এএমডি রাইজেন তৃতীয় জেনারেশন

আগামি মে মাসের ২৭ তারিখ কম্পিউটেক্সের লঞ্চ সেশনে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে AMD এর কি নোট সেশন যেখানে বক্তব্য রাখবেন কোম্পানির প্রেসিডেন্ট এবং সিইও লিসা সু। সেই সেশনে এ এম ডি কম্পিউটিং প্রযুক্তির বিভিন্ন খাত নিয়ে আলোচনা করলেও কনফার্ম হওয়া গিয়েছে এই সেশনেই লঞ্চ অথবা অফিসিয়াল এনাউন্স করা হবে থার্ড জেন রাইজেন এবং নেক্সট জেনারেশন নাভি জিপিউ। ইতিমধ্যে থার্ড জেন রাইজেন নিয়ে অনেক নিশ্চিত তথ্য এবং বহু গুজব বের হয়েছে। সেই সকল গুজব এবং তথ্য হতে বেশ কিছু জিনিস যাচাই করে আজ দেয়া হচ্ছে থার্ড জেনারেশন রাইজেন নিয়ে একেবারে ১০০% নিশ্চিত হওয়া কিছু তথ্য।

৭ ন্যানোমিটার আর্কিটেকচার

প্রথম বারের মত কোন কম্পিউটার সিপিউতে আমরা দেখতে যাচ্ছি ৭ ন্যানোমিটার টেকনোলজি যা এই পর্যন্ত আর কোথাও ব্যবহার করা হয় নি। এই ৭ ন্যানোমিটার টেকনোলজি আপনাকে নিশ্চিত করবে বেটার এনার্জি এফিসিয়েন্সি এবং দেবে অনেকটাই ভালো পারফর্মেন্স। এছাড়া, এই টেকনোলজির আরো কি কি সুবিধা পাওয়া যাবে তা নিয়ে নীচের অংশে আলোচনা করা হবে।

দিগুণ কোর/থ্রেড কাউন্ট

৭ ন্যানোমিটার টেকনোলজি ব্যবহার করার একটি বড় সুবিধা হচ্ছে কোন প্রকার থার্মাল পারফর্মেন্স কম্প্রোমাইজ করা ছাড়াই সিপিউর মধ্যে দিগুণ কোর/থ্রেড কাউন্ট দেয়া যাবে। অর্থাৎ থার্ড জেন রাইজেন প্রসেসরে আগের জেনারেশনের তুলনায় অধিক সংখ্যক কোর এবং থ্রেড আমরা দেখতে যাচ্ছি। সেকেন্ড জেনারেশনের টপ রাইজেন প্রসেসরে আট কোর দেখা গেলেও থার্ড জেন রাইজেন প্রসেসরে আমরা ১৬ কোর ও ৩২ থ্রেড পর্যন্ত দেখতে পারি যা অনেকটাই বেশি উন্নতি।

পারফর্মেন্স উন্নতি

প্রথম এবং সেকেন্ড জেনারেশনের রাইজেন প্রসেসর নিয়ে বেশিরভাগ ইউজারের যে আশাহত অবস্থা ছিল তা হচ্ছে সিপিউর স্পীড। রাইজেন সিরিজের প্রসেসরকে সকল করে ৪.০ গিগাহার্টজ স্পীডে স্টেবল রাখা অনেকতাই কঠিন ছিল। আর এটির জন্য মাদারবোর্ড থেকে প্রয়োজন হত বেশ ভালো রকমের ভোল্টেজ। তবে বেশ কিছু লিক থেকে জানা গিয়েছে কম ভোল্টেজেই বুস্ট ক্লক স্পীড ৪.৫ গিগাহার্টজ পর্যন্ত যাবে এবং হয়তবা ৫.০ গিগাহার্টজ স্পীড পর্যন্তও ওভারক্লক করা যেতে পারে।

আরো একটি দিকে ইন্টেল থেকে রাইজেন পিছিয়ে ছিল সেটি হচ্ছে জিপিউ ইউটিলাইজেশন। বিভিন্ন গেমে দেখা গিয়েছে ইন্টেল সিপিউ ৯০% থেকে ৯৫% জিপিউ ইউটিলাইজ করতে পারলেও রাইজেন প্রসেসর মাত্র ৬৫% থেকে ৮০% ইউটিলাইজ করতে সক্ষম হয়েছে। এতে করে ইডিটিং বা রেন্ডারিঙ্গে কোন সমস্যা না হলেও গেমিং পারফর্মেন্সে রাইজেন ইন্টেল কাউন্টারপার্ট থেকে অনেকখানিই পিছিয়ে আছে। তবে কনফার্ম হওয়া গিয়েছে থার্ড জেন রাইজেন সিপিউগুলোতে জিপিউ ইউটিলাইজেশনের সমস্যাটি বিদ্যমান থাকবে না।

