এ বছরের মানে ২০১৮ সালের স্মার্টফোন ডিজাইনের মূল আকর্ষণ ছিলো নচ! বিশেষ করে আইফোনে নচ আসার পর থেকেই অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসগুলোতেও নচ আসা শুরু করে, পরবর্তীতে আমরা এখন বাজেট অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনেও নচ দেখতে পাচ্ছি। কিন্তু ২০১৮ সাল প্রায় শেষের দিকে, আর ২০১৯ সালের অন্যতম ডিজাইন ট্রেড হচ্ছে bazelless ডিজাইন এবং ওয়াটারড্রপ নচ। দুটি ডিজাইনেই আমরা screen to body রেশিও অনেক বেশি দেখতে পাবো। আর ওয়াটারড্রপ নচ ডিজাইনটি অনেকেই পছন্দ করলেও এখন পর্যন্ত শাওমির কোনো ডিভাইসে ওয়াটারড্রপ নচ ডিজাইনটি আমরা দেখতে পাই নি, তবে সুঃখবর হচ্ছে গতকাল শাওমি তাদের “প্রথম” ওয়াটারড্রপ নচ ডিজাইনের স্মার্টফোন চায়নাতে লঞ্চ করলো, ডিভাইসটির নাম হচ্ছে Xiaomi Mi Play!
স্মার্টফোনে Play কথাটা থাকার পরেও শাওমির এই ডিভাইসটিকে সম্পূর্ণরূপে “গেমিং” স্মার্টফোন হিসেবে বলা যায় না, বিশেষ করে যখন অনান্য ব্রান্ডের Play স্মার্টফোনগুলো গেমিং কেন্দ্রিক হলেও শাওমির এই ডিভাইসটি একটি লো টু মিডরেঞ্জ স্মার্টফোন হিসেবে আখ্যায়িত করা যায়। পারফরমেন্সের চেয়ে ডিভাইসটির ডিজাইনের দিকে শাওমি বেশ নজর দিয়েছে সেটা মানতেই হয়।

Mi Play ডিভাইসটি দেখতে বা এর ডিজাইনটি অনেকটাই Mi 8 Lite ডিভাইসটির মতোই। Mi Play ডিভাইসটির সামনে এবং পেছনের দুটি সাইডেই ব্যবহার করা হয়েছে গরিলা গ্লাস এবং মাঝে ব্যবহার করা হয়েছে মেটাল ফ্রেম। ডিভাইসটি পাওয়া যাবে তিনটি রংয়ে; Black, Fantasy Blue এবং Twilight Gold । আর এ বছরের অন্যতম ট্রেন্ড ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপও থাকছে ডিভাইসটিতে। তবে ফ্ল্যাশলাইট মাঝে না দিয়ে এই ডিভাইসটির ক্যামেরার নিচের দিকে ফ্ল্যাশলাইট দেওয়া হয়েছে।

ডিভাইসটির ডিসপ্লেতে রয়েছে 19:9 রেশিও এবং রেজুলেশন হচ্ছে FHD+ । ডিভাইসটিতে পাওয়ার হিসেবে রয়েছে মিডিয়াটেকের নতুন এন্ট্রি লেভেল প্রসেসর Helio P35 । এই Helio P35 হচ্ছে একটি 12nm অক্টা-কোর চিপসেট যেখানে GPU হিসেবে থাকছে PowerVR জিপিইউ। শাওমির ভাষ্যমতে এই চিপসেটটি স্ন্যাপড্রাগন ৬২৫ এর থেকেও বেশি ভালো পারফরমেন্স দিতে পারবে তবে বর্তমানে এন্ট্রি টু মিডরেঞ্জ লেভেলে স্ন্যাপড্রাগন ৬৩২ চিপসেটের স্মার্টফোনগুলো বাজার মাতাচ্ছে, তাই এই Helio P35 চিপসেটযুক্ত ডিভাইসটি বাজারের Snapdragon 632 চিপসেটযুক্ত ডিভাইসের সাথে প্রতিযোগীতায় নামবে বলে ধরা হচ্ছে।

ডিভাইসটিতে রয়েছে ৫.৮৪ ইঞ্চির 2280 x 1080 রেজুলেশনের স্ক্রিণ, রয়েছে ৪ গিগাবাইট র‌্যাম, ৬৪ গিগাবাইট স্টোরেজ, পেছনের ক্যামেরায় পাচ্ছেন ১২ এবং ২ মেগাপিক্সেলের লেন্স, সামনের ক্যামেরায় পাচ্ছেন ৮ মেগাপিক্সেলের লেন্স। ব্যাটারি হিসেবে দেওয়া হয়েছে ৩০০ mAh ক্ষমতার ব্যাটারি। তবে বাজেট স্মার্টফোন হওয়ায় অনান্য বাজেট স্মার্টফোনের মতোই এই মডেলেও শাওমি ব্যবহার করেছে MicroUSB পোর্ট।
ডিভাইসটি চায়না লঞ্চ হচ্ছে ১০৯৯ Yuan মূল্যে, যা মার্কিন ডলারে রূপান্তর করলে দাড়ায় ১৬০; মানে ১৩ হাজার ৪৩২ টাকা । বাংলাদেশের বাজারে আপনি আনঅফিসিয়াল ভাবে ডিভাইসটির ১৬ থেকে ২০ হাজার টাকার মধ্যে পেয়ে যাবেন।

Mi Play ডিভাইসটিকে “প্রথম” ওয়াটারড্রপ নচযুক্ত শাওমি স্মার্টফোন বলা হলেও এটি কিন্তু “শুধুমাত্র” ওয়াটারড্রপ নচযুক্ত শাওমি স্মার্টফোন নয়। শাওমির আপকামিং Redmi 7 Pro ডিভাইসেও রয়েছে ওয়াটারড্রপ নচ ডিজাইন। রেডমি সিরিজের নতুন এই ডিভাইসটির ব্যাপারে এখনো বিস্তারিত কোনো নিউজ পাওয়া যায়নি, তবে Redmi 7a, Redmi 7 এবং Redmi 7 Pro ডিভাইসগুলো ২০১৯ সালের জানুয়ারী মাসে এনাউন্স করা হতে পারে আর ডিভাইসগুলোর ব্যাপারে নিশ্চিত কোনো নিউজ পাওয়া গেলে আমি সেটা PCB তে আপনাদের সামনে উপস্থাপন করবো।