ইন্টারনেট আমাদের জীবনযাত্রার মানকে অনেক উন্নত এবং সহজ করে দিয়েছে। তবে এই সহজ করার পিছনেও অনেক ধরণের বিজনেস এবং চাল লুকিয়ে থাকে। যেমন জিপিএস কিংবা অনান্য প্রযুক্তির মাধ্যমে আপনার ডিভাইসে ইন্টারনেট থাকলে আপনি এখন বর্তমানে কোন স্থানে রয়েছে তার Exact পিনপয়েন্ট লোকেশন নিমিষেই বের করা সম্ভব! এছাড়াও আপনি কোন ডিভাইস ব্যবহার করছেন, কোন ব্রাউজার ব্যবহার করছেন, আপনার অপারেটিং সিস্টেম কি এমনকি আপনি বর্তমানে কোন কোন সাইটে ব্রাউজরত অবস্থায় রয়েছে সেটাও কিন্তু বের করে নেওয়া সম্ভব।
সাধারণত বাইরের কারো WiFi কিংবা ফ্রি ওয়াইফাই স্পটগুলোকে এই বিষয়গুলো আপনাকে অবশ্যই খেয়ালে রাখতে হবে। আর সেখানেই আসে VPN এর ব্যবহার! আজ ভিপিএন কি, কেন একে ব্যবহার করবেন এবং vpn for pc ও মোবাইল ডিভাইসের জন্য বর্তমানে সেরা VPN সার্ভিস কোনগুলো সেগুলোর সব নিয়েই আলোচনা হবে!

VPN মানেই খারাপ কিছু?

আমাদের ব্যবহারের উপর সার্ভিসের সুনাম নির্ভর করে। যেমন মরফিনিএর কথাই বলি উদাহরণ স্বরূপ। মরফিন কিন্তু মেডিক্যালভাবে এক ধরণের ওষুধ (ব্যাথানাশক) ঘুমের জন্য ব্যবহার হয় ক্রিটিকাল পেশেন্ট দের ক্ষেত্রে, আর এটার জন্যই একে উৎপন্ন করা হয়ে থাকে। এখন মানুষ একে নেশার বস্তু বানিয়ে মরফিনকে একধরণের খারাপ জিনিসে পরিণত করে ফেলেছে।

সেরকমই এখন যেকেউই যদি শুনে VPN চালান তাহলে আপনাকে খারাপ নজরেই দেখা স্বাভাবিক! তবে এসব ক্ষেত্রে নিন্দুকের সমালোচনাগুলো এড়িয়ে যাওয়াই ভালো।

VPN কি এবং এটা আপনার কোন কাজে আসবে?

VPN এর পূর্ণরূপ হচ্ছে Virtual Private Network । এটা ইন্টারনেটের উপর মাস্ক হিসেবে আরেকটি প্রাইভেট নেটওর্য়াক তৈরি করে। সাধারণত আমরা VPN ব্যবহার করি দেশে ব্লককৃত ওয়েবসাইটে একসেস পাবার জন্য, পাবলিক WiFi তে সিকিউর থাকার জন্য ইত্যাদি। কিন্তু VPN তৈরি করা হয়েছিলো সিকিউর ভাবে অনলাইন বিজনেস ডিল স্ক্রস করার জন্য।
প্রতিটি ভিপিএন এর আলাদা নিজস্ব কম্পিউটার সার্ভার রয়েছে। আপনি যখন আপনার ডিভাইস থেকে ভিপিএন কানেক্ট করবেন তখন আপনার ইন্টারনেটগুলো সরাসরি আপনার ডিভাইসে না গিয়ে ওই ভিপিএন সার্ভারের মাধ্যমে Routate হয়ে পরে আপনার ডিভাইসে চলে আসে। এর মাধ্যমে ওই সার্ভারের ইন্টারনেটে আপনি ব্রাউজ করছেন এমনটা মনে হবে। যেমন চীনে ফেসবুক, প্লেস্টোর ইউটিউব এই সাইটগুলো ব্লক করা রয়েছে তাদের সরকার থেকে। কিন্তু তারা VPN ব্যবহার করে সহজেই এই সাইটগুলোতে একসেস পেতে পারে।

