আজ সকাল ৭.৩০ মিনিটে অনুষ্ঠিত হয় Razer এর Flagship//Gaming ইভেন্ট। এই ইভেন্টের মূল ফোকাস ছিল সম্পূর্ণ রুপে মোবাইল গেমিং। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন Razer এর সিইও মি. মিন লিয়াং ট্যান। এই অনুষ্ঠানে তিনি বলেন প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই Razer চেস্টা করে এসেছে সকল ক্রেতাদেরকে বেস্ট সার্ভিস দেয়ার জন্য। ভবিষ্যতেও এই চেস্টা অব্যাহত থাকবে।

এছাড়াও আলোচনা করা হয় কিভাবে রেজার তাদের প্রোডাক্ট লাইন আপ চালাচ্ছে আর ভবিষ্যতে আরো কি কি আনতে পারে। দেখানো হয় ২০০৫ সালে শুধু মাত্র কীবোর্ড, মাউস, হেডসেট দিয়ে কোম্পানি শুরু করা হলেও কিভাবে ২০১৮ সালে এসে তাদের এখন ভ্যাস্ট প্রোডাক্ট লাইন আপ রয়েছে। এটা গ্যারান্টি দেয়া হয় প্রতিটি প্রোডাক্টে কন্সুমার প্রিমিয়াম ফ্ল্যাগশিপ ফিল ও সার্ভিস পেয়ে যাবে।

চলুন দেখে নেয়া যাক রেজার কি কি নতুন প্রোডাক্ট মার্কেটে আনতে যাচ্ছে।

Razer Hammerhead Pro 2

শুরুতেই বলেছিলাম রেজারের এবারের ইভেন্টের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল মোবাইল গেমিং। তাই নতুন প্রোডাক্ট এনাউন্সমেন্ট শুরু করাই হয় নতুন মোবাইল গেমিং হেডসেটের মধ্য দিয়ে। অফিসিয়ালি রিলিজ হতে যাচ্ছে রেজারের ল্যাটেস্ট জেনারেশনের গেমিং ইয়ারফোন Hammerhead Pro V2।

Hammerhead Pro গেমিং ইয়ারফোনের ট্রেন্ড শুরু করে। V2 তে আমরা অরিজিনাল ভার্শন থেকে মেজর কিছু উন্নতি দেখতে যাচ্ছি। আগের জেনারেশন থেকে বেটার নয়েজ ক্যান্সেলিং থাকছে, বোনাস হিসেবে দেয়া হচ্ছে ফোম ইয়ার কুশন। যে কোন ইয়ারফোনের ইতিহাসে প্রতিটি ইয়াপিসে দেয়া হচ্ছে এক সাথে ডুয়াল ইন্টিগ্রেটেড ড্রাইভার। আর সবচেয়ে বড় ইম্প্রুভমেন্ট হচ্ছে, আপনারা এতে এবার পাবেন ইউএসবি টাইপ সি সাপোর্ট।

Razer Raiju Mobile

অফিসিয়ালি এনাউন্স করা হল গেমিং ফোনের জন্য রেজার রাইজু মোবাইল কন্ট্রোলার। আপনারা জানেন ইতিমধ্যে রেজারের রাইজু সিরিজের এক্সবক্স ও পিএস ফোরের জন্য কন্ট্রোলার রয়েছে। সেই কন্ট্রোলারগুলোর ডিজাইনের বেস্ট সব দিক নিয়ে এই রাইজু মোবাইল কন্ট্রোলার ডিজাইন করা হয়েছে বলে জানানো হয়। আরো বলা হয় এই কন্ট্রোলার সাপোর্ট করার জন্য রেজার বিভিন্ন মোবাইল গেম ডেভেলপারদের সাথে ক্লোজলি কাজ করছে।

এই কন্ট্রোলারের মধ্যে দেয়া হয়েছে আরগোনমিক মাল্টি ফাংশন বাটন এবং ফোন মাউন্ট যা ৬০ ডিগ্রি টিল্ট করা যায়। এছাড়া, শুধু গেম নয়, এপের সাথেও কনফিগার করা হয়েছে এই কন্ট্রোলারকে।

