25 C
Dhaka
Wednesday, February 8, 2023

Some exciting features of New Edge Browser

নতুন মাইক্রোসফট এজ ব্রাউজার আকর্ষনীয় সব ফিচার্স

- Advertisement -

ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার এর জন্য বছরের পর বছর ট্রলড হওয়ার পর মাইক্রোসফট তাদের Edge ব্রাউজার নিয়ে আসে। কিন্ত প্রকৃতপক্ষে সেরা ব্রাউজার হবার রেসে আদৌ এগিয়ে যেতে ব্যর্থ হয় তা। সম্প্রতি মাইক্রোসফট  Edge কে নতুন ভাবে ঢেলে সাজিয়ে Rollout করতে শুরু করেছে Microsoft Edge Chromium , এনেছে ব্যপক পরিবর্তন। দেখে নেওয়া যাক নতুন ক্রোমিয়াম বেজড Microsoft Edge এর উল্লেখযোগ্য কিছু ফিচার্স এবং পরিবর্তনসমুহ।

Speed:

এবার এজকে Chromium বেজড ব্রাউজার হিসেবে ডেভেলপ করা হয়েছে , পুর্বে মাইক্রোসফট এজ ছিল একটি edgehtml ভিত্তিক ব্রাউজার। এবার chromium ভিত্তিক হবার কারণে ব্রাউজিং এ ব্যপক fluency,responsiveness দেখতে পাবেন, অন্যন্য chromium ভিত্তিক ব্রাউজারগুলোর মতই স্পিড পাওয়া যাবে । লোডিং,স্লো হবার যে অভিযোগ গুলো ছিল এবার তার সুযোগ থাকছে না।

- Advertisement -

র‍্যাম ইউসেজ বেশ কম। ০ এক্সটেনশনের সাথে ৭টি ট্যাব (facebook new layout homepage,1080p video playback on youtube,instagram homepage, একটি মুভি ডাউনলোড সাইট, একটি মুভি স্ট্রিমিং সাইটে 720p stream, পিসি বিল্ডার বাংলাদেশ ওয়েবসাইটের হোমপেজ, google sheet এ একটি ব্যক্তিগত to do list এর পেজ) আলাদা আলাদা ভাবে কিছুক্ষণ ক্রোম,ফায়ারফক্স, এজ এ চালিয়ে দেখার পর দেখা গিয়েছে সবথেকে কম র‍্যাম Edge ই ব্যবহার করছিল। নিচের বেঞ্চমার্ক চার্ট থেকে দেখে নিন।

User Interface:

ব্রাউজারটি launch করেই সবথেকে বড় যে পরিবর্তন চোখে পড়বে সেটি হচ্ছে এর user interface ।ট্যাবস এর নিচে  বামদিকে উপরে দেখতে পাওয়া যাবে ছোট্ট weather icon সাথে থাকবে টেম্পারেচার। তার পাশে ছোট dots এ ক্লিক করলে  মাইক্রোসফট 365 এর বেশ কিছু এপ্লিকেশন, প্রোডাক্ট এর নাম এবং সাইটলিংক থাকবে যেখানে ক্লিক করলে ওই প্রোডাক্ট সমুহের web version এর পেজে যেতে পারবেন এবং সেগুলোকে ব্যবহার করতে পারবেন, যেমন words,excel,powerpoint,to do list,calender, onenote ইত্যাদি। একদম উপরে  Tabs বার এর নিচের বারের ডানদিকে এক্সটেনশন বার, তার পাশেই ফেভারিট,কালেকশন,ফিডব্যাক,একাউন্ট অপশন,এক্সটেনশনস এর বামদিকে address bar।তার নিচেই বুকমার্ক্স বার। মেইন স্ক্রিনের মাঝখানে বুকমার্ক্স বার থেকে সামান্য নিচে  রয়েছে সার্চবার। সার্চবার থেকে বেশ খানিকটা নিচে রয়েছে frequently visited tabs। (যা রিমুভ করা যাবে ,রিনেম করা যাবে) ।

Page customization:

- Advertisement -

উপরে একদম ডানে settings এর আইকনে ক্লিক করলে পেজ লেআউট চেঞ্জ এর অপশন পাবেন। ফোকাসড এ ব্যাকগ্রাউন্ডে কোনো ছবি থাকবে না, সার্চবার থাকবে একদম মাঝামাঝি এবং তার উপরে একটি মাইক্রোসফট এর বড়সড় লোগো দেখা যাবে। নিচের দিকে আগের মতই ইউজড ট্যাবস ।মাউস হুইল দিয়ে স্ক্রল করলেই my feed চলে আসবে অর্থাৎ মাইক্রোসফট নিউজ, technology,politics,international,sports, entertainment ইত্যাদি ক্যাটাগরির নানান খবর। personalize এ ক্লিক করে টপিক চেঞ্জ করতে পারবেন, সিলেক্ট করতে পারবেন (এই পেজটি কন্টনিউয়াস, যত স্ক্রল করবেন তত নিউজ আসতে থাকবে)

