29.1 C
Dhaka
Tuesday, February 7, 2023

Best Free antiviruses:সেরা ফ্রি এন্টিভাইরাস ২০২০

- Advertisement -

উইন্ডোজ ডিফেন্ডার এসে অনেকেরই আলাদা এন্টিভাইরাস ব্যবহার করার দরকার হয়না। কিন্ত একটি অংশ আছেন এখনো যারা ওয়েব ব্রাউজিং এ ঝুকি নিতে ভালোবাসেন এবং উইন্ডোজ ডিফেন্ডারকে যথেষ্ট বিশ্বাস করতে পারেন না। তাদের জন্য সলুশন হতে পারে ফ্রি এন্টিভাইরাস। তবে অনেকেরই আছে আবার সন্দেহ ও সংশয় যে ফ্রি এন্টিভাইরাস কতটূক কার্যকরী, পেইড এন্টিভাইরাস এর মত সুরক্ষা দিতে পারে কি না। আজ তাই সংক্ষিপ্ত আলোচনা হবে কিছু ফ্রি এন্টিভাইরাস নিয়ে। আমরা এখানে ফিচারের থেকে ম্যালওয়্যার থেকে সুরক্ষাতেই বেশি জোর দিব।

রেফারেন্সঃ

রেফারেন্স হিসেবে গতানুগতিক গুগলের সাইটগুলোর লিস্ট ফলো না করে জনপ্রিয় সিকিউরিটিউব চ্যানেল The PC Security Channel বা TPSC এর কিছু Antivirus vs Malware/ransomware টেস্ট ফলো করেছি। নিচে সংক্ষিপ্ত বর্ণনা দেওয়া হলো TPSC এর টেস্ট পদ্ধতি এর যাতে আপনাদের একটি পরিষ্কার ধারনা থাকে।

- Advertisement -

TPSC ডিপ ওয়েব/ডার্ক ওয়েব থেকে নতুন আপডেটেড ম্যালওয়্যার/র‍্যানসামওয়্যার সংগ্রহ করে ও সেগুলোকে ভার্চুয়াল বক্সের উইন্ডোজে তার নিজস্ব Python Script (Malex) দিয়ে একই সাথে এক্সিকিউট করে ও সে সময় এন্টিভাইরাসটি সচল থাকে। তার সেই পাইথনের স্ক্রিপ্টে elapsed time, এন্টিভাইরাস কতৃক ভাইরাস ব্লক এর শতকরা পরিমাণ স্ক্রিনে থাকে এবং সবগুলো ফাইল এক্সিকিউট শেষে বিস্তারিত লগ ফাইলে দেখা যায় যে কোন কোন ফাইল এন্টিভাইরাসটি মিস করেছে।অর্থাৎ অর্থাৎ ভাইরাস স্ক্যান না করে রানিং প্রসেস ধরতে পারে কি না কোন এন্টিভাইরাস সেটি পরীক্ষা করা হয়। এবং টেস্ট শেষে সম্পুর্ণ অন্য একটি স্ক্যানার দিয়ে পুরা সিস্টেমটি স্ক্যান করে ফাইনালি চেক করা হয় যে সিস্টেমে কোন ক্ষতিকর কিছু আছে কি না।

 

Kaspersky Security cloud:সেরা?

- Advertisement -

 

TPSC এই এন্টিভাইরাসটিকে ২৩২৬টি ভাইরাস একত্রে Malex টুল দিয়ে এক্সিকিউট করে টেস্ট করে যেগুলো ছিল তার ব্যক্তিগতভাবে সংগ্রহ করা র‍্যান্ডম নতুন ম্যালওয়্যার/worm/ransomware/virus/PUP/ এবং অবিশ্বাস্য হলেও এতে ক্যাস্পারস্কি এর Pro Active Detection ছিল ১০০% । একটি ফ্রি এন্টিভাইরাস হিসেবে যা অনেক বড় একটি স্কোর। অর্থাৎ ২৩২৬টি ভাইরাস যখন সিস্টেমে একের পর এক চালু করা হয় (exe file) প্রতিটিকেই ব্লক করতে সক্ষম হয় Kaspersky । এবং যারা পিসি স্লো হয়ে যাওয়া/হ্যাং হওয়া ইত্যাদি সমস্যার কথা ভাবেন এন্টিভাইরাসের ক্ষেত্রে , তাদের জন্যও এটি উপযুক্ত কারণ ৭০-১৫০ মেগাবাইট র‍্যাম এর বেশি এটি ইউজ করেনি ভাইরাস ব্লক করার সময়েও। এবং সিপিইউ ইউসেজও ১০/১৫ পার্সেন্ট এর উর্ধ্বে যায়নি কখনো।

- Advertisement -

 

Bitdefender Antivirus Free Edition:ভাইরাস ব্লকিং এও সেরা, র‍্যামখেকো হিসেবেও সেরা?