ভিপিএন ব্যবহার করে আপনি:
১) Geographic Restrictions সাইটগুলোতে একসেস পেতে পারবেন।
২) বিভিন্ন দেশভিক্তিক সার্ভিস (যেমন Nvidia GForce Now) এ কানেক্ট হতে পারবেন।
৩) ওপেন WiFi জোনে প্রাইভেসি রক্ষা করতে পারবেন
৪) টরেন্টিং করার সময় লগিং এর শিকার হতে নিজেকে রক্ষা করতে পারবেন।

সেরা VPN (পিসি)

আমাদের মতো সাধারণ ইউজারদের জন্য ফ্রি ভিপিএন যথেষ্ট। তবে যারা এডভান্স ইউজার রয়েছেন এবং পিসিতে অধিকাংশ সময়েই VPN য়ে কানেক্ট থাকতে হয় তারা প্রিমিয়াম পেইড ভিপিএন সার্ভিস ব্যবহার করতে পারেন। নিচের বর্তমানের সেরা PC VPN সার্ভিসগুলো সংক্ষেপে তুলে ধরা হলো।

ExpressVPN

best vpn for pc ExpressVPN

কিছুদিন আগে NordVPN এর স্ক্যান্ডালের জন্য বর্তমানে সবথেকে সেরা বা best vpn for pc এবং মোবাইল হচ্ছে ExpressVPN । এটায় আপনি অল রাউন্ড পারফরমেন্স, স্পিড, প্রাইভেসি পাবেন। তবে মনে রাখতে হবে যে এটা হচ্ছে একটি প্রিমিয়াম ভিপিএন সার্ভিস। তবে ৩০ দিনের ট্রায়াল পাবেন মোবাইল ডিভাইসে। একটি লাইসেন্সে আপনি একই সাথে ৫টি ডিভাইসে একাউন্ট কানেক্ট করতে পারবেন। এছাড়াও এদের রয়েছে বিশাল ৩ হাজারের বেশি ভিপিএন সার্ভার, ১৬০টির বেশি সার্ভার লোকেশন, ২৪ ঘন্টার সার্পোট সিস্টেম ইত্যাদি। আর দেশ হিসেবে প্রায় ৯৪টির মতো দেশ থেকে আপনার পছন্দের লোকেশনটি বেছে নিতে পারবেন। ExpressVPN এ রয়েছে Industrial-strengh এনস্ক্রিপ্টশন, কিল সুইচ, DNS লিক প্রটেক্টশন, সলিড পারফরমেন্স এবং Zeo Logging পলিসি। এখানে ডাউনসাইড হিসেবে একটি জিনিসই রয়েছে সেটা হলো এই প্রাইস।

Surfshark

OpenVPN UDP, TCP , IKEv2 , AES-256 Encryption, Private DNS, Kills Switch Surfshark

আমাদের লিস্টের ২য় স্থানে রয়েছে Surftshark ভিপিএন। প্রায় ১৭০০টির বেশি সার্ভার, ৬৩টি দেশের লোকেশন, ৩০ দিনের ট্রায়াল পিরিয়ড আর আনলিমিটেড ডিভাইস সার্পোট রয়েছে এতে। Surfshark এ আপনি পাবেন OpenVPN UDP এবং TCP প্রোটোকল, IKEv2 সিকুরিটি প্রোটোকল, AES-256 Encryption, কিল সুইচ, প্রাইভেট DNS সহ বিভিন্ন ফিচার সম্বলিত ভিপিএন। আর একটি লাইসেন্সে আপনি একই সাথে আনলিমিটেড ডিভাইসে ভিপিএন সার্ভিসটি ব্যবহার করতে পারবেন।

