বর্তমান তথ্য প্রযুক্তির যুগে কম্পিউটারের বিকল্প নেই, সকল ধরণের ডিজিটাল কাজ এখন কম্পিউটারের মাধ্যমে করা হয়ে থাকে। তবে পোর্টাবিলিটির দিক দিয়ে ডেস্কটপের তুলনাই ল্যাপটপ বেশ ভাল। বর্তমানে অনেকেই প্রতিদিনের কাজ করতে ল্যাপটপ ই ব্যবহার করে।

যেহেতু ল্যাপটপ একটি পোর্টাবল ডিভাইস তাই এটিকে যথেষ্ট পাতলা হতে হয়, তবে আকারে ছোট, পাতলা ও খরচ কমতে গিয়ে অনেক সময় ই এটির গঠন দূর্বল করে ফেলে ল্যাপটপ উৎপাদনকারি কোম্পানি গুলো। ফলে সামান্য আঘাতে বা অল্প ব্যবহারে কি-র্বোড, পোর্ট, চার্জার, ডিসপ্লে হিঞ্জ ভেঙ্গে যায়। তাই এই সকল ক্ষতি থেকে বাচঁতে কি করণিয় তা-ই আজ সংক্ষেপে আলোচনা করা হবে।

কি-র্বোডঃ ল্যাপটপ এর কির্বোড কোম্পানি ও মডেল ভেদে খুবিই পাতলা হয়ে । পাতলা গঠন হওয়াতে অতিরিক্ত ব্যবহার বা অসতর্ক ব্যবহারে খুবই সহজে এটি নষ্ট হয়ে যায়। পানি ও ময়লা কির্বোডের জন্য খুবই ক্ষতিকর তাই যতটা সম্ভব ময়লা ও পানি থেকে ল্যাপটপ কে দূরে রাখতে হবে। এজন্য Waterproof Bag ব্যবহার করা ভাল এবং নিয়মিত পরিষ্কার কাপড় দিয়ে কির্বোড পরিষ্কার করা উচিত।

পোর্টঃ ল্যাপটপে বিভিন্ন ধরণের র্পোট থাকে যেহেত এটি একটি পোর্টাবিল ডিভাইস বিভিন্ন ধরণের পরিবেশ থেকে পোর্ট ময়লা ও ব্যবহারের ফলে পোর্ট গুলোতে সমস্যা দেখাদিতে থাকে, তাই নিয়মিত ক্লিনার দিয়ে পরিষ্কার করা উঠিত। অনেকেই অসর্তক ভাবে র্পোট গুলো তে বিভিন্ন ডিভাইস লাগিয়ে থাকে ফলে দিনে দিনে তা ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে এক সময় তা অকার্যকর হয়ে পরে। ভাল মানের ক্যাবল ও অনেক ডিভাইস কানেক্ট করার জন্য docking station ব্যবহার করা যেতে পারে।

চার্জার ও ব্যাটারিঃ চার্জার ও ব্যাটারি সঠিক যত্ন না নিতে পারলে ল্যাপটপ খুবিই ঝামেলায় পরতে হয়, যেমন ঠিক ঠাক চার্য না হওয়া, তারাতারি চার্য শেষ হয়ে যাওয়া, চার্জার গরম হওয়া ইত্যাদি। তাই চার্জার ক্যাবল অতিরিক্ত প্যাচ না দিয়ে যততা সম্ভব সমান রাখার চেষ্টা করতে হবে। চার্জার পোর্টে অনেক সময় ময়লা জমে সমস্যা করে, তাই তা পরিষ্কার রাখতে হবে। আঘাত ও ক্যাবলে চাপ খাওয়া থেকে রক্ষার চেষ্টা করতে হবে।

ডিসপ্লে হিঞ্জঃ অতিরিক্ত ব্যবহার ও অসাবধানতার কারনে ডিসপ্লে হিঞ্জ খুব সহজেই ভেঙ্গে যায়, যেহেতু এটি ফিজিক্যাল ড্যামেজ তাই warranty ও পাওয়া যায় না তাই বাধ্যহয়ে তা ফলে দিতে হয় অথবা অনেক খরচ করে তা ঠিক করাতে হয়। অনেক রিপেয়ার সপ তা পরিবর্তন বা মেরামত করে দেয়, তবে আপনার নিজের একটু সর্তকতা এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। একটু সময় নিয়ে মাঝে আঙ্গুল দিয়ে display lid opening ও close করলে অতিরিক্ত চাপ পরবে না এবং হিঞ্জ ভাঙ্গার সম্ভাবনা ও কমে যাবে।

একটি কাজের ডিভাইস হিসাবে ল্যাপটপ কতটা দরকার তা নষ্ট হলেই বোঝা যায়, তাই একটু যত্ন সহকারে ব্যবহার করবেন তা থেকে অনেক দিন ঝামেলা মুক্ত সেবা পেতে।