TPSC এর ক্যাস্পারস্কি টেস্টটি একই সাথে বিটডিফেন্ডার এর বিপক্ষেও ছিল কারণ সেটি ছিল Bitdefender বনাম Kaspersky দুটি ফ্রি এন্টিভাইরাসের লড়াই এবং সে লড়াই এ একই সময়ে সেই একই 2326টি ম্যালওয়্যার অন্য একটি ভার্চুয়াল ম্যাশিনে টেস্ট করা হয় । free antivirus হিসেবে বিটডিফেন্ডার ক্যাস্পারস্কি এর মতই পারফর্ম করেছে । final Pro active Detection ছিল 99.83% অর্থাৎ মাত্র ৪টি ফাইল মিস করেছে।

 

যেহেতু TPSC দুটির তুলনামুলক টেস্ট করেছে সুতরাং আমাদেরও সেই তুলনায় যেতে হয় । পারফর্মেন্স এর হিসেবে র‍্যাম অনেক বেশি ব্যবহার করেছে বিটডিফেন্ডার। প্রায় ৫০০মেগাবাইট (অবশ্যই স্ক্যান না করলে সাধারণ সময়ে ১০০/১২০ এমবির বেশি কোন এন্টিভাইরাসই সাধারণত ব্যবহার করে না) তবে সিপিইউ ইউসেজ এর হিসেবে কিন্ত আবার ক্যাস্পারস্কি থেকে কম সিপিইউ ব্যবহার করেছে বিটডিফেন্ডার। মুলত বেশি র‍্যাম ব্যবহারের জন্যই প্রথম স্থানে রাখা গেলো না বিটডিফেন্ডারকে।

Avast Free Antivirus:পারফর্মেন্স ভালো কিন্ত???

 

এভাস্ট সম্ভবত তার পুর্বের বিভিন্ন ব্যর্থতার ইতিহাস কাটিয়ে উঠতে পেরেছে। ১৭১৩টি র‍্যানডম ম্যালওয়্যার/র‍্যানসামওয়্যার ও অন্যন্য বিভিন্ন ভ্যারিয়েন্ট এর ক্ষতিকর ফাইল দিয়ে রিয়েল টাইম এক্সিকিউশন টেস্টে ৯৯.৩৬% এর pro active detection এর মাধ্যমে প্রকৃতপক্ষে তাই প্রমাণ হয়। এবং আলাদাভাবে 56টি র‍্যানসামওয়্যার এর বিরুদ্ধে টেস্টেও ১০০% detection রেট অর্জন করে এটি। উল্লেখ্য যে এভাস্ট এর পেইড ও ফ্রি এন্টিভাইরাসের ইঞ্জিন একই সুতরাং সিকিউরিটিতে ঘাটতি নেই একেবারেই। র‍্যাম,সিপিইউ ইউসেজ ও অনেক কম । ১০০ মেগাবাইটের আশেপাশেই থাকে। সুতরাং সিস্টেমের স্পিড নিয়ে চিন্তা করতে হবে না।

 

সমস্যাসমুহঃ

এভাস্ট পদে পদে ইউজারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করে তাদের প্রিমিয়াম প্রোডাক্টটি কেনার জন্য ।  এবং তাদের অন্যন্য যেসব প্রোডাক্ট রয়েছে যেমন Avast driver updater,avast cleanup,vpn এগুলো কেনার জন্য বিভিন্নসময় বিভিন্ন Pop Up এর মাধ্যমে ইউজারকে প্ররোচিত করার চেষ্টা করে । এজন্য অনেকসময় তারা ভুল তথ্যও দিয়ে থাকে যাতে কাস্টমার বাধ্য হয় উক্ত প্রোডাক্টটি কিনতে যেমন তারা পিসি স্লো চলছে, ইন্টারনেটে আপনার এক্টিভিটি যে কেও দেখতে পাবে ইত্যাদি মেসেজ দিয়ে বিভ্রান্ত করে ও ভিপিএন,ক্লিনআপ ইত্যাদি কিনতে প্ররোচিত করে।

Avira Free Antivirus:সিম্পল ও গর্জিয়াস?

 

১৫৬২টি ম্যালওয়্যার দিয়ে রিয়েল টাইম টেস্টে 99.3% ডিটেকশন এর মাধ্যমে এই লিস্টে থাকার অন্যতম দাবিদার এভিরা এন্টিভাইরাস। সিকিউরিটির পাশাপাশি এটি রিসোর্স ও কম খরচ করে । মুলত র‍্যাম এর উপর একেবারেই নির্ভর না করে এভিরা কাজ করে সিপিইউ নিয়ে, টেস্ট চলাকালীন ২০/৩০% পর্যন্ত সিপিইউ ইউজ করতে দেখা গেছে একে কিন্ত র‍্যাম এর ইউসেজ মাত্র ১০০ মেগাবাইট এর আশেপাশেই ছিল।

 

 

Sophos: ক্লাউড ভিত্তিক এন্টিভাইরাস?

 

 

Sophos অন্যন্য এন্টিভাইরাস থেকে একটু আলাদা কারণ এটি ক্লাউড ভিত্তিক অর্থাৎ এটি ইন্টারনেট থেকে কাজ করে সেজন্য আপনার পিসিতে খুব বেশি প্রেশার পড়বে না ।এবং ক্লাউড ভিত্তিক হওয়ার কারণে এডভান্স সেটিংসগুলো ও আপনাকে ব্রাউজার থেকে করতে হবে।  যাই হোক, যদি প্রোটেকশনের কথা বলা যায় তাহলে ১৭৯৮টি বিভিন্ন ধরনের ম্যালওয়্যার ,র‍্যানসামওয়্যার এর রিয়েল টাইম টেস্ট একটি ফাইল বাদে সবগুলোকেই সফলভাবে ব্লক করতে সক্ষম হয়েছে Sophos।

 

শেষ কথাঃ

ব্যক্তিগতভাবে এভাস্ট এর এন্টিভাইরাস অনেক দিন যাবত আমি ব্যবহার করি এবং ভাইরাস এর পাশাপাশি ব্রাউজারেও ভালো প্রোটেকশন দিয়ে আসছে এটি। তবে ওভারল বিবেচনায় আমি এক নাম্বারে ক্যাসপারস্কি ও বিটডিফেন্ডারকেই রাখব। এভাস্টকে তার পরে এবং এভিরা ও sophos যথাক্রমে।

reference: The PC Security Channel

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here