NordVPN

one of the best vpn for pc NordVPN

যদিও এর কিছু Historic Breaches রয়েছে তবুও প্রিমিয়াম VPN হিসেবে সবথেকে জনপ্রিয় নাম হচ্ছে NordVPN । গুগলে vpn for pc লিখে সার্চ  দিলে সবার আগেই Nord VPN এর রেজাল্ট এখনো আপনি দেখতে পারবেন।  এখনো এর সার্ভিস অনান্য প্রিমিয়াম ভিপিএনকে সহজেই হার মানায়। তবে কথায় আছে না, রেপুটেশনে একবার কালো দাগ লাগলে সেটা একেবারে উঠানো সম্ভব না। নর্ডভিপিএনয়ে আপনি পাবেন প্রায় ৬০ টি দেশের ৫,৫০০ থেকে বেশি সার্ভার, 2048-bit এনক্রিপ্টশন, ৬ টি ডিভাইসের সার্পোট, শক্তিশালী DNS Leak প্রটেক্টশন, কিল সুইচ, ব্রাউজারের জন্য প্রক্সি এক্সটেশন সহ আরো অনেক কিছু। আর সম্প্রতিক স্ক্যান্ডালের পর দেখা যাচ্ছে তারা তাদের পুরো সিস্টেমকে আরো অপটিমাইজ করেছে। দূরবর্তী সার্ভারেও এখন Above এভারেজ স্পিড পাওয়া যাচ্ছে।

IPVanish

40 Thousand Plus Shared IP, Unlimited P2P IPVANISH

৩০ দিনের ট্রায়াল, ২৪/৭ কাস্টোমার সার্পোট, ১৪০০ সার্ভার, ৭৫টির বেশি লোকেশন, ৫০টির বেশি দেশ, আর একই সাথে একটি লাইসেন্সে ১০টি ডিভাইসের সার্পোট নিয়ে IPVanish vpn রয়েছে আমাদের আজকের লিস্টের ৪র্থ স্থানে। এই সার্ভিসে রয়েছে প্রায় ৪০ হাজারের বেশি Shared IPs, Unlimited P2P ট্রাফিক সহ ইত্যাদি সব ফিচার ।

Hotspot Shield Free VPN

Hotspot Shield Free VPN

এতক্ষণ প্রিমিয়াম ভিপিএন নিয়ে আলোচনা চলছিলো। এবার ফ্রি VPN সেকশনে আসা যাক। কারণ আমাদের সাধারণ ইউজারদের জন্য প্রিমিয়াম ভিপিএন এর তেমন কোনো প্রয়োজন নেই, আমরা ফ্রি ভিপিএন দিয়েই আমাদের প্রয়োজনগুলো সহজেই পূরণ করে ফেলতে পারি। আর ফ্রি ভিপিএন এর ক্ষেত্রে সবার আগে নাম আসে Hotspot Shield Free VPN এর। ফ্রি ভিপিএন হিসেবে প্রায় ৭০টির মতো দেশের সার্ভারে একসেস পাবেন (যদি Elite ভার্সনটি কিনে থাকেন)। আর ফ্রি ভার্সনে লোকেশনে একটু কম আর বিজ্ঞাপনের ঝামেলা তো রয়েছেই। এছাড়াও ফ্রি ভার্সনে দৈনিক ৫০০ মেগাবাইটের ইউসেজ লিমিট রয়েছে, তার মানে ফ্রি সংষ্করণে আপনি মাসে ১৫ জিবির ইউসেজ লিমিট পাবেন। তবে টুকটাক বিজনেস কিংবা অনলাইন ব্যাকিংয়ের জন্য দৈনিক ৫০০ মেগাবাইট যথেষ্ট। কারণ ফ্রি হলেও এই ভিপিএনয়ে রয়েছে মিলিটারি গ্রেড এনক্রিপ্টশন সিস্টেম।

TunnelBear

Tunnelbear owned by Mcafee

ফ্রি ভিপিএন এর জগতের NordVPN বলতে পারেন এই TunnelBear কে। বিশেষ করে সিকুরিটি জায়ান্ট McAfee এই TunnelBear কে কিনে নেবার পর এর জনপ্রিয়তা আরো বেশি করে বৃদ্ধি পাওয়া শুরু করে। এটি আরো বেশি পপুলারিটি পেয়ে যায় লাইনাস টেকটিপস চ্যানেলে স্পনসর করার পরে। লাইনাস সেবাস্টিয়ানের করা বিভিন্ন স্পন্সরড কন্টেন্ট গুলো রাতারাতি মেমে হয়ে যায় আর পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে টানেলবিয়ার এর জনপ্রিয়তা। উল্লেখ্য যে TunnelBear ফ্রি এবং পেইড দুটো সার্ভিসই আপনাকে অফার করবে। তবে এখানে সবথেকে বেশি সমস্যা হলো ফ্রি ভার্সনে আপনি মাত্র মাসে ৫০০ মেগাবাইটের ইউসেজ লিমিট পাবেন। ফ্রিতে ব্যবহারযোগ্য হিসেবে একে ব্যবহার করতে পারেন তবে ইউসেজ লিমিটের কথাটাও মাথায় রাখতে হবে।