ইন্সপিরেশনাল এ সার্চবার টা একটু উপরের দিকে উঠে যাবে এবং ব্যাকগ্রাউন্ডে ওয়ালপেপার থাকবে (bing wallpapers) এখানেও স্ক্রল করলে ফিড আসবে।

informational এর ক্ষেত্রে নিউজ ফিড টা হাইড থাকবে না পুরাটা স্ক্রিন জুড়েই থাকবে।

- Advertisement -

custom অপশন থেকে এগুলো সংক্রান্ত বিভিন্ন পরিবর্তন করতে পারবেন ।

Dark Mode:

সাম্প্রতিক সময়ে সব এপ্লিকেশন, অপারেটিং সিস্টেমেই ডার্ক মোড এর ব্যপক ব্যবহার শুরু হয়েছে।। এর ধারাবাহিকতায় মাইক্রোসফট Edge এর নতুন ভার্সনে Dark Mode এড করা হয়েছে। সেটিংস এ appearance সেকশনে পেয়ে যাবেন।

সেটিংসঃ

সেটিংস মেনুতে ব্যপক পরিবর্তন আনা হয়েছে। সর্বপ্রথম যেটা চোখে পড়বে সেটা হচ্ছে সেটিংস পেজের ডানে বা বামে ছোট ড্রপ ডাউন/popup হিসেবে নয় বরং একটি ট্যাব হিসেবে ফুলস্ক্রিন আসবে। সেটিংসে প্রোফাইল, themes and appearance ,privacy-security, startup, permissions ইত্যাদি সহ বেশ অনেকগুলো সেকশন রয়েছে অর্থাৎ যেই বিষয়ের সেটিংস আপনি খুজছেন সেকশনে ক্লিক করলে সেই বিষয়ের সকল অপশন আলাদা ভাবে পাওয়া যাবে । বেশ ক্লিন এবং সিম্পল রাখা হয়েছে সেটিংস মেনুকে। এবারের এজে কাস্টমাইজ এর অপশন ও রয়েছে প্রচুর।

মাল্টিপল প্রোফাইলঃ

এখানে বিভিন্ন প্রোফাইল ক্রিয়েট করার সুবিধা দেওয়া হয়েছে, অর্থাৎ একটি প্রোফাইলে ইচ্ছামত সাইট বুকমার্ক,ফেভারিট,কালেকশন,বিভিন্ন সাইট লগিন,পাসওয়ার্ড, এক্সটেনশন,ওয়ালপেপার ,সিকিউরিটি সহ অন্যন্য কাস্টমাইজেশন ও ব্রাউজারের সেটিংস সেভ করা যাবে, ওই প্রোফাইলের বাইরে অন্য প্রোফাইলে উক্ত সেটিংস গুলো কাজ করবে না, ইউটিউব বা অন্যন্য সাইটের লগিন থাকবে না, বুকমার্ক থাকবে না, এক্সটেনশন ও অন্যন্য কাস্টম সেটিংস থাকবে না , এভাবে নিজের প্রয়োজন অনুসারে বিভিন্ন প্রোফাইল করে রাখা যাবে এবং প্রয়োজন মত সুইচ করে ব্যবহার করা যাবে।

উদাহরণ স্বরুপ একটি প্রোফাইল আপনি তৈরী করলেন যেটিতে কিছু ডাউনলোডার এক্সটেনশন ইন্সটল করা আছে, কিছু মুভি স্ট্রিমিং সাইট বুকমার্ক করা আছে , ইউটিউবে লগিন করা আছে, ফেসবুকে লগিন করা আছে, ডার্ক মোড ইন্সটল করা আছে, একটি এডব্লক ইন্সটল করা আছে। এটি আপনি শুধু মুভি দেখার সময় সুইচ করতে পারবেন ইচ্ছা করলেই , এর থেকে সাইন আউট করলে অন্য প্রোফাইলে এর ফিচার গুলো শো করবে না।

আবার কাজের জন্য আপনি একটি প্রোফাইলে  আপনার অফিসের সাইট, লেখালেখির কিছু এক্সটেনশন, একটি তুলনামুলক সিম্পল UI কাস্টমাইজ করলেন সেটি আপনি কাজের সময় ব্যবহার করতে পারবেন চাইলেই।

আবার ওভারল ব্রাউজিং এর জন্য একটি মেইন প্রোফাইল ও তৈরী করা যেতে পারে।

Immersive reader:

যারা আর্টিকেল ,খবর ,রিসার্চ পড়তে ভালোবাসেন বা তাদের জন্য এই অপশনটি বেশ কার্যকর হতে পারে।। পেজের অন্যন্য ads,overlay, links ,সাইডবারের ছবি ইত্যাদি সহ distracting যা যা আছে তা এই অপশন চালু করলে পেজ থেকে চলে যাবে এবং শুধুই মেইন আর্টিকেল এর অংশটি থাকবে । এখানে বিভিন্ন ভয়েস সিলেক্ট করে read ও করা যাবে, স্পিড বাড়ানো যাবে। অর্থাৎ পেজের ঠিক পাঠকের প্রয়োজনীয় অংশটিই যদি পাঠক রাখতে চায় পেজে তাহলে এই অপশনটি ব্যবহার করা যেতে পারে।

