বাংলাদেশে অফিসিয়ালি লঞ্চ করা হল আসুসের স্টাইলিশ এবং স্লিক নোটবুক সিরিজ ASUS Vivobook 14/15 এর মডেলগুলো। গতকাল রাতে চট্টগ্রামের The Grand Mughal রেস্টুরেন্টে এই অফিসিয়াল লঞ্চ ইভেন্টের আয়োজন করে আসুস বাংলাদেশ। এই অফিসিয়াল লঞ্চ ইভেন্টে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির গণ্য মান্য ব্যাক্তি বর্গ বিশিষ্ট এবং চট্টগ্রামের কম্পিউটার রিটেইল দোকানের মালিক এবং কর্মকর্তা কর্মচারীদের একাংশ।

আসুস বাংলাদেশ আয়োজিত এই অফিসিয়াল লঞ্চ ইভেন্টে উপস্থিত ছিলেন আসুসের বাংলাদেশ ও নেপালের কান্ট্রি প্রোডাক্ট ম্যানেজার জনাব আশিকুজ্জামান বাপ্পি। তিনি আসুসের লেটেস্ট ভিভোবুক সিরিজ নিয়ে চমৎকার প্রেজেন্টেশন প্রদান করেন। প্রেজেন্টেশনে দেখান হয় আসুসের ভিভোবুকের বেশ কিছু ইউনিক ফিচার। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশে আপকামিং বেশ কিছু প্রফেশনাল এবং গেমিং ল্যাপটপ নিয়েও সকলের সাথে আলোচনা করেন। আলোচনা শেষে সকলের জন্য ল্যাপটপগুলো পরখ করে দেবার সুযোগ করে দেয়া হয়।

ভিভোবুকের টার্গেট অডিয়েন্স নিয়ে আশিকুজ্জামান বাপ্পিকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন আসুসের এই সিরিজের মেইন টার্গেট অডিয়েন্স হচ্ছে ইয়াং জেনারেশন। বিশেষ করে স্টুডেন্ট ও আর্লি প্রফেশনাল যারা নিজেদের সাথে একটি স্টাইলিশ কিন্তু নো কম্প্রোমাইজ নোটবুক রাখতে চান। আসুস তাদের কথা চিন্তা করেই ভিভোবুকের এই স্পেশাল ডিজাইন করে আসছে। আর আসুস বাংলাদেশও চেস্টা করবে সকল মডেলের দাম যেন সকলের সাধ্যের মধ্যেই রাখা হয়।

আসুসের ভিভোবুক সবসময়ই স্টাইল এবং আউটলুককে প্রাধান্য দিয়ে আসলেও স্পেসিফিকেশনের দিক থেকে কখনোই তেমন কম্প্রোমাইজ করে না। আসুসের Vivobook 14/15 এর স্পেসিফিকেশন শুরু হবে Intel Core i3 8th gen সিপিউ, ৪ জিবি র‍্যাম এবং এক টেরাবাইট হার্ডড্রাইভ থেকে i7 8th gen সিপিউ, ৮ জিবি র‍্যাম, ৫১২ জিবি NVMe এসএসডি এবং এনভিডিয়ার লেটেস্ট MX250 জিপিউ পর্যন্ত। এই জেনারেশনের ভিভোবুকের দাম শুরু হবে ৪০ হাজার টাকা থেকে যা হাই এন্ড প্রিমিয়াম মডেলে যাবে ৮৬ হাজার টাকা পর্যন্ত। এছাড়াও প্রথমবারের মত কোন ল্যাপটপে এই বছর থেকে আসুস দিতে যাচ্ছে তিন বছরের নিশ্চিত ইন্টারন্যশনাল ওয়ারেন্টি যা অন্য কোন কোম্পানির ল্যাপটপে নেই।