ProtonVPN Free

Proton VPN Free

মাত্র ৩টি সার্ভারের থেকে বেছে নেওয়ার সুযোগ থাকলেও ProtonVPN Free হচ্ছে অন্যতম ফ্রি ভিপিএন যারা আনলিমিটেড ডাটা ইউজেসের সুবিধা আপনাকে দেবে। ফ্রিয়ের পাশাপাশি ProtonVPN প্রিমিয়াম সার্ভিসও রয়েছে। তবে ফ্রি একাউন্টের লিমিটেডশন হলো, মাত্র ১টি ডিভাইসে ১টি একাউন্ট ব্যবহারের লিমিট, মাত্র ৩টি লোকেশন, আর কানেক্টশনে ফ্রি ইউজাররা একটু লো Priority পান। এছাড়াও এখানে কোনো প্রকারের P2P সার্পোট নেই। আর একই সাথে পিক আওয়ারে স্পিড কমেও যেতে পারে।

Windscribe

Windscribe

মোটামুটি ধাঁচের সিকুরিটি সিস্টেম আর মোটামুটি মাসিক ইউসেজ লিমিট নিয়ে Windscribe রয়েছে আমদের best vpn লিস্টে। উইন্ডোজ, ম্যাক, অ্যান্ড্রয়েড, iOS আর লিনাক্সের সার্পোট সহ এই Windscribe ভিপিএন য়ে আপনি ফ্রিতেই ব্যবহার করতে পারবেন প্রায় ১০টি সার্ভার। তবে মাসিক লিমিটেশন হিসেবে প্রতি একাউন্টে ১০ গিগাবাইট পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে। এদের আরেকটি সেলিং পয়েন্ট হচ্ছে এরা আপনার ডিভাইস থেকে কোনো প্রকারের Logging জমা রাখে না।

Betternet

Fastest VPN servers with unlimited data Betternet

আমি ব্যক্তিগত ভাবে এই বেটারনেট এর ফ্রি ভিপিএনকে ব্যবহার করে থাকি। কারণ এতে রয়েছে অটোমেটিক বেস্ট সার্ভারে কানেক্ট হবার সুযোগ, রয়েছে free unlimited vpn ডাটা ইউসেজ আর সময়ের সাথে সাথে এর কানেক্টশন স্পিডকে স্লো করে না। আর সবথেকে বড় সুবিধা হচ্ছে এখানে কোনো প্রকারের রেজিস্টেশনের প্রয়োজন হয় না, কোনো আইডি / পাসওর্য়াডেরও ঝামেলা নেই। জাস্ট অ্যাপকে ইন্সটল করেই VPN য়ে কানেক্ট হয়ে যেতে পারবেন আপনি! এখানে ফ্রিয়ের পাশাপাশি রয়েছে প্রিমিয়াম সার্ভিস কিনে নেওয়ার সুযোগ। এটা vpn for pc এর পাশাপাশি মোবাইল ডিভাইসের জন্যও আপনি অ্যাপ পেয়ে যাবেন।

Turbo VPN

Most popular Turbo VPN

আর ব্যক্তিগত ভাবে মোবাইল ডিভাইসে আমি ব্যবহার করি turbo vpn কে। কারণ কানেক্ট করা সহজ, ফ্রিতে জনপ্রিয় দেশে কানেক্ট এর সুযোগ, আনলিমিটেড ডাটা ইউজেসের সুবিধা আর সব থেকে বড় কথা হচ্ছে এর কখনোই স্পিডকে স্লো করে না। আর কোনো প্রকারের আইডি/ লগইনের ঝামেলা নেই এখানে। আর এখানেও ফ্রিয়ের পাশাপাশি রয়েছে প্রিমিয়াম সার্ভিস কিনে নেওয়ার সুযোগ। এটা মূলত অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের জন্য বেশি জনপ্রিয় আর ব্যবহৃত হলেও গুগলে turbo vpn for pc লিখে সার্চ দিলে এর পিসি সংস্করণও আপনি পেয়ে যাবেন।

