29 C
Dhaka
Sunday, September 19, 2021

Hard Drive নষ্ট হওয়ার কিছু পুর্ব লক্ষণ

- Advertisement -asus motherboards

Hard Drive বা Hard Disk, এর নষ্ট হওয়া, Failure হওয়া ,crush করার প্রবণতা ছিল প্রথম থেকেই। ভেতরে ঘুরন্ত যন্ত্রাংশ থাকায় এর উন্নতির সুযোগ ও সংক্ষিপ্ত।হার্ড ডিস্ক যে নষ্ট হয়েছে বা হচ্ছে অথবা নষ্ট হওয়ার দিকে ধীরে ধীরে ধাবিত হচ্ছে তা কিছু লক্ষণ থেকে প্রকাশ পায়। আজকের আলোচনা সেগুলো নিয়েই।

হঠাৎ করে সম্পুর্ণ সিস্টেম স্লো হয়ে যাওয়াঃ

সাধারণত প্রসেসর, গ্রাফিক্স কার্ড,র‍্যাম এর পারফর্মেন্স তাদের ক্ষমতা অনুসারে সবসময়ই constant থাকে মোটামুটি এক রকম থাকে। এমতাবস্থায় হঠাত যদি পারফর্মেন্স এ,stability তে বড় রকমের পরিবর্তন লক্ষ করেন সেক্ষেত্রে আপনার হার্ডড্রাইভের দিকে বিশেষ নজর দেওয়ার পরামর্শই থাকবে।

- Advertisement -

***এখানে আরো বেশ কিছু লক্ষণ দেখতে পাওয়া যেতে পারে, রিড রাইট স্পিড অতিরিক্ত স্লো হয়ে যাওয়া, single digit এ নেমে আসা।) explorer এ my computer বা যেকোনো ড্রাইভ,ফোল্ডার এ ঢোকা, বের হওয়া, রাইট ক্লিক করে অপশন আনার মত এই বিষয়গুলোতেও হঠাত করে অনেক বেশি সময় লাগা এবং not responding ,loading থাকা।(**ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা***)

এবং আরো একটি বড় লক্ষণ হলো windows boot time বেড়ে যাওয়া অনেক, বিশেষ করে Password/pin দিয়ে লগিন এর থেকে desktop এ আসার সময় পর্যন্ত যদি স্বাভাবিক থেকে হঠাত ১০,১৫ মিনিট বা এর ও বেশি সময় লেগে যাওয়া (সাধারণত এই পর্যায়ের সময় হার্ডড্রাইভে সেকেন্ড/মিনিটের কোটাতে থাকে সিস্টেমের ram,processor এর উপর ভিত্তি করে), কিন্ত হঠাত করে যদি তা অস্বাভাবিক বেশি সময় লাগায় তাহলে অতি সত্বর আপনার ডেটা ব্যাকআপ করে রাখুন । ***ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা***

***হঠাত করে গেম খেলতে খেলতে বা কাজ করতে করতে কোনো রকমের error ছাড়াই সিস্টেম ফ্রিজ/ক্রাশ হয়ে যাওয়া ও একটি লক্ষণ।আমার সদ্য নষ্ট হওয়া হার্ডড্রাইভ টি তে এরকম হতো***

Boot Drive not found:

- Advertisement -

ড্রাইভের সমস্যা হওয়ার একটা উল্লেখযোগ্য বড় লক্ষণ হলো এটি। আপনি পিসি চালু করতে গেলেন কিন্ত নিচের ছবির মত একটি ছবি আসলো এবং insert boot disk and press any key লেখা দেখতে পেলেন।

অর্থাৎ ঐ হার্ড ড্রাইভে আপনার অপারেটিং সিস্টেম/windows রয়েছে কিন্ত Mobo এবং প্রসেসর পর্যায়ক্রমে বাকি ডিভাইস চেক করার পর Boot প্রসেসে ঢোকার সময় আপনার ড্রাইভকে ডিটেক্ট করতে পারছে না। অর্থাৎ আপনার ড্রাইভটি যে Physically মাদারবোর্ডের সাথে সংযুক্ত সেটিই ধরতে পারছে না। এই সমস্যাটা হঠাত একদিন দেখা যায়, এবং যদি এদিকে আপনার ড্রাইভের কেবল সঠিকভাবে সংযুক্ত থাকে, তা সত্বেও আস্তে আস্তে frequently(প্রায়ই) ঘটনাটি ঘটতে থাকে তাহলে বুঝবেন ড্রাইভটি মৃত্যুর দিকেই যাচ্ছে। ডেটা সরিয়ে রাখুন। ***আমি নিজেও এই সমস্যাটির সম্মুখীন হয়েছিলাম আমার পুরাতন ডেস্কটপে।ঘন ঘন সেই পিসিটি চালু করার সময় এই এরর আসতো,হার্ড ডিস্ক ডিটেক্ট হতো না, ও বেশ অনেকবার রিস্টার্ট দিলে পিসি চালু হতো, একটা সময়ে অনেক গুরুত্বপুর্ণ ডাটার সাথে হার্ডডিস্কটি সম্পুর্ণ নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। ***

