30 C
Dhaka
Monday, July 4, 2022

iTop Data Recovery বাংলা Review

- Advertisement -

ইচ্ছা করে বা ভুল বশত কোনো গুরুত্বপুর্ণ ডাটা অনেকসময়ই আমাদের পিসি থেকে ডিলিট হয়ে যায়, পরবর্তীতে সেই ডাটার প্রয়োজন হলে বেশ বিপদে পরতে হয় কারণ recycle bin থেকে ডিলিট করলে সেই ডাটা আর সাথে সাথে রিকভার করা যায় না। তবে অনেক বছর ধরেই অনেক ধরনের Data Recovery Software রয়েছে। আজকে আমরা রিভিউ করবো iTop Data Recovery Software এর । টেস্ট করে দেখার চেষ্টা করবো যে প্রকৃতপক্ষে এই ডাটা রিকভারি সফটওয়্যারটি কতটুকু কার্যকরী।

Downloading iTop Data Recovery software for PC

এই Link থেকে iTop Data Recovery সফটওয়্যারটি download করে নিতে পারবেন। এরপর ডাউনলোড করা ফাইলটি চালু করে খুবই সহজে ইন্সটল করে নেওয়া যাবে।

User Interface,features of Itop Data Recovery

- Advertisement -

সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে দেখার আগে এর ইউজার ইন্টারফেস,Look নিয়ে একটু কথা বলা যাক। iTop Data Recovery সফটওয়্যারটির User interface আমার কাছে অনেক Clean ও সাদামাটা মনে হয়েছে।

প্রথমত এখানে অপশনগুলো জটিল আকারে উপস্থাপন করা হয়নি, চালু করা মাত্রই বড় করে scan option চোখে পরে যা আমরা iTop VPN এও দেখেছি। blue color এর theme এ বিল্ড করা এই সফটওয়্যারটির home এ scan এর নিচেই পেয়ে যাবেন scan location গুলো। এখান থেকে স্ক্যান করার আগে কোথা থেকে কোন লোকেশনে স্ক্যান করা হবে lost file তা সিলেক্ট করে দেওয়া যাবে, কম্পিউটারে সংযুক্ত সকল drive এর partition গুলো এখানে থাকবে। এর ডানেই রয়েছে search by file type এর সেকশন, এখানে সবধরনের ফাইল এর খোজ না করে যদি কোনো নির্দিষ্ট ধরনের ফাইল খুজতে চাওয়া হয় সেক্ষেত্রে Pictures,videos,documents, music ইত্যাদি ক্যাটাগরি থেকে সিলেক্ট করে দিলেই হবে।

- Advertisement -

How to use iTop Data Recovery Software

এই software টির সবথেকে বড় সুবিধার দিক আমার কাছে মনে হয়েছে এর using procedure । ফাইল লোকেশন,টাইপ সিলেক্ট করে scan এ ক্লিক করলেই হয়ে গেলো। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে হবে তারপর। স্ক্যান শেষ হলে recoverable ফাইল গুলোর লিস্ট দেবে এটি।

recovering files:

- Advertisement -

লিস্ট থেকে যে ধরনের ফাইল হারিয়েছে, অর্থাৎ picture/music/program/video এই ভাবে ফাইল টাইপ অনুসারে ও এক্সটেনশন অর্থাৎ jpg,png,m4a,mp3,exe,msi,mp4,mkv,flv ইত্যাদি এক্সটেনশন অনুসারে ভাগ করে লিস্ট দেখায় iTop Data Recovery Software টি। এখান থেকে নিজের প্রয়োজন মত ফাইল টাইপ /এক্সটেনশন এর লিস্টে গিয়ে ফাইল খুজতে হবে। প্রতি ক্ষেত্রেই ফাইল এর ডিলিট এর তারিখ, detailed location ,ফিরে পাওয়ার সম্ভাবনা লেখা থাকে।

ফাইল type/extension এর পাশাপাশি ফাইল লোকেশন আকারেও লিস্ট পাওয়া যাবে। সেখান থেকেও খোজা যাবে ফাইল।

ফাইল সিলেক্ট করে recover এ ক্লিক করলেই হয়ে যাবে। এক্ষেত্রে যেই ড্রাইভের ফাইল, সেটি ব্যতিত অন্য কোনো পার্টিশনে রিকভার করাটাই recommend করে iTop. আর স্টোরেজ টাইপ এর উপর নির্ভর করবে recover speed.