SuperVPN

Super VPN Service

এই ভিপিএন নতুন কিংবা আগে কখনো এই ভিপিএন এর নাম শুনেননি এমন লোকের সংখ্যাই বেশি । তবে ডাউনলোডের কথা বিবেচনা করলে কিন্তু এটা বেশ এগিয়ে রয়েছে। এখন পর্যন্ত গুগল প্লে স্টোর থেকে এই অ্যাপটি প্রায় ১০০ মিলিয়নের বেশিবার ডাউনলোড হয়েছে। হ্যাঁ! এটা অ্যান্ড্রয়েডের জন্যে এক্সুসিভ একটি ভিপিএন, এর কোনো পিসি সংস্করণ নেই। ভিপিএনটি ফাস্ট এবং ফ্রি! তবে বিশ্বাসযোগ্যতাই হচ্ছে ফ্রি ভিপিএন এর ক্ষেত্রে মূল ফ্যাক্টর! এতে রয়েছে আনলিমিটেড ফ্রি ব্যান্ডউইথ, রয়েছে কোনো প্রকারের রেজিস্ট্রেশনের ঝামেলা ছাড়াই on-the-go হিসেবে ব্যবহারের সুযোগ। কিন্তু এর Anonymouse ডেভেলপার, Worthless প্রাইভেসি পলিসি, অ্যাপ চালাতে সেন্সিটিভ পারমিশন আর বিজ্ঞাপনের জন্য একে অনেকেই ব্যবহার করতে দ্বিধাবোধ করেন।

VPN For Chrome

Internet Freedom, no more blocked sites

অনেকেই রয়েছেন যারা সিস্টেম ওয়াইড ভিপিএন না ব্যবহার করে ব্রাউজার ভিক্তিক ভিপিএন ব্যবহার করে থাকেন। এক্ষেত্রে ভিপিএনটি ব্রাউজারের এক্সটেনশন হিসেবে ইন্সটল করা থাকে আর ভিপিএন চালু / একটিভ থাকলে সেটা শুধুমাত্র ব্রাউজারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে। এ ক্ষেত্রে ক্রোম ব্রাউজারের স্টোরে VPN লিখে সার্চ দিলে অনেক ক্রোম ভিপিএন পেয়ে যাবেন। তবে আমার কাছে hidemyass এক্সটেশনটিই এক্ষেত্রে সবথেকে সেরা মনে হয়। কারণ একমাত্র রেজিস্ট্রেশনের ঝামেলা ছাড়া এতে আর কোনো সমস্যা নেই। নেই কোনো ব্যান্ডউইথ লিমিট, নেই স্পিড স্লো এর কারণ, মাত্র এক ক্লিকে ভিপিএন দ্রুত কানেক্টের সুবিধা সহ বিভিন্ন ফিচার এতে রয়েছে।

 

বোনাস

How to Install VPN for PC?

ভিপিএন ইন্সটল এবং ব্যবহার করা খুবই সহজ। বিশেষ করে পিসিতে আপনি অনান্য সফটওয়্যার যেভাবে ইন্সটল করেন ভিপিএন কেও সেভাবেই ইন্সটল করে ফেলতে পারবেন কোনো প্রকার ঝামেলা ছাড়াই।

How to Install VPN for PC ?

প্রথমে আপনার পছন্দের VPN এর ওয়েবসাইট থেকে টুলটি ডাউনলোড করুন, মনে রাখবেন অফিসিয়াল সাইট ছাড়া অন্য সাইট থেকে ফ্রি / পেইড ভিপিএন ডাউনলোড করবেন না।

hide.me integration

ডাউনলোড এবং ইন্সটলের পর ভিপিএনটি চালু করুন। পেইড এবং কিছু কিছু ফ্রি ভিপিএনয়ে কানেক্ট করার পূর্বে আপনাকে ভিপিএন লোকেশন সিলেক্ট করতে হতে পারে। আবার অনেক ভিপিএনয়ে লোকেশন সিলেক্টের চয়েজ থাকে না, সেক্ষেত্রে সরাসরি Connect বাটনে ক্লিক করতে হবে।

Connecting hide.me vpn

ব্যাস! VPN কানেক্ট হয়ে যাবে! ব্যবহার করা শেষ হলে ভিপিএন থেকে Disconnect / Disable অপশনে ক্লিক করে ভিপিএন থেকে ডিসকানেক্ট হয়ে নিবেন। সরাসরি WiFi বন্ধ করে পরবর্তীতে WiFi কানেক্ট হলেই কিন্তু ভিপিএন অটো রিকানেক্ট হয়ে যাবে তাই ভিপিএন থেকে আপনাকে একে ডিসকানেক্ট করে নিতে হবে।

Which VPN is Best For PC?

