কেন এই বিল্ড

আসসালামু আলাইকুম, অনেকদিন ধরে একটা রিকোয়েস্ট ছিল আপনাদের, যে ১০ হাজার টাকার মধ্যে একটা পিসি বিল্ড গাইড। যেটা হবে একদম বেসিক পিসি, বেসিক কাজ গুলো করা যাবে। বিশেষ করে অফিসিয়াল কাজ এবং শেখার জন্য যাদের একটা কম্পিউটার দরকার কিন্তু বাজেট খুব লিমিটেড। কোন ভাবেই যাদের বাড়ানোর কোন উপায় নেই, তাদের কথা মাথায় রেখে এই পিসি।

আপনাদের এই রিকোয়েস্ট আমরা ASUS BANGLADESHকে পৌছিয়ে দেই। তারা আমাদের সল্যুশন হিসেবে পাঠায় একটা বক্স। যার টোটাল ১৩,৩০০ টাকা। যেটি বেসিক কম্পিউটিং নিডস গুলো পুরনে সক্ষম। এছাড়া আপনারা হয়ত সেকেন্ড হ্যান্ড প্রোডাক্ট দিয়েও এই রেঞ্জের বিল্ড করতে পারবেন, চলুন দেখে নেই সেকেন্ড হ্যান্ড প্রোডাক্ট কিনতে যে বিষয় গুলো জেনে রাখা ভাল।

সেকেন্ডহ্যান্ড প্রোডাক্টে প্রোস/কনস

প্রোস

সেকেন্ডহ্যান্ড পণ্যের সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে, হয়ত ২০-২৫ বা এর থেকে বেশি বাজেটের একটা পিসি কম টাকায় পাওয়া যেতে পারে। ফেসবুক বায়িং সেলিং গ্রুপ গুলোতে অনেক সময় দেখা যায় এই ধরনের বিজ্ঞাপন যেখানে লেখা থাকে “Need urgent money”. অনেক সময় সেলাররা তাড়াতাড়ি বিক্রির জন্য এরকম বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে। আপনারা চাইলে ফেসবুকে আমাদের হার্ডওয়্যার বায়িং সেলিং গ্রুপে যুক্ত হতে পারেন এই লিংকে ক্লিক করে

কনস

সেকেন্ডহ্যান্ড প্রোডাক্টের প্রথম ও প্রধান নেগেটিভ সাইড হচ্ছে যে এতে ওয়ারেন্টি পাওয়ার কোন গ্যারান্টি নেই, মানে নিশ্চয়তা নেই। আবার ব্যবহৃত হয়ার কারনে প্রোডাক্টের লাইফ এক্সপেক্ট্যান্সি কম বেশি হতে পারে। সবসময় যে এই ধরনের ডিল যে পাবেন এর কোন নিশ্চয়তা নেই। যখন দরকার নেই তখন দেখবেন ভুরি ভুরি অফার আবার দরকারের সময় একটি অফার ও খুঁজে পাওয়া যায় না।

এর অর্থ এটা না যে আপনারা ইউস করা পণ্য কিনবেন না, আমরা নিজেরাও কিনি এবং বিক্রিও করি। এই সেকেন্ডহ্যান্ড কম্পিউটার পণ্যের একটা বড় ইন্ডাস্ট্রিও আছে। যাস্ট একটু কেনার সময় সতর্ক থাকতে হবে।

আমরা টেক চ্যানেল হিসেবে রিস্ক ফ্যাক্টর নিয়ে কাজ করতে পারি না, তাই নতুন প্রোডাক্ট নিয়েই আমরা  বিল্ডটি করছি। যার সাথে প্রপার ওয়ারেন্টি আছে।

কম্পোনেন্টস 

Asus J3355I-C Prime (Built-in Processor Celeron Dual Core)

Asus J3355I-C Prime (Built-in Processor Celeron Dual Core)

আসুসের এই মাদারবোর্ডটিতে বিল্ট ইন ইন্টেল সেলেরন ডুয়াল কোর প্রসেসর দেয়া আছে। লো প্রাইসের মাদারবোর্ড হিসেবে এর বিল্ড কোয়ালিটি এক্সেলেন্ট। এর HDMI পোর্টে ম্যাক্স রেজুলুশন পাচ্ছেন ৩৮৪০x২১৬০ ৩০ হার্জে। ৬ জিবিএস সেটা পোর্ট ২টি, রিয়েল টেক হাই ডেফিনিশন অডিও এবং PCI 2.0 x 4 (x 1 মোড) এক্সপ্যানশন স্লট পাচ্ছেন। সিপিউটি আল্ট্রা লো ভোল্টেজ 14NM যার শেয়ার্ড গ্রাফিক্স মেমোরি ৫১২ মেগাবাইট এ বং ডিরেক্ট এক্স ১১.১ সাপোর্টেড। এছাড়া ইন্টিগ্রেটেড ইউএসবি ৩.০ সাপোর্ট ও পাচ্ছেন। মাদারবোর্ডটির বর্তমান বাজার মুল্য ৫,৩০০ টাকা। কিনতে পারবেন আসুসের এজেন্ট দের কাছ থেকে, নিচে লিঙ্ক দেয়া থাকবে।