- Advertisement -

অতিরিক্ত শব্দ,High Temperature:  

হার্ড ড্রাইভ বা হার্ডডিস্ক। ভেতরে যেহেতু disk বা চাকতি এবং arm  রয়েছে এবং তার ঘুর্ণন এর উপরেই নির্ভর করে Data read/right , সুতরাং একটু শব্দ হবেই এটা স্বাভাবিক। ইউজার হালকা শব্দ,clicking শুনতেই পারেন।

কিন্ত স্বাভাবিকের তুলনায় যেকোনো উচ্চমাত্রার শব্দ শুনতে পেলে বুঝবেন সেটি মোটেও ভালো লক্ষণ নয়, ভেতরে কিছু একটা গন্ডগোল অবশ্যই রয়েছে। হতেও পারে ভেতরে কোনো অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। হার্ড ড্রাইভের অতিরিক্ত তাপমাত্রাও একটি লক্ষণ।

Head Crash,PCB Problems,Spindle Motor Malfunction:

হার্ড ড্রাইভ এর Head অনেকসময় প্লাটার এর উপর ক্রাশ করে, হেড সংক্রান্ত সমস্যার বড় লক্ষণ হলো অদ্ভুত বিকট শব্দ হওয়া। Spindle Motor প্লাটারগুলোকে স্পিন করায়। এটির Malfunction ও হার্ড ড্রাইভ নষ্টের অন্যতম কারণ হতে পারে। এক্ষেত্রেও অদ্ভুত শব্দ শোনা যায় ভেতর থেকে। আরো একটি সমস্যা হলো হার্ড ড্রাইভের পিসিবিতে সমস্যা হওয়া।অতিরিক্ত কারেন্ট পাস/irregular current,voltage pass/sudden power cut-off, irregular power cut-off, অনিয়মিত ভোল্টেজের উঠানামা, Power Surge, Overcurrent,Thunder  এগুলো পিসিবি বোর্ড ও সমগ্র হার্ড ড্রাইভের জন্য ক্ষতিকর।

DATA হারিয়ে যাওয়াঃ

একটি খুবই common issue এটি যে আপনি কোনো Data সংরক্ষণ করলেন ড্রাইভে এবং সেটি পরে দেখলেন আর নেই। এই ক্ষেত্রে আপনার হার্ড ড্রাইভের Internal Problem হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। কারণ ডাটা যেখানে স্টোর করা হয়ে থাকে যেখানে সেটি ক্ষতিগ্রস্ত হলে, ত্রুটিযুক্ত হলে ডাটা হারিয়ে যায় বা যেতে পারে, নষ্ট হয়ে যাওয়ার ও সম্ভাবনা থাকে।

এই ঘটনা যদি নিয়মিত ঘটতে থাকে তাহলে আপনার সত্যিই সময় এসেছে এটাকে নিয়ে চিন্তাভাবনা করার এবং DATA গুলো ব্যাকআপ করা। ***এই ঘটনাটিও আমার সদ্য নষ্ট হওয়া হার্ডড্রাইভটির সাথে ঘটতো, সে সময়ে এর হেলথ ছিল ৯% বা তার ও কম। ***

এছাড়াও আরো কিছু লক্ষণঃ

নিচে কিছু অতি পরিচিত লক্ষণ আমি তুলে ধরছি যেগুলো সিস্টেমে দেখা গেলে তা মুলত হার্ড ড্রাইভটি যে মৃত্যুর দিকে ধাবিত হচ্ছে তাই নির্দেশ করে। কিছু লক্ষণ আমি ইন্টারনেটে বিস্তর ঘাটাঘাটি করে পেয়েছি ও বেশ কিছু গত ১০ বছরে আমি ৩টি সিস্টেম (একটি ল্যাপটপ ও দুটি ডেস্কটপ) চালানোর সময়ে আমি সম্মুখীন হয়েছি (এর মধ্যে দুটি হার্ড ড্রাইভ সম্পুর্ণই নষ্ট হয়েছিল লক্ষণগুলো প্রকাশের পরে)

-I/O Device error:

