Mi 3C 300 Mbps WiFi Router! Is it good enough?

আজকে আমরা রিভিউ করব একটা সুপার কুল সুপার পপুলার বাজেট নেটওয়ার্কিং প্রডাক্ট, শাওমি বা মি ওয়াইফাই রাউটার থ্রি সি। রাউটারটি আমরা কিনি শাডমারট ডট কম থেকে, এর দাম ছিল ১৭০৯ টাকা, যেহেতু তারা সরাসরি চায়না থেকে অরিজিনাল প্রডাক্ট এয়ারে নিয়ে আসে তাই শিপিং কস্ট আরো কিছু যোগ হয়ে ২০০০ টাকা হয়ে যায়। রাউটারের জন্য ২০০০ টাকা বাজেট কনজুমারদের জন্য একটা ডিসেন্ট প্রাইস, চলুন দেখে নেই Xiaomi Mi 3C রাউটারটি কেমন পারফর্ম করে।

Unboxing

কথা না বাড়িয়ে আনবক্সিং শুরু করে দেই।

Xiaomi Mi 3C রাউটারের বাক্সটার উপরেই একটা ক্যাট ফাইভ ক্যাবল দেয়া আছে, তার মানে এই জিনিস ভিতরে নেই। শাওমি রাউটারটির বাক্সটি বেশ বড়সড়, এই প্রাইস রেঞ্জে টিপি লিঙ্ক, ডি লিঙ্ক রাউটার গুলোর তুলনায় যেহেতু এটাতে চারটি এন্টেনা দেয়া হয়েছে, নরমালি এই প্রাইস রেঞ্জে দুইটার বেশি এন্টেনা অন্য রাউটার গুলোয় দেখা যায় না। সাদা বাক্সটি বেশ প্রিমিয়াম লুকিং স্লিক ডিজাইনের। ভিতরে কমলা রঙের বক্সটাও বেশ গুড লুকিং। প্রথমেই দেয়া চার এন্টেনা বিশিস্ট মেইন রাউটারটি।

এন্টেনা গুলো বেশ লম্বা লম্বা, কিন্তু সেগুলো কতদূর পৌছায় তা আমরা কিছুক্ষণ পরেই পরীক্ষা করে দেখব। সাদা রঙের রাউটারটি প্লাস্টিক বডি। বিল্ড কোয়ালিটি দাম তুলনায় দারুন। এর আগে ডি লিঙ্ক, টিপি লিঙ্ক এর ১৫০০ ২০০০ টাকার রাউটার ব্যাবহার করেছি, তবে এটা এক কথায় জোস, একটা ব্র্যান্ড ব্র্যান্ড ফিল পাওয়া যাচ্ছিল।

Build Quality & Connectivity

বেশ হালকা এই রাউটারে দেয়া আছে মিডিয়াটেক এমটি ৭৬ ২০১৮ প্রসেসর, ৬৪ মেগাবাইট ডিডিআর ২ র‍্যাম এবং ১৬ মেগাবাইট মেমোরি, যদিও এতে এক্সট্রা মেমোরি কার্ড লাগানোর যায়গা নেই। রাউটারের পিছনে একটা সুক্ষ ছিদ্রের ভেতরে রয়েছে রিসেট বাটনটি, যেটা ব্যাবহার করতে একটা সেফটি পিন লাগবে, এর পরে আছে দুটি ল্যান পোর্ট, উল্লেখ্য এই বাজেটের অন্য রাউটার গুলোতে ৪-৫ টা ল্যান পোর্ট দেয়া থাকে। এখানে ক্যাট ফাইভ ক্যাবল দিয়ে সরাসরি ডেস্কটপ বা ল্যাপ্টপে কানেকশন দেয়া যায়। এরপরে আছে একটা ওয়্যান পোর্ট যেখানে ক্যাট ফাইভ দিয়ে মডেমের কানেকশন দিতে হবে, সব শেষে পাওয়ার পোর্ট।

Mi 3C এর নিচের দিকে অনেক গুলো ছিদ্র দেয়া থাকায় হিট খুব সহজে বের হয়ে যাবে বলে  আশা করা যায়। বক্সের ভিতরে এরপরে দেয়া আছে একটা কুইক স্টার্ট গাইড, তবে সহজবোধ্য চাইনিজ ভাষায় লেখা থাকায় যেটি কোন কাজে লাগেনি। সবার নিচে দেয়া আছে সাদা রঙের পাওয়ার এডাপ্টারটি।

Router Setup

বক্সে দেয়া কিউ আর কোডটি ব্যাবহার করে মি ওয়াইফাই এপ্টি এপল বা গুগল প্লে স্টোর থেকে নামিয়ে নেয়া যাবে। তবে যেহেতু আমরা পিসি বিল্ডার বাংলাদেশ তাই এপের দিকে না গিয়ে আমরা ডেস্কটপে সেটাপ প্রসেস কমপ্লিট করার উদ্যোগ নেই।

একটি ল্যান ক্যাবল দিয়ে পিসিতে কানেক্ট করে আমরা রাউটারের পেছনে দেয়া থাকা এক্সেস আইপি ১৯২.১৬৮.৩১.১ এ বীরের মত ঢুকে পড়ি। কিন্তু দুঃখজনক ভাবে ধরা খেয়ে যাই যখন দেখি এতে সেই চিরচেনা সহজবোধ্য চাইনিজ ফার্ময়্যার দেয়া আছে। তাই বাধ্য হয়েই আমরা মি ওয়াইফাই এপে ফিরে যাই।