আমাদের টেস্টিং এর পদ্ধতিঃ

আমরা দুইটি ধাপে দুই ভাবে টেস্ট করেছি। প্রথম ভাগে আমরা একটি ফোল্ডারে কিছু ফাইল নিয়েছি ,এক্ষেত্রে বাস্তব জীবনে যা হয়, প্রয়োজনীয় documents, ভিডিও,ছবি,এপ্লিকেশন এর রিকভারির দরকার হয়, সেক্ষেত্রে আমরা সব ধরনের ফাইল ই নিয়েছি ২/৪টা করে।এগুলো আগে অন্য জায়গায় ব্যাকআপ করে নিয়েছি।  এরপর সবগুলো ফাইল ডিলিট করে রিসাইকেল বিন থেকেও ডিলিট করেছি। এক্ষেত্রে আমাদের তৎক্ষণাৎ ডিলিট হওয়া ফাইল রিকভার করার দরকার হলে এটি কাজ করে কি না তার প্রমাণ পাওয়া যাবে। এরপর স্ক্যান করে দেখা হয়েছে এই সদ্য ডিলিট হওয়া ফাইলগুলো পাওয়া যায় কি না ও সেগুলো চলে কি না।এই ধাপে ৫০০ গিগাবাইট এর একটি হার্ডড্রাইভ (single partition) এর ফাইল ডিলিট করে রিকভার করার চেষ্টা করা হয়েছে ও তা system drive ,SSD তে রিকভার করা হয়েছে।

আর দ্বিতীয় ধাপে আমরা আগের ফাইলগুলো বাদ দিয়ে অন্য কয়েকটি ফাইল নিয়েছি ,ডিলিট করেছি ও তারপর পিসি কয়েকবার  শাট ডাউন,রিস্টার্ট করে তারপর স্ক্যান করে দেখা হয়েছে যে এবার ফাইলগুলো ফেরত পাওয়া যায় কি না, খুজে পাওয়া যায় কি না।এক্ষেত্রে প্রমাণ পাওয়া যাবে যদি ডিলিট করার পর সাথে সাথে আমাদের ডাটা দরকার না হয়, বরং কিছুদিন পর , অন্য কোনো সময় ডাটা প্রয়োজন হয় সেক্ষেত্রে আমরা স্ক্যান করে এই ফাইলগুলো পাব কি না ও ফাইলগুলো চলবে কি না। এক্ষেত্রে আমাদের টেস্ট সিস্টেমে একটি  ৪টি পার্টিশনে বিভক্ত 1tb হার্ডড্রাইভ ও 256GB NVMe system drive ছিল। এই ধাপে C drive থেকে ডাটা ডিলিট করে Hard drive এ রিকভার করার চেষ্টা করা হয়েছে।

দ্বিতীয় ধাপে system drive থেকে ডিলিট করা (যেই ড্রাইভটি প্রথম টেস্ট সিস্টেমের থেকে অনেক বেশিই compicated, প্রচুর পরিমাণে বিভিন্ন ধরনের নতুন পুরাতন ফাইল রয়েছে ও সিস্টেম ড্রাইভ হওয়ায় প্রতিনিয়ত read,write হচ্ছেই) , ও রিস্টার্ট ,শাট ডাউন দিয়ে delay করার মাধ্যমে real life situation আরো ভালো ভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে বলেই আমাদের ধারণা।

আর বোনাস হিসেবে C drive থেকে একটি random image ফাইল আমরা রিকভার করার চেষ্টা করেছিলাম।(1st test system)