Razer Blade 15 Base & Mercury

অনুষ্ঠানে বলা হয় Razer Blade 15 ল্যাপটপ হচ্ছে রেজারের মোস্ট সেলিং ল্যাপটপ। রেজার চেস্টা করেছে তাদের ল্যাপটপে সব সময় যত স্লিম ডিজাইনের মধ্যে বেস্ট থার্মাল রেজাল্ট এচিভ করা যায়, সেই লক্ষ্যে কাজ করে। কিন্তু, অনেক কাস্টমার আছেন যারা রেজারের গেমিং ল্যাপটপে ইথারনেট পোর্ট চেয়েছিলেন। শুধুমাত্র তাদের কথা বিবেচনা করে রেজার রিলিজ করতে যাচ্ছে Razer Blade 15 Base Edition।

এডাভন্সড এডিশন থেকে বেইজ এডিশনে কিছুটা কম মানের হার্ডওয়্যার থাকলেও কোয়ালিটির দিক থেকে কোন কমতি রাখছে না রেজার। গিগাবিট ইথারনেট পোর্টের সাথে সাথে আপনি পাচ্ছেন ডুয়াল স্টোরেজ সিসিটেম ও সিঙ্গেল জোন ক্রোমা লাইটিং। বেইজ মডেলটি পাওয়া যাবে ১৫৯৯ ডলারে, এখন ইউরোপ ও দক্ষিণ আমেরিকা রিজিওনে এভেল্যাবল হলেও নভেম্বরের শেষ অথবা ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে চলে আসতে পারে Razer Blade 15 Base Edition।

এছাড়াও এনাউন্স করা হয় লিমিটেড এডিশন Razer Blade 15 Advanced Mercury Edition গেমিং ল্যাপটপের। এই ল্যাপটপ বের করার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে তাদের মার্কারি এডিশনের পেরিফেরালসের জনপ্রিয়তা। ট্যান জানান, মার্কারি এডিশন পেরিফেরালস রিলিজ করার পর তাদের কাছে অনেক পজিটিভ ফিডব্যাক ও ডিমান্ড আসতে থাকে। সেই ডিমান্ড পুরণ করার জন্য রেজার লিমিটেড এডিশন হিসেবে এই ল্যাপটপ রিলিজ করতে যাচ্ছে। তবে সামান্য দুর্ভাগ্যের বিষয় এটি শুধু নর্থ আমেরিকা, ইউরোপ ও চীনের কিছু মেজর রিটেইলারদের মাধ্যমে বিক্রি করা হবে।

Razer Phone 2

Image Source: MKBHD

যদিও সবাই জানত Razer Phone 2 আসছে, কিন্তু আগের জেনারেশনের রেজার ফোনের থেকে কি ধরণের উন্নতি দেখা যাবে তার দিকেই তাকিয়ে ছিল সবাই। রেজার ফোন ২ নিয়ে ডিটেইলস আর্টিকেল আগামি কিছুদিনের মধ্যেই আমাদের কাছে আসবে। তবে মেজর কোন উন্নতি না আসলেও যা এসেছে তা অনেক নোটেবল।

রেজার ফোন এখন আইপি ৬৭ রেটেড, এতে নেই কোন বেজেল, নেই কোন নচ। মেইন্সট্রিম কোন ট্রেন্ডই খুজে পাবেন না, সাথে সাথে খুজে পাবেন না হেডফোন জ্যাক। ক্যামেরাতে আপনি পাবেন ১২ বাই ১২ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল সনি ক্যামেরা, ফ্রন্টে ফুল এইচ ডি লাইভ স্ট্রিমিং ক্যামেরা। দেয়া হয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ প্রসেসরের ও এড্রিনো ৬৩০ জিপিউ।

কুলিঙ্গের জন্য দেয়া আছে আলাদা ভেপার চেম্বার। কনফারেন্সে বলা হয়, রেজারের ফোন হচ্ছে দুনিয়ার মধ্যে ফাস্টেস্ট ফোন। কোন ফোন রেজার ফোন দুইয়ের ধারে কাছে আসতে পারবে না। এর উদাহরণ হিসেবে দেখানো একটি গিকবেঞ্চ মাল্টিকোর স্কোর। এছাড়া রেজার গেম ডেভেলপারদের সাথে পার্সোনালি কাজ করছে যাতে সকল ই স্পোর্টস গেম যেমন ভেইন গ্লোরি, পাবজি ইত্যাদি যেন রেজার ফোনেই বেস্ট অপ্টিমাইজড রান করে।

তো এই ছিল ২০১৮ সালে রিলিজ হতে যাওয়া রেজারের নতুন সব প্রোডাক্টের তথ্য। এছাড়াও, এখন থেকে রেজারের সকল প্রোডাক্টেই পাবেন দুই বছরের ওয়ারেন্টি। আপনারা সবাই কি কিনতে আগ্রহী তা নীচের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে পারেন।