cleaning the monitor from dust and dirt; Shutterstock ID 383801818; Purchase Order: -

আসসালামু আলাইকুম,
আশাকরি আল্লাহর রহমতে সবাই ভাল আছেন,

ডেস্কটপ, ল্যাপটপ, ট্যাব ও মোবাইল এ গুলা বর্তমান পরিস্থিতিতে আমাদের খুবিই দরকারি ডিভাইস। যখন কোন ডিভাইস থেকে উপকার পাওয়া যায় এবং নিয়মিত ব্যবহার করা হয় তখন স্বাভাবিক ভাবেই সে গুলোকে যত্ন করতে ইচ্ছা করে, তবে যত্নের মাত্রা ও প্রকৃতি যদি ঠিক না হয় তখন সমস্যা দেখা দেই। গত ৫-৬ মাসে একটি বিষয় খেয়াল করার যাচ্ছে , সেটি হলো মনিটর ও ল্যাপটপের ডিসপ্লে পরিষ্কার করতে গিয়ে অনেকেই এর ১২ টা বাজিয়ে ফেলছেন। যেহেতু করোনা পরিস্থিতিতে এগুলো ছাড়া চলা বেশ কঠিন তাই এগুলোর ব্যবহার ও যত্ন ২টিই বেড়ে গেছে। তাই ডিসপ্লে রক্ষনাবেক্ষণ নিয়ে আজ কথা বলা হবে।

প্রাকৃতিক যে সকল কারণে ক্ষতি হতে পারে . . .

বাতাস ও পানিঃ আমরা অনেকেই জানালার পাশে মনিটর রেখে কাজ করে বর্ষাকালে হটাৎ হটাৎ বাতাস ও বৃষ্টি হয়ে, ফলে বাতাসে পড়ে গিয়ে অনেকের মনিটর ভেঙ্গে যাওয়ার ঘটনা ঘটি। আবার বৃষ্টির পানিতে  ভিজে ও নষ্ট হয়। তাই একটু নিরাপদ স্থানে পিসি রাখা এবং ঝড়ের সময় একটু সবধানে থাকা ভাল।

বজ্রপাতঃ এর ফলে টিভি, মনিটর খুব সহজেই নষ্ট হয়ে যায়। বজ্রপাত কখন বা কোথায় ঘটবে তা জানা সম্ভব নয় তাই মেঘ বৃষ্টির সময় বিদুৎ, ডিস ও নেট লাইন খুলে রাখাই ভাল ।

ধুলা ময়লাঃ
ইলেকট্রনিক্স যন্ত্রপাতির জন্য ধুলা ময়লা খুবই খারপ। ধুলার কারণে অতিরিক্ত গরম হয় এবং কার্য ক্ষমতা ও কমতে থাকে, তাই সঠিক ভাবে নিয়মিত যন্ত্রপাতি পরিষ্কার করা উঠিত।

এবার ব্যবহারকারির ভুলের জন্য সে ক্ষতি হয় ….

মূলত ডিসপ্লে পরিষ্কার করতে গিয়েই অনেকে এর ক্ষতি করে ফেলে, এর প্রধান কারণ হচ্ছে কি দিয়ে কিভাবে পরিষ্কার করতে হবে তা না জানা। বর্তমান করোনার কারণে অনেকের হাতের কাছে অ্যালকোহল, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হেক্সিসল থাকে ফলে যারা কখনই ডিসপ্লে পরিষ্কার করে না তারা ও ডিসপ্লে পরিষ্কার করতে যায় ফলে যা হবার তাই ই হয় ডিসপ্লে ঘোলা বা নষ্ট হয়ে যায়। কারণ এ সকল লিকুইড প্লাষ্টিক এর জন্য খারাপ এবং খুব পাতলা হওয়াতে গভিরে চলে গিয়ে ক্ষতি করে ফেলে।

অল্প মাত্রার লিকুইড, পরিষ্কার পানি, পাতলা কাপড়, microfiber cloth, lcd cleaner kit . ব্যবহার করতে হবে মনিটর পরিষ্কার করতে ।

ধাপ ১: প্রথমেই ডিসপ্লে টি কে ভাল করে পর্যবেক্ষন করতে হবে কোথায় কোথায় কি ধরনের ময়লা জমেছে। টর্চ লাইট ব্যবহার করে সহজেই ময়লা সনাক্ত করা যায়। প্রয়োজনে ডিসপ্লে টি কে বিছানায় কাত করে রেখে কাজ করা যেতে পারে এতে কাজে সুবিধা ও অতিরিক্ত চাপ লাগা থেকে রক্ষা করা সম্ভব।

ধাপ ২: lcd cleaner kit যদি থেকে থাকে তবে তাতে থাকা ব্রাশ দিয়ে ধুলা পরিষ্কার করতে হবে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে ডিসপ্লেতে কম গভির ময়লা জমে সে ক্ষেত্রে সামান্য পরিষ্কার পানি পাতলা কাপড়ে বা microfiber cloth এ নিয়ে আস্তে আস্তে গোল গোল করে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে পরিষ্কার করতে হবে। ভুলেও ও কোন ধরণের লিকুইড ডিসপ্লেতে স্প্রে করবেন না, তাহলে তা ডিসপ্লের কোণা দিয়ে ডুকে ডিসপ্লে কে খারাপ করে দেবে। যদি শুধু পানিতে ময়লা না উঠতে চাই তাহলে গ্লাস ক্লিনার পানির সাথে মিশিয়ে কাপড়ে নিয়ে আস্তে আস্তে পরিষ্কার করতে হবে, কাপড়ের স্থান পরিবর্তন করে করে পরিষ্কার করতে হবে। মনে রাখতে হবে ডিসপ্লেতে চাপ দেওয়া যাবে না আস্তে আস্তে ১ ২ বার চেষ্টা করলেই দাগ উঠে যাবে।

ধাপ ৩: দাগ উঠে গেলে কিছুটা টা সময় দিতে হবে লিকুইড শুকাতে ফ্যান, রোদ বা গরম বাতাস দেবার কোন দরকার নেই। সাধারণ তাপমাত্রই অল্প সময়ে লিকুইড শুকিয়ে যাবে। লিকুইড শুকিয়ে যাবার কিছু সময় পর সাধারণ ভাবে ব্যবহার করা যাবে।

ডিসপ্লে খুব বেশি ময়লা হবার আগেই পরিকষ্কার করার চেষ্টা করবেন, এতে ময়লা তুলতে সহজ হবে । অনেক সময় কোন একটি অংশে ময়লা জমতে পারে পারে তখন শুধু ঐ অংশে টুকু পরিষ্কার করলে যথেষ্ট ডিসপ্লে যত চাপ কম দেওয়া যায় ও লিকুইড ব্যবহার করা যায় ততোই ভাল।