মনে রাখতে হবে যে, বেস্ট বা সেরা বলতে কিছু নেই। কেউই ১০০% নয়। এ কথা VPN এর ক্ষেত্রেও খাটে। তবে পেইড বা ফ্রি যে ভিপিএন আপনি ব্যবহার করতে চান না কেন, সবসময়ই চেষ্টা করবেন সবথেকে সেরা ফিচারসমৃদ্ধ VPN কে ব্যবহার করা । এক্ষেত্রে পেইড ভিপিএন এর সেরা হিসেবে আমি বলবো ExpressVPN কে। আপনি NordVPN কেও বেছে নিতে পারেন তবে সেখানে ডাটা হ্যাকের স্ক্যান্ডালের কথাটিও আপনাকে মনে রাখতে হবে। ExpressVPN এর সবথেকে দারুণ সুবিধা হলো এর সার্ভারের সংখ্যা অনেক এবং দূরবর্তী সার্ভারেও এর কানেক্টশন স্পিড বেশ ভালো।
আর ফ্রি ভিপিএন এর ক্ষেত্রে BetterNet কে আমি সাজেস্ট করবো। কারণ এতে কোনো রেজিস্টেশন এর ঝামেলা নেই, স্পিড স্লো করবে না আর আনলিমিটেড ব্যান্ডউইথ সুবিধা থাকছে।

Is VPN Safe For PC?

এখন আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, ভিপিএন ব্যবহার করা কি সেইফ? তবে এই কথা বলতে পারা যায় যে ভিপিএন ছাড়া পাবলিক WiFi তে কিংবা সেন্সিটিভ ওয়েবসাইটগুলোতে ব্রাউজের সময় ভিপিএন থাকাটা মাস্ট। তবে একটা কথা মনে রাখতে হবে যে ভিপিএন আপনাকে বাইরের হ্যাকারদের থেকে আপনার তথ্যকে সিকিউর রাখে কিন্তু VPN কিন্তু নিজের থেকে কিছু লগ রেখে থাকে যা আপনার চিন্তার কারণ হয়ে থাকে ।

VPN আপনার কানেক্টশনকে আপনার অনলাইন এক্টিভিটিকে বাইরের সাইবার ক্রিমিনাল এবং আপনার নিজের ISP দের থেকে সেইফ রাখে। কিন্তু মনে রাখতে হবে ফ্রি ভিপিএনগুলো আপনার এই এক্টিভিটিকে নিজের জন্য রেকর্ড হিসেবে লগ ফাইলে সেভ করে রাখে। কিন্তু প্রিমিয়াম ভিপিএনগুলোতে Zero লগিং ফিচার পাবেন।

পরিশিষ্ট

নিজের বাসায় টুকটাক দৈনন্দিন ইন্টারনেট ব্যবহারের জন্য কিংবা পাবজি / মোবাইল গেমিংয়ের জন্য VPN এর কোনো প্রয়োজনই হবে না। বরং VPN দিয়ে টরেন্ট বা FTP সার্ভারে আপনি সেরকম স্পিড পাবেন না। কিন্তু কলেজের ক্যাম্পাসের ফ্রি ওয়াইফাইতে কিংবা অফিসের WiFi তে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য ব্রাউজিংয়ের জন্য অবশ্যই আপনাকে VPN কানেক্টেড থাকতে হবে। VPN নিয়ে আমাদের আরেকটি লেখায় “VPN দিয়ে কানেক্ট থাকলে সেটা ISP বুঝতে পারবে কি?বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে, চাইল পরে আসতে পারেন।

Avatar
Fahad is a freelance writer and editor with nearly 10 years' experience in Bangla Technology Blogging who, while not spending every waking minute selling himself to websites around the world, spends his free time writing. Most of it makes no sense, but when it does, he treats each article as if it were his Magnum Opus - with varying results.