ফলাফলঃ

প্রথম ধাপে আমরা স্ক্যান করে ফাইলগুলো খুজে পেয়েছি। রিকভার করতে সক্ষম হয়েছি।  তবে এখানে একটি কথা উল্লেখ না করলেই না, ফাইলগুলোর নাম কিন্ত স্ক্যান রেজাল্টে original নামে থাকবে না বরং random বিভিন্ন নাম পাওয়া যাবে, সেক্ষেত্রে file size,thumbnail,icon এর মাধ্যমে আমাদের বুঝে নিতে হবে।তবে অনেক ক্ষেত্রেই নাম পরিবর্তন হয়ে যাওয়ার দরুন ফাইল খুজে পেতে ভালোই বেগ পেতে হতে পারে যা একটি drawback মনে হয়েছে আমার কাছে। তবে যতদুর মনে হয়, যেহেতু Drive/$Recycle Bin থেকে এটি ডাটা রিকভার ও সার্চ করে সেজন্য স্বভাবতই এখানে অরিজিনাল ফাইলের নাম হুবহ থাকবে না, $ চিহ্নের সাথে random কিছু অক্ষর/সংখ্যা থাকবে। তবে তারপর ফাইল চালু করে তো দেখার সুযোগ রয়েছেই।  ফাইলগুলো খুজে পাওয়ার পর সেগুলো আমরা execute করে দেখেছি ও সেগুলো ঠিকঠাক ছিল বলেই মনে হয়েছে।

দ্বিতীয় ধাপে-

সি ড্রাইভ থেকে নির্দিষ্ট কিছু ফাইল permanent delete করার পর বেশ অনেক বার পিসিটি সাধারণ ভাবে চালানো হয়েছে, restart ও shutdown করা হয়েছে। তারপর স্ক্যান করা হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই স্ক্যান এর গতি এক্ষেত্রে অনেক ধীর ছিল, প্রায় ১০ মিনিট সময় লেগেছে স্ক্যান শেষ হতে।

তবে এখানে ফলাফলটা একটু জটিল। প্রথমত সি ড্রাইভ only সিলেক্ট করে স্ক্যান করা হয়েছিল। এতে আমাদের কাঙ্খিত ফাইল খুজে পাওয়া যায়নি (যদিও আমরা ফাইল সি ড্রাইভ থেকেই ডিলিট করেছিলাম (c:/ root) । ফাইল এর সাইজ,টাইপ যেহেতু জানা ছিল ও স্ক্রিনশট ছিল, বেশ গভীর ভাবে মনোযোগ দিয়ে খুজেও একটা ফাইল ও পাওয়া সম্ভব হয়নি।

তারপর আবার রিস্টার্ট দিয়ে whole pc স্ক্যান করেও ফাইলগুলো পাওয়া সম্ভব হয়নি।

তারপর একটু পরিকল্পনায় পরিবর্তন এনে secondary storage (1TB HDD) থেকে একটি ভিডিও ফাইল ডিলিট করে আবার রিস্টার্ট দিয়ে স্ক্যান করা হয়েছে, এক্ষেত্রে অবশ্য ফাইলটা খুজে পাওয়া ও রিকভার করা সম্ভব হয়েছে।

এর পর আরো কয়েকবার কয়েকটি করে ফাইল ডিলিট করে রিস্টার্ট করে স্ক্যান করে ফেরত আনার চেষ্টা করা হয়েছে। একবার ব্যর্থ হতে হয়েছে আরেকবার খুজে পাওয়া গিয়েছে। এখানে প্রশ্ন থেকেই যায়, ফাইলগুলো কি সত্যিই লিস্টে আসেনি নাকি listing, নাম এর complexity এর জন্য খুজে পাওয়া যায়নি।

আর random file recovery টেস্টে রিকভারি তো ঠিকভাবে হয়েছে কিন্ত ফাইলটি আপাতদৃষ্টিতে মনে হয়েছে damaged । যদিও সেটি আদৌ কোনো valid ফাইল ছিল কি না তাও নিশ্চিতভাবে বলা যাচ্ছে না।কারণ আমরা এক্ষেত্রে সি ড্রাইভের ফাইল সি ড্রাইভেই রিকভার করেছি। ভিডিও থেকে দেখে নিতে পারেন। এই ইমেজ ফাইলটি google drive এ আপলোড দিয়েও প্রিভিউ করা যায়নি পরবর্তীতে।

