ঘোষণা হল এনভিডিয়ার সবচেয়ে শক্তিশালী গ্রাফিক্স কার্ড টাইটান ভি(Titan V) এর। গতকাল যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় অনুষ্ঠিত এনআইপিএস কনফারেন্সে এনভিডিয়ার সিইও ও ফাউন্ডার জেন্সেন হুয়াং অফিসিয়ালি নেক্সট জেনারেশন আর্কিটেকচার ‘ভোল্টা’ দ্বারা নির্মিত এই শক্তিশালী গ্রাফিক্স কার্ডের উদ্ভোধন ঘোষণা করেন। তবে এই জিপিইউ থেকে গেমিং ট্যাগটি পুরোপুরি উঠিয়ে ফেলা হয়েছে। এর মার্কেট থাকবে প্রধানত বৈজ্ঞানিক ও রিসারচারদের দিকে। জেন্সেন হুয়াং এর ভাষ্যমতে এই গ্রাফিক্স কার্ড এর প্রধান ব্যাবহার হবে কম্পিইউশনাল প্রসেসিং, মেশিন লার্নিং, ডিপ লার্নিং আর সায়েন্টিফিক সিমুলেশনের জন্য। এর মধ্যে রয়েছে ২১.১ বিলিওন ট্রান্সিস্টর যা ১১০ টেরাফ্লপ পাওয়ার সরবরাহ করবে। এই পাওয়ার ডেলিভারি আগের জেনারেশনের প্রফেশনাল ফ্লেগশিপ গ্রাফিক্স কার্ড হতে প্রায় ৯ গুণ বেশি। অর্থাৎ আপনি এই জিপিইউ থেকে সুপারকম্পিউটারের ক্ষমতা হাতের নাগালেই পাচ্ছেন।

Check Titan V on nVidia website.

Nvidia CEO Jen-Hsun Huang with the new Titan V GPU

এবার আসা যাক টাইটান ভি এর গঠনের দিকে।

পিসিবি (PCB):

এর প্রিন্টেড সার্কিট বোর্ড বা পিসিবি হবে রেফারেন্স ডিজাইনের। অর্থাৎ এনভিডিয়ার নিজস্ব কারখানায়  তৈরি হবে এটি। এর কোন বোর্ড পার্টনার থাকবে না।

কুলার ডিজাইন:

অন্যান্য রেফারেন্স এনভিডিয়া গ্রাফিক্স কার্ডের মত এই কার্ডেও তারা রেখেছে রেফারেন্স ব্লোয়ার স্টাইল কুলার যা কেসিঙের ভেতর থেকে বাতাস টেনে পিছন দিক থেকে বের করে দেয়।

প্রসেসর টাইপ (Processor):

এতে ব্যাবহার করা হয়েছে ১২ ন্যানোমিটার ফিন ফেট প্রসেসর।

কোর সংখ্যা (Number of cores):

এটির মধ্যে আছে ৫১২০ কুডা কোর এবং আলাদা ৬৪০ টেনসর কোর।

Volta – Acclaimed Most Advanced GPU Architecture

পাওয়ার (Power):

এতে থাকবে মাত্র ১ টি ৮ পিনের ও ১ টি ৬ পিনের কানেক্টর যা পাওয়ার টানবে মাত্র সর্বচ্চো ২৫০ ওয়াট। যদি কার্ডটির মূল কার্যক্ষমতা বিবেচনা করা হয়ে তাহলে ২৫০ ওয়াট পাওয়ার ড্র করা অনেক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী।

মেমোরি (Memory):

প্রথমবারের মত কোন এনভিডিয়ার গ্রাফিক্স কার্ডে ব্যাবহার করা হবে এইচবিএম ২ মেমরি। এই হাই স্পীড মেমরির ব্যাবহার আমরা কেবল এ এম ডি এর ভেগা সিরিজের কার্ডে ব্যাবহার হতে দেখেছি। এর মোট মেমরি হবে ১২ জিবি এইচ বি এম ২ মেমরি যা চলবে ১.৭ জিবিপিএস স্পিডে। এছাড়া এর মেমোরি বাস হচ্ছে ৩০৭২ বিটের।

জিপিউ আর্কিটেকচার (GPU Architecture):

টাইটান ভি তে ব্যাবহার করা হয়েছে GV100 জিপিইউ আর্কিটেকচার যা GP অর্থাৎ প্যাসকেল সিরিজের গ্রাফিক্স কার্ড হতে অনেক শক্তিশালী। More on Volta architecture

GPU-ACCELERATED INNOVATION

মেমোরি ব্যান্ডউইথ (Memory Bandwidth):

এর মেমোরি ব্যান্ডউইথ হচ্ছে ৬৫৩ জিবিপিএস

স্পীড (Speed):

এর কোর ক্লক স্পীড হচ্ছে ১২০০ মেগাহার্টজ যা বুস্ট হবে ১৪৫৫ মেগাহার্টজ পর্যন্ত।

Specs Titan V
Titan V Specifications

টাইটান ভি এর মুল্য (Titan V GPU Price in Bangladesh)

বরাবরের মতি এই গ্রাফিক্স কার্ডটিও বাংলাদেশে পাওয়া যাচ্ছে না এবং সামনে আসার সম্ভাবনাও নেই বললেই চলে, যদিনা ব্যাক্তিগত ব্যাবহারের জন্য কেউ দেশের বাইরে থেকে সংগ্রহ করে। ভোল্টা সিরিজের(Volta Series) এই গ্রাফিক্স কার্ড ‘টাইটান ভি (Titan V)’ পাওয়া যাবে আজ থেকে কেবলমাত্র এনভিডিয়ার ওয়েবসাইট হতে আমেরিকা, যুক্তরাজ্য, চায়না সহ ওয়েবসাইটে থাকা কিছু সিলেক্টেড দেশে। এর আন্তর্জাতিক দাম করা হয়েছে ৩ হাজার ইউএস ডলার বা প্রায় আড়াই লক্ষ টাকা।

এছাড়াও এই সম্মেলনে এর থেকে আরো শক্তিশালী টেসলা ভি ১০০ এর এনাউন্সমেন্ট দেয়া হয় যার আন্তরজাতিক দাম প্রায় ১০ হাজার ডলার বা প্রায় আট লক্ষ টাকা।