প্রথমে রাউটারটি চালু করে ফোনটিকে রাউটারের ওয়াইফাই নেটওয়ার্কে কানেক্ট করে দেই। এর পর মি ওয়াই ফাই এপে সেটাপ এ নিউ কানেকশন প্রসেসটি কোন কথা না বলে শুরু করে দেই। এরপরে আমরা সিলেক্ট করব এজ এ নিউ রাউটার, এরপরে আমরা আমাদের ডায়াল আপ ইন্টারনেটের ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড দেব।

অনেক সময় আইএস্পি ম্যাক এড্রেস ব্লক করে রাখে, এক্ষেত্রে তাদেরকে ফোন দিয়ে হবে যাতে নতুন ম্যাক এড্রেসটি তারা এপ্রুভ করে দেয়। রাউটারটি ইন্টারনেটে কানেক্টেড হয়ে গেলে আমরা ওয়াই ফাই নেটওয়ার্কটির নাম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে সেটাপ করে ফেলব। কয়েক সেকেন্ডের ভেতরে নেটওয়ার্কটি চালু হয়ে যাবে, এর পরে এপে মি আকাউন্ট দিয়ে লগিন করতে হবে, যাদের মি একাউন্ট নেই তারা নতুন খুলে নিবেন।

ব্যাস হয়ে গেল ২ মিনিটে রাউটার কনফিগারেশন, মি আইডি পাস ব্যাবহার করে এপটিতে লগিন করতে পারবেন, লগিনের পর যদি রাউটার পেয়ার করার অপশন আসে তাহলে ওয়াই ফাই পাসোয়ার্ডটি রাউটারের এডমিন পাসয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করবেন।

Initial Opinion

এপটি ব্যাবহার করে রাউটারটি সেটাপ করা ছিল বেশ সহজ। এপটিতে অনেক গুলো ইউজফুল ফিচার দেয়া আছে, যেমন ফায়ারওয়াল, প্যারেন্টাল কন্ট্রোল, গেস্ট ওয়াইফাই। এপের ভেতরেই দেখা যাবে কি কি ডিভাইস কানেক্টেড আছে ওয়াইফাই নেটয়ার্কে, চাইলে যে কোনটি ডিস্কানেক্ট করে দেয়া যাবে এবং প্রয়োজনে নির্দিস্ট ওয়েবসাইটও ব্লক করে দেয়া যাবে নির্দিস্ট ডিভাইসে।

এপ্টা বেশ ফাস্ট হলেও কিছুটা বাগি, তবে কাজ চালিয়ে নেয়া যায়। আর সার্টেনলি চাইনিজ ফার্মওয়ার এর ডেস্কটপ সেটাপ থেকে হাজার গুন সহজ। তবে যেহেতু আমরা পিসি বিল্ডার বাংলাদেশ তাই আবার একটা চেষ্টা নেব ইংরেজি ফার্মোয়ার ইন্সটল করার, সুযোগ পেলে একটা গাইডও লিখে ফেলব আমাদের ওয়াবসাইটে যারা আমাদের মত ডেস্কটপেই সেটাপ করতে চান তাদের কথা চিন্তা করে।

Coverage

আমাদের ২০০০ স্কয়ার ফিটের বাসার মোটামুটি মাঝামাঝি প্লেস করে আমরা তিন বেড্রুমেই অলমোস্ট ফুল সিগন্যাল পেয়েছি। তবে বারান্দা গুলোতে সিগন্যাল কিছুটা কম ছিল। পেনিট্রেট ওয়াল ফিচারটি ব্যবহার করে এক্ষেত্রে বেশ ভাল ফ্লো পেয়েছি। বেশ কিছু রাউটার ব্যবহারের অভিজ্ঞতা থেকে বলছি এই প্রাইসের রাউটার গুলোর তুলনায় এর কভারেজ প্রায় ২০% বেশি। ২০০০ স্কয়ার ফিট এর নিচে ১৫০০ বা এর পাশের বাসা বা এরিয়া কভারের জন্য রাউটারটি পার্ফেক্ট মনে হয়েছে।

Where To Buy

হাজার দুয়েক টাকা খরচ করে রাউটারটি অর্ডার করতে পারবেন শাডমারট ডট কমে, ভিডিও ডেসক্রিপশনে লিঙ্ক দেয়া থাকবে, ১০-১৫ দিনের মধ্যে সরাসরি আপনাদের বাসায় চলে আসবে চায়না থেকে। শাডমারটের কাছে একটু ভাব নিয়ে আমরা সংগ্রহ করে ফেলি আপনাদের জন্য একটা ডিস্কাউন্ট কোড।  PCB5OFF কোডটি চেক আউটের সময় ব্যাবহার করতে ভুলবেন না। আপনারা আলিএক্সপ্রেসে এভেলেবেল শাওমি সহ আরো অনেক নামকরা চাইনিজ ব্র্যান্ডের মোটামুটি সব প্রোডাক্টই পাবেন। যদি কোন কিছু অর্ডার করেই ফেলেন তবে ডিস্কাউন্ট কোডটি ব্যবহার করতে ভুলবেন না।

শাডমারট থেকে ডিস্কাউন্টে কিনতে ক্লিক করুন এখানে