এই এররটি হওয়ার বেশ কয়েকটি কারণের একটি হতে পারে হার্ড ড্রাইভের damaged, incompatible, or outdated হওয়া। একটি ফোল্ডার/ফাইল বা ফোল্ডারটির লোকেশন যখন এক্সেস করা যায় না তখন এই এরর মেসেজটি আসে। (মুলত Bad block এর আওতায় চলে যায় অনেকসময় ফাইলটি, চিরতরে inaccessible হয়ে যায়)।

-Smart Hard Drive Error 301, Error 0142,0146

আপনার হার্ড ড্রাইভের নিজস্ব Health,Status Monitoring সিস্টেম হলো S.M.A.R.T. (Self-Monitoring, Analysis and Reporting Technology)। আজকালকার হার্ডড্রাইভগুলোতে Built In S.M.A.R.T ফিচার থাকে, এতে করে হার্ডড্রাইভ বেসিক স্টাটাস মনিটরিং নিজেই করতে পারে ও আসন্ন ঝুকি/সমস্যাসমূহ নোটিফিকেশনের মাধ্যমে জানাতে পারে। CMD থেকে wmic টাইপ করে diskdrive get status টাইপ করে এন্টার চাপলে সিস্টেমে কানেক্টেড হার্ডড্রাইভ/এসএসডির নাম ও স্টাটাস দেখতে পাওয়া যায়।

Smart Hard Drive Error 301 হলো এমন একটি Error যা হার্ডড্রাইভ এর Failure,several corruptions ইত্যাদি সমস্যার দিকে ইঙ্গিত করে।

নিয়মিত ফাইল অথবা ডাটা করাপ্ট/ড্যামেজ এর এরর মেসেজ আসা,নিয়মিত System Crash ও Disk Errors:

আপনার রেগুলার পিসি ইউসেজে বিভিন্ন Software লঞ্চ করা বা চালানোর মধ্যে অথবা কোনো ফাইল এক্সেস/চালু করতে গিয়ে যদি নিয়মিত Data is corrupted/damaged এই ধরণের মেসেজ পেতে থাকেন এবং উইন্ডোজ সেটাপ/ফ্রেশ ইন্সটল এর পরেও যদি এই ঘটনা চলতে থাকে (পার্সোনাল ফাইলের ক্ষেত্রে যদি রিস্টার্ট/শাট ডাউন দিয়ে পুনরায় চালু করেও যদি ফাইল না চালু হয়) তাহলে অবশ্যই হার্ডড্রাইভ এর কারণেই সমস্যাটি হচ্ছে ও ভবিষ্যতে এই সমস্যা আরো প্রকট হতে পারে।ফাইল/ ফোল্ডারের নাম চেঞ্জ হয়ে যাওয়া,অদ্ভুত কিছু Sign/language Convert হয়ে যাওয়াও একটি লক্ষণ। কোনো সফটওয়্যারে কাজ করার সময় আউটপুট ফাইল সেভ করতে গিয়ে সেভ না হওয়া/এরর আসা, সেভ হয়ে হারিয়ে যাওয়া, পরে আর চালু না হওয়া/ড্যামেজ হয়ে যাওয়াও একটি অন্যতম বড় Sign। Fatal Hard disk error, Incorrect parameter, Request failed ইত্যাদি মেসেজ আসতে পারে। ফাইল কপি/মুভ না হওয়া ও একটি বড় লক্ষণ।

সিস্টেম র‍্যান্ডমলি ক্রাশ করা, হ্যাং হয়ে রিস্টার্ট নেওয়া, হুটহাট আটকে যাওয়া আর সাথে সাথে Hard Disk সম্পর্কিত  Errors আসতে থাকা। হার্ড ডিস্ক নষ্ট হওয়ার অন্যতম লক্ষণ।

***(ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা)*** উপরের স্ক্রিনশটগুলো কিছু ইন্টারনেটের, কিছু আমার ল্যাপটপের যেটির হার্ডডিস্ক বলতে গেলে মৃত।

ফাইল এক্সেসে অতিরিক্ত সময়ঃ 

কম্পিউটার চালু হতে দেরি হওয়ার কথা আমরা আগেই বলেছি,এছাড়া যেকোনো এপ্লিকেশন চালু হওয়ার ক্ষেত্রেও অতিরিক্ত বেশি সময় লাগা, এমনকি Windows Explorer এ ফাইল শো করতে দেরি হওয়া, যেকোনো ফাইল চালু করতে গেলে অনেকক্ষণ কার্সরে লোডিং sign আসাও একটি লক্ষণ যে হার্ড ড্রাইভ struggle করছে (ধরে নেওয়া হলো যে প্রসেসর,র‍্যাম  নরমাল অবস্থায় আছে)