তবে পরে আরো দুই তিনটি র‍্যান্ডম ফাইল লিস্ট থেকে পিক করে আমরা রিকভার করেছি, প্রতি ক্ষেত্রেই ফাইলগুলো রিকভার হয়েছে ও চালানো গিয়েছে। একটি Zip এর মধ্যে PDF কালেকশন ছিল,সেগুলো অক্ষত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছে।

usage during test, speed and fluency:

scan ও recovery speed ছিল যথেষ্ট ভালো, এই সময় কোনো stutter,lag স্লো হতে দেখা যায় নি সিস্টেম ও app টি। 2 cores 4 thread এর একটি ল্যাপটপ প্রসেসরে স্ক্যানের সময় সর্বোচ্চ ৩০% পর্যন্ত CPU ইউসেজ দেখেছি।

little drawback

ফাইল এর লোকেশন, ফাইল টাইপ অনুসারে স্ক্যান করা বা scan narrow করা /filter করার সুযোগ রয়েছে যেটা খুবই ভালো বিষয়, তবে আরো সহজভাবে ফাইল খুজে পেতে আরেকটি অপশন এর অভাব বোধ করেছি। ফাইলটি কবে নাগাদ ডিলিট করা হয়েছে সেই সময় কাল অনুসারে যদি filter করার কোনো অপশন থাকতো বা search narrow করার অপশন থাকতো তাহলে অপ্রয়োজনীয় ফাইলগুলো কম আসতো লিস্টে ও সঠিক ফাইল খুজে পাওয়া আরো সহজ হতো

Pricing:

বর্তমানে iTop Data Recovery Software টির লাইফটাইম সাবস্ক্রিপশন মাত্র ৪০ ডলারে পাওয়া যাচ্ছে। Buy iTop Data Recovery Software

our verdict:

আমাদের টেস্টিং এ যা যা হয়েছে তা তো উপরে উল্লেখ করেই দিয়েছি। ডিলিট করার সাথে সাথে রিকভার করার ক্ষেত্রে আমার কাছে অব্যর্থ মনে হয়েছে iTop Data Recovery Software কে।

তবে পিসি শাট ডাউন,রিস্টার্ট করলে hit and miss হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায় বলেই মনে হয়েছে, সেক্ষেত্রে recovery এর সম্ভাবনা বা নিশ্চয়তা ১০০% থাকে না। কোন ড্রাইভ থেকে ডিলিট করা হয়েছে সেটিও একটি বড় নিয়ামক হিসেবে কাজ করে এখানে। তবে আমার কাছে মনে হয়েছে success rate বেশি। এক্ষেত্রে যদি ফাইল এর টাইপ এর পাশাপাশি সাইজটা exactly মনে রাখা যায় তাহলে স্ক্যানড ফাইল লিস্টে ফাইল খুজে পাওয়া যাবে। অনেক ক্ষেত্রে নাম পরিবর্তন হয়ে যাওয়ার দরুন কঠিন হয়ে যায় খুজে বের করা, লিস্টে থাকলেও।

তবে আমাদের টেস্টিং এ যেহেতু বেশি বাস্তবধর্মী case অর্থাৎ ডিলিট এর পরবর্তীতে রিস্টার্ট,শাট ডাউন দেওয়া বা কিছুদিন পর রিকভারির ক্ষেত্রে ব্যর্থতা পাওয়া গিয়েছে, সেক্ষেত্রে বলতেই হচ্ছে এটি ১০০% কার্যকর নাও হতে পারে।So whats our rating then? For instant recovery 4.5/5.0 and for afterwards recovery 3.5/5.0.

- Advertisement -
Soaad Bin Zaman Shoron
Soaad Bin Zaman Shoron
Gamer | Memer | Tech Enthusiast | Sports Lover | Food Hunter | JUST PHYSICS 2018

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

iTop Data Recovery বাংলা Reviewইচ্ছা করে বা ভুল বশত কোনো গুরুত্বপুর্ণ ডাটা অনেকসময়ই আমাদের পিসি থেকে ডিলিট হয়ে যায়, পরবর্তীতে সেই ডাটার প্রয়োজন হলে বেশ বিপদে পরতে হয় কারণ recycle bin থেকে ডিলিট করলে সেই ডাটা আর সাথে সাথে রিকভার করা যায় না। তবে অনেক বছর ধরেই অনেক...