Progressive Web Apps(PWA):

একটি পেজকে ব্রাউজারের অংশ হিসেবে নয় বরং একটি আলাদা এপ্লিকেশন এর মত চালাতে পারবেন এই অপশন এর দ্বারা। রাইট সাইডের মেনুতে apps এ ক্লিক করলে install this site as an app অপশন পাওয়া যাবে  সেখানে ক্লিক করলেই স্টার্ট মেনুতে আলাদাভাবে নাম দেখতে পারবেন সাইটটির। এবং সেখান থেকে তখন চালু করলে ব্রাউজারের থেকে নয় ,আলাদা উইন্ডো ,অনেকটা এপ্লিকেশন এর মত চালু হবে পেজটি। ডেস্কটপ শর্টকার্ট ও এড করতে পারবেন বা টাস্কবারেও এড করা যাবে। এতদিন যারা বিভিন্ন সাইটের এপ্লিকেশন ভার্সন এর অভাব বোধ করছিলেন উইন্ডোজ ১০ এ তাদের কিছুটা হলেও এর মাধ্যমে সেটি পুরণ হবে। কাস্ট মিডিয়া অপশন ও রয়েছে যার মাধ্যমে অন্যন্য কানেক্টেড ডিভাইসেও চালু করা যাবে।

Extensions from other stores:

জ্বি হ্যা, এতদিন যারা মাইক্রোসফট এজ এর বিভিন্ন ধরনের এক্সটেনশন ঘাটতি, এক্সটেনশন না থাকা ইত্যাদি সমস্যার কারণে চালাতেন না বা পছন্দ করতেন না তাদের জন্য সুখবর, যেহেতু এটি একটা chromium বেজড ব্রাউজার, গুগল ক্রোমের অধিকাংশ এক্সটেনশনই কোনো সমস্যা ছাড়াই চলবে এখানে। install extension from other stores অপশন ইনেবল করে দিলে আপনি chrome web store এর এক্সটেনশন ও এক ক্লিকেই ইন্সটল করে নিতে পারবেন।। একটি বড় অংকের ইউজারদের জন্য এই ফিচারটা অনেক গুরুত্বপুর্ণ ।

Security:

একদিকে বিভিন্ন এডব্লকার্স, ভিপিএন সহজেই ইন্সটল করতে পারবেন ক্রোম স্টোর এর বিশাল কালেকশন হতে কারন ক্রোমিয়াম ব্রাউজার হওয়ার কারণে ওইসকল এক্সটেনশন সহজেই চলবে। অন্যদিকে এজ বিল্ট ইন ট্রাকার প্রিভেনশন এর মাধ্যমেও প্রাইভেসি রক্ষায় সাহায্য করবে। ৩টি অপশন রয়েছে basic, balanced,strict। বেসিকে সব ট্রাকার এলাও হবে,এবং ক্ষতিকর ট্রাকার ব্লক হবে।  ব্যালান্সের ক্ষেত্রে যে সকল সাইট ভিজিট করবে না ইউজার সেগুলোর ট্রাকার ব্লক হবে সাথে ক্ষতিকর ট্রাকার ব্লক হবে।  আর স্ট্রিক্ট এর ক্ষেত্রে সকল প্রকার ট্রাকার ব্লক হবে এই ক্ষেত্রে সাইট এর কিছু অংশ অনেকসময় ঠিকমত কাজ নাও করতে পারে।

মাইক্রোসফট ডিফেন্ডার রয়েছে যা অনেকটা Internet security এর মত কাজ করবে অন্যন্য 3rd party এন্টিভাইরাস কোম্পানির Internet security এর মত। ক্ষতিকর/সন্দেহজনক এপ্লিকেশন/প্রোগ্রাম ডাউনলোড ব্লক করার অপশন রয়েছে।

Collections

এই অপশনের মাধ্যমে বিভিন্ন পেজের বিভিন্ন লিংক, ছবি ,মিডিয়া আলাদা করে সংরক্ষণ/সেভ করে রাখা যায় টপিক অনুসারে। সেগুলো পরবর্তীতে দেখা যায়, বিভিন্ন এপ্লিকেশনে ওপেন/এডিট (যেমন অফিস,এক্সেল) ,ইমেইল,শেয়ার,কপি, ইত্যাদি সহজেই করা যায় ।

Picture in picture mode and Phones

পিকচার ইন পিকচার মোড অনেক ব্রাউজারেই ছিল আগে থেকে।। এবার মাইক্রোসফট এজেও ভিডিও প্লেব্যাকে এই অপশন রয়েছে, cast to device অপশন ও থাকছে।।

নিজের ফোন/ট্যাবলেট ও কানেক্ট করা যাবে ব্রাউজারে ,ব্রাউজারের এজ এপ্লিকেশনের সাথে বুকমার্ক,ট্যাব ইত্যাদি sync করা যাবে লগিন করে।

 

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here