Blue Screen Of Death(BSOD)

আপনার হার্ড ড্রাইভে যে সমস্যা রয়েছে তার একটি বড় আলামত হতে পারে Blue Screen of death, সিস্টেমের ডেটা করাপ্ট হওয়া বা unreadable হয়ে যাওয়া,bad sectors সহ স্থায়ী ত্রুটির কারণে Blue Screen এররস হতে পারে।blue screen তখনই হয় যখন কম্পিউটার এর Operating System কে সচল রাখার সাথে সম্পর্কিত সরাসরি কোনো ফাইল/এপ্লিকেশন/প্রসেস/ড্রাইভার এর কোনো সমস্যা দেখা দেয়।

NTFS_FILE_SYSTEM (Error Code 0x00000024),critical process died ইত্যাদি সহ আরো বেশ কিছু এরর রয়েছে যেগুলো নির্দেশ করে HDD সংক্রান্ত সমস্যার দিকে।

উপরে বর্নিত ব্যাড সেক্টর/ফাইল করাপশন/ড্যামেজ হওয়া বা কোনো একটি অংশ unreadable, inaccessible হয়ে যাওয়ার ঘটনা যখন আপনার HDD এর উইন্ডোজ পার্টিশনের মধ্যে ঘটে, বিশেষ করে পিসি চালু হওয়ার জন্য বা Running থাকার জন্য একদম জরুরি কোনো প্রসেস/File/Folder এর অংশে ঘটে, তখন ব্লু স্ক্রিন দেখা দেয়। অনেকক্ষেত্রে পিসি চালু করার সময়ই কোনো একটি exe/sys ফাইলের নাম সহ এই ব্লু স্ক্রিন এরর পাওয়া যায়, অর্থাৎ অমুক ডিরেক্টরির অমুক ফাইলটি করাপ্ট/ড্যামেজ হয়েছে অথবা অমুক directory টি ইনভ্যালিড/ inaccessible বা এক্সেস করা যাচ্ছে না।

নিচে কিছু স্ক্রিনশট দেওয়া হলো (এর মধ্যে আকাশী রঙের ব্যাকগ্রাউন্ডের স্ক্রিনশটটি আমার নিজের, এটি অবশ্য এসএসডির ক্ষেত্রে হয়েছিল)

আরো কিছু ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে স্ক্রিনশটঃ 

উপরে বেশ কিছু লক্ষণ সম্পর্কে আলোচনা করার সময় যেগুলো আমার অভিজ্ঞতায় মিলে গিয়েছে সেগুলো আমি হাইলাইট করেছি আলাদা করে। এবার এই সেকশনে আমার একটি ল্যাপটপের হার্ডড্রাইভ থেকে যত রকমের Errors ও সমস্যা ফেস করেছি তা উল্লেখ করছি। আমি উইন্ডোজ ১০ এর ইভেন্ট লগ এ নিয়মিত চোখ রাখায় প্রচুর পরিমাণে রিপোর্ট পেয়েছি আমার  হার্ডডিস্ক সম্পর্কে উইন্ডোজ এর পক্ষ থেকে।

-write request fails or takes a long time এরর 

-ইভেন্ট লগে নিয়মিত প্রচুর পরিমাণে ওয়ার্নিং পেয়েছি 

-লাগাতার হার্ডড্রাইভ এর ব্যাড ব্লক সম্পর্কে ইভেন্ট লগে Error মেসেজ আসতো 

-উইন্ডোজ এর পক্ষ থেকে হার্ড ডিস্ক স্ক্যানের জন্য নোটিফিকেশন

-Too Many Repair Event warning

-ইভেন্ট লগে বেশ কিছু অদ্ভুত এরর। 

ইভেন্ট লগে নিয়মিত ড্রাইভ করাপশন, Re-trim,Device not responding ইত্যাদি Errors, Hard drive scan result সংক্রান্ত ইভেন্ট status ও ওয়ার্নিং 

***মাঝেমধ্যেই বুটআপে ডিস্কচেকিং ও ফিক্সিং***

একটা সময়ে হার্ডড্রাইভ স্বাভাবিকভাবেই নষ্ট হবেঃ Lifespan of hard drive: 