নতুন X570 মাদারবোর্ড

নতুন জেনারেশনের সিপিউ রিলিজের পাশাপাশি চিরচায়িত প্রথা বজায় রেখে আমরা দেখতে যাচ্ছি নেক্সট জেনারেশন X570 মাদারবোর্ড রিলিজ। তবে, বিশ্বস্ত সূত্রমতে X570 প্ল্যাটফর্মই হতে যাচ্ছে প্রথম মাদারবোর্ড সিরিজ যা অফার করবে PCIe 4.0 লেইন। এখন এই লেইন বর্তমান জেনারেশনের জিপিউ ইউটিলাইজ করতে না পারলেও আগামি জেনারেশনের জিপিউ এবং গুজবমতে এ এম ডির নেক্সট জেন নাভি জিপিউ এই লেইনের সম্পূর্ণ ইউটিলাইজ করতে পারবে। তবে আপাতত এটি ইউটিলাইজেশন হবে সম্পূর্ণ স্টোরেজ এবং অন্যান্য এক্সেসরিজের ক্ষেত্রে।

ইতিমধ্যে আসুস পিসি বিল্ডার বাংলাদেশকে তাদের নেক্সট জেনারেশন মাদারবোর্ড রিলিজের কনফার্মেশন দিয়েছে। এছাড়াও, কিছুদিন আগেই ASRock এবং Biostar তাদের নতুন X570 মাদারবোর্ডের টিজার প্রদান করে।

আসুসের নেক্সট জেন রাইজেন X570 মাদারবোর্ড সিরিজ

আগের জেনারেশন মাদারবোর্ড সাপোর্ট

নতুন X570 মাদারবোর্ড বের হলেও এ এম ডি প্রথম জেনারেশন রাইজেন লঞ্চ হবার সময়ই বলেছিল যে, প্রথম এবং দ্বিতীয় জেনারেশনের মাদারবোর্ড দিয়ে ২০২০ সাল পর্যন্ত রিলিজ হওয়া সকল সিপিউ চালানো যাবে। অর্থাৎ আপনার যদি B350, B450, X370 এবং X470 মাদারবোর্ড থেকে থাকে কিন্তু রাইজেন থার্ড জেনের জন্য আলাদা করে নতুন মাদারবোর্ড কিনতে ইচ্ছুক নন, তাদের জন্য সুখবর হচ্ছে সামান্য একটি বায়োস আপডেটের মাধ্যমে আপনার মাদারবোর্ডটি হয়ে যাবে থার্ড জেন রেডি।

আগের জেনারেশনের সমতুল্য প্রাইস রেঞ্জ

থার্ড জেনারেশন রাইজেন প্রসেসরে আগের জেনারেশনের তুলনায় অনেক বাড়তি সুবিধা পাওয়া গেলেও এ এম ডি নিশ্চিত করেছে দাম ক্রেতাদের হাতের নাগালের মধ্যেই থাকবে। রাইজেন তিন সিরিজের প্রসেসর শুরু হবে ১০ হাজার টাকা থেকে এবং রাইজেন ৯ এ গিয়ে তা দাঁড়াবে ৫০ হাজারের আশে পাশে। একেবারে বাজেট পিসি ক্রেতা থেকে শুরু করে মেইনস্ট্রিম এন্থুজিয়াস্ট সকলের জন্যই প্রাইস রেঞ্জ রাখা হয়েছে। ইতিমধ্যে, দাম কেমন হতে পারে তা নিয়ে বেশ কিছু আর্টিকেল পাবলিশ করা হয়েছে।

রাইজেন প্রসেসর প্রাইস লিক সংবাদ

থার্ড জেন রাইজেন নিয়ে আমাদের যা আশা

থার্ড জেনারেশন রাইজেন নিয়ে প্রায় ছয় মাস যাবৎই অনেক হাইপ এবং উত্তেজনা কম্পিউটার এন্থুজিয়াস্ট, পিসি ক্রেতা এবং আপগ্রেডইচ্ছুক মানুষের মধ্যে বিরাজ করছে। বিশেষ করে যারা পুরাতন জেনারেশনের ইন্টেল এবং এ এম ডি পিসির মালিক আছেন তারা থার্ড জেন রাইজনের লঞ্চের দিকে তাকিয়ে আছে (যাদের মধ্যে আমিও অন্তর্ভুক্ত)। পারফর্মেন্স এর দিক দিয়ে একদমই বেশি উন্নতি না দেখা গেলেও একই দামের রেঞ্জে ডাবল কোর/থ্রেড কাউন্ট থার্ড জেন রাইজেন প্রসেসরকে সকল পিসি ক্রেতাদের জন্য মাস্ট বাই অপশন করে তুলতে পারে। AMD এর কম্পিউটেক্স কিনোট সেশনের কভারেজ আশা করা যাচ্ছে ইউটিউব চ্যানেল এবং ওয়েবসাইটে দেয়া হবে।