও হতে পারে যেহেতু সেটা সাধারণত Shortcut আইকন হয়ে থাকে)। এবার রাইট ক্লিক মেন্যু থেকৈ Properties এ চলে যান।

- Advertisement -

এখানে ক্লিক করলে আপনি সিস্টেম এন্ড সিকুরিটির সিস্টেম অংশে সরাসরি চলে আসবেন। আর এখানে আপনার পিসির সিস্টেমের প্রায় সকল দরকারি তথ্যগুলোকে পেয়ে যাবেন। এখান থেকে প্রসেসর ঘরে লেখা মডেল নাম্বারটি নোট করে নিন। এখানে আমার পিসির প্রসেসরের মডেল নাম্বার হচ্ছে i5-5300U

- Advertisement -

গত কয়েক বছর ধরেই প্রতি বছরই ইন্টেল নতুন নতুন প্রজন্মের প্রসেসর বের করছে। যেমন ৯ম জেনারেশন বের হয়েছিলো আগষ্ট ২০১৮ সালে, ৮ম জেনারেশনের সিপিইউ বের হয়েছিলো আগষ্ট ২০১৭ সালে, আগষ্ট ২০১৬ সালে সপ্তম বা ৭ জেনারেশন এনাউন্স করেছিলো এবং ২০১৫ সালের আগষ্ট মাসে ৬ষ্ঠ জেনারেশনের সিপিইউ এনাউন্স করে ইন্টেল।

এবার আপনার নোট করা মডেলের সাথে উপরের চিত্রটিকে মিলিয়ে নিন। এখানে Intel Core হচ্ছে আপনার প্রসেরের ব্রান্ড। i7, i5 কিংবা i3 হচ্ছে ব্রান্ড মডিফাইয়ার যেটা আপনারা চিনেই থাকেন। এবার ব্রান্ড মডিফাইয়ারের সাথে হাইফেন দিয়ে রাখা পরবর্তী চারটি সংখ্যার মধ্যেই আপনার প্রসেসরের জেনারেশন দেওয়া রয়েছে। তাহলে আমারটা ছিলো i5-5300U তাহলে এখানে হাইফেনের পরবর্তী চারটি সংখ্যার প্রথম সংখ্যাটি হচ্ছে আপনার পিসির জেনারেশন ইন্ডিকেটর। অর্থ্যাৎ আমার পিসির প্রসেসর হচ্ছে ৫ম জেনারেশনের কোর আই ৫ পিসি।

উদাহরণস্বরুপ আমার ল্যাপটপের ডিটেইলস দেখেন তাহলে দেখবেন যে এখানে লেখা i5-3427U মানে আপনার ল্যাপটপও কোর আই ৫ এর কিন্তু এটা একটু পুরাতন মানে তৃতীয় প্রজন্মের।

ইন্টারনেট

আপনার যদি ইন্টারনেটে একসেস থাকে তাহলে এর থেকে সহজ প্রক্রিয়া আর নেই। আপনার প্রসেসর মডেলটি নোট করে রাখার পর সরাসরি ক্রোম বা যেকোনো ব্রাউজারে গিয়ে গুগলে মডেলটি লিখে সার্চ দিলেই হলো! আপনি আপনার প্রসেসরের বিস্তারিত তথ্য নেট থেকেই পেয়ে যাবেন!

AMD

ইন্টেল মতো এএমডি প্রসেররের জেনারেশন অত সহজে আপনি বুঝতে পারবেন না। কারণ বছর তিনেক আগেও AMD এর প্রসেসরগুলোর নামও মনে রাখা কষ্টকর ছিলো (ব্যক্তিগত মতামত), FX ছিলো, Bulldozer ছিলো ইত্যাদি। কিন্তু ২০১৭ সালে রাইজেন প্রসেসর লিষ্ট আসার পর এটা একটু সহজতর হয়েছে। কিন্তু তারপরেও আপনি ইন্টারনেটর সাহায্য ছাড়া সাধারণত কখনোই AMD প্রসেসরের জেনারেশন জানতে পারবেন না।

AMD 1st Gen Ryzen – 1000 Series

AMD 2nd Gen Ryzen – 2000 Series

AMD 3rd Gen Ryzen – 3000 Series

এটা হচ্ছে নরমাল সিরিজ, মানে সাধারণত আপনি সিরিজের হাজারের সংখ্যা ভিক্তিতে এএমডির রাইজেনের প্রসেসরের জেনারেশন চেক করে নিতে পারেন। কিন্তু অবশ্যই ইন্টারনেটে একবার সার্চ দিয়ে দেখে ১০০% সিউর হয়ে নিবেন। কেন?

কারণ হচ্ছে AMD Ryzen 5 3600 প্রসেসরটিকে উপরের পদ্ধতিতে দেখলে আপনার ৩য় প্রজন্মের মনে হবে আর এটা সঠিক! কিন্তু একই ভাবে আপনি যদি AMD Ryzen 7 3700U প্রসেসরটিকে দেখেন তাহলেও একে ৩য় প্রজন্মের মনে হবে কিন্তু আসলে এটা হচ্ছে ১ম প্রজন্মের!

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here