এক্সট্রিম টেক এর রিপোর্ট অনুসারে প্রথম বছরে একটা হার্ড ড্রাইভের Failure rate 5.1% , পরের বছরে তা 1.4% কিন্ত তৃতীয় বছরে তা এক লাফে বেড়ে দাঁড়ায় 11.8%এ।অতিরিক্ত ব্যবহার,অনিয়ন্ত্রিত ব্যবহার, বারবার power outage, ভোল্টেজ/ইলেক্ট্রিসিটির অনিয়ন্ত্রিত ও অনিয়মিত প্রবাহ,manufecturing fault ইত্যাদি কারণে হার্ডডিস্ক নষ্ট হতে পারে। তাছাড়া ব্যবহারের মাধ্যমেই কোনো না কোনো সময়ে থেমে যাবে হার্ডড্রাইভের জীবন কাল। এটি যেকোনো ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইসের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।

হার্ড ড্রাইভের হেলথ চেকঃ 

হার্ড ড্রাইভটির কি অবস্থা, synthetic test এ পারফর্মেন্স কেমন,রিড রাইট স্পিড কেমন, কোনো ব্যাড ব্লক/ব্যাড সেক্টর আছে কি না এসব জানতে বেশ কিছু বহুল ব্যবহ্বত টুলস রয়েছে সেগুলো ব্যবহার করতে পারেন যেমন CrystaldiskMark ,Crystal Diskinfo, Hard Disk Sentinel ইত্যাদি। এগুলো থেকে একটা আইডিয়া পাওয়া যাবে, যদি আপনি উপরের লক্ষণগুলো দেখেন ও এদিকে সফটওয়্যারে চেক করে হেলথ কম পান তাহলে তো বিষয়টা আরো স্পষ্ট হবে। অনেকেই অবশ্য এই ধরণের সফটওয়্যারে বিশ্বাস করেন না বা বলেন যে অনেক কম হেলথ এও অনেক ভালো চলছে বা অনেকক্ষেত্রে এসব সফটওয়্যার ভুল তথ্য দেয়, সেক্ষেত্রে আমার পরামর্শ থাকবে আপনি নিশ্চিত হওয়ার জন্য একাধিক সফটওয়্যার দিয়ে চেক করতে পারেন ।

স্থায়ীভাবে যেসব ড্যামেজ রয়েছে তা এইসব টুল দিয়ে মুলত রিপেয়ার করা সম্ভব না। repair/solve issue তে ক্লিক করলে তা শেষ হয়ে হেলথ গুড/ইস্যু সল্ভ দেখালেও পরবর্তীতে ইস্যুগুলো ফিরে আসে ও হেলথ ড্রপ করে। এটি আমার সদ্য নষ্ট হওয়া হার্ড ড্রাইভ যেটির হেলথ ৯% এ এসে ব্যবহারের অনুপযোগী হয়েছিল সেটির ক্ষেত্রে ঘটতে দেখেছি, কথিত সলুশন করার পর রিস্টার্ট দিলেই হেলথ আবার নেমে যেত।

আর একটি বিষয়, হেলথ চেক একটি আইডিয়াই দিবে মাত্র,কার ক্ষেত্রে কত% এ এসে নষ্ট হবে বা অন্যন্য লক্ষণ দেখানো শুরু হবে বা ব্যবহারের অনুপযোগী হবে তা নির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব নয়। বরং আমার পরামর্শ হবে লক্ষণ গুলো চিহ্নিত করা ও সাথে সাথে হেলথ চেক করা।

 

- Advertisement -asus graphics card
Soaad Bin Zaman Shoron
Gamer | Memer | Tech Enthusiast | Sports Lover | Food Hunter | JUST PHYSICS 2018

1 COMMENT

  1. ভাই আমার হার্ড ডিস্কের হেলথ্ ৭২%।
    আমি অনেকগুলা সফট্যওয়ার দিয়ে চেক করছি সবগুলোর রেজাল্টই ৭০-৭২ এর মধ্যে কোনোটায় ৭২, কোনোটায় ৭১- আবার কোনটায় ৭০। পিসি অন করতে গেলে মিনিমাম ৪৫নেকেন্ড থেকে ১মিনিটের মতন সময় লাগে আবার কখনো অন হলেও ডেস্কটপ আসতে ১.৫-২ মিনিট সময় লাগে
    আবার পিসি হঠাৎ হঠাৎ স্লো হয়ে যায় নরমাল্লি কাজ করা যায় কিন্তু একসাথে ২টা এপস মিনিমাইজ করে চালানো যায় না তাহলেই পিসি স্লো হয়ে যায় আর এমন ভাবে স্লো হয় যে পিসিটা রিস্টার্ট করতে হয়।
    আমি কি হার্ডডিস্ক চেঞ্জ করে ফেলবো?
    আমাকে একটা সলিউশন দিবেন প্লিজ!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here