মাদারবোর্ডটি কিনতে এখানে ক্লিক করুন

tOSHIBA 1TB HDDToshiba 1TB HDD

আমরা ব্যবহার করেছি Toshiba 1 TB হার্ড ড্রাইভ, যার বাজার মুল্য ৩,৪০০ টাকা। আপনারা চাইলে যেকোন স্টোরেজ ড্রাইভ ব্যবহার করতে পারেন।

হার্ড ড্রাইভটি অনলাইনে অর্ডার করতে ক্লিক করুন

 

ADATA 4 GB DDR3 Price in BDRAM Adata 4GB DDR3

৪ জিবি DDR3 1600 Bus এর র‍্যাম কীটটি আমাদের প্রোভাইড করেছে ADATA। এখানে উল্লেখ্য যে মাদারবোর্ডটি DDR3 র‍্যাম সাপোর্ট করবে। এই কিটটির দাম ২,৯০০ টাকা।

র‍্যাম কিট অনলাইনে অর্ডার করতে এখানে ক্লিক করুন

Golden Field 116 Casing

একদম বেসিক এই কেসিং টি গোল্ডেন ফিল্ড ব্র্যান্ডের। গোল্ডেন ফিল্ড স্বল্প মূল্যে কোয়ালিটি কেসিং এর জন্য বেশ সুনাম করেছে। আমারা ব্যবহার করছি তাদের 116 মডেলের কেসটি। এতে বিল্ট ইন ৪৫০ ওয়াট এর পাওয়ার সাপ্লাই ইউনিট দেয়া আছে। এর দাম পড়বে ১,৭০০ টাকা।

কেসটি অনলাইনে অর্ডার করতে এখানে ক্লিক করুন

পারফর্মেন্স

  • সিনেবেঞ্চ, সিপিউ জেড এবং জিপিউ জেড আমরা টেস্ট করেছি। এখানে বলে রাখা ভাল ১৩ হাজার টাকার এই পিসি থ্রিডী রেন্ডারিং এর জন্য নয়।
  • এডিটিং ৪.৩০ মিনিট এর একটা ইউটিউব ভিডিও আমরা ৭২০ পিক্সেল এর ভিডিও রেন্ডার করেছি প্রিমিয়ার প্রো তে, সময় লেগেছে ১৫ মিনিট আর ১০৮০ পিক্সেল ফুল এইচডি রেন্ডারিং এ লেগেছে ১ ঘণ্টা।
  • গেমিং টেস্ট আমরা করেছি Witcher 3 খেলে। গেমটি চললেও মাত্র ৫-৭ FPS পেয়েছি। তার মানে নতুন গেম গুলো খেলা হবে অসম্ভব। তবে বছর কয়েক আগের গেম গুলো খেলতে পারবেন।
  • মাইক্রোসফট অফিস টুল গুলো যেমন, ওয়ার্ড, এক্সেল, পাওয়ারপয়েন্ট ব্যবহার করতে পারবেন খুবই সহজে।
  • ওয়েব ডেভ্লপমেন্ট এর বেসিক টুল গুলো যেমন নোটপ্যাড++, নোটপ্যাড সহজেই চলবে।
  • ফটোশপে বেসিক এডিটিং করেছি আমরা, তবে মাল্টি লেয়ারে কিছুটা ল্যাগ ফেস করতে হবে।
  • ব্রাউজিং ছিল এক্সমি স্মুথ, তবে অনেক গুলো ট্যাব ওপেন করলে বা ভারি কোন স্ক্রিপ্ট ব্যবহার করলে একটু ল্যাগ পাওয়া যাবে।
  • মুভি বা ভিডিও দেখার একপেরিয়েন্স ছিল একদমই প্রপার এবং স্মুথ।

কাদের জন্য এই বিল্ড

যাদের শেখার জন্য বা বেসিক কাজ করার জন্য একটা কমদামি কম্পিউটার দরকার তাদের জন্য এই পিসি। টুকিটাকি কাজ এটা দিয়ে আরামেই করে ফেলতে পারবেন। তবে যারা কিছুটা হেভি কাজ যেমন ভিডিও এডিটীং ড়েন্ডারিং করবেন তাদের বলব ৫০ হাজারের আশে পাশে বাজেট রাখতে। আর গেমিং এর জন্য আমাদের ২৫ হাজার টাকার পিসি বায়িং গাইডটি দেখতে পারেন।

আমরা পুরো পিসি বিল্ডটি এবং পারফর্মেন্স টেস্ট করেছি ক্যামেরার সামনে। ভিডিওটি দেয়া আছে আমদের ইউটিউব চ্যানেলে। পুরো প্রসেস্টি দেখতে ইউটিউব থেকে ঘুরে আসতে পারেন এই লিংকে

আজকের জন্য বিদায় নিচ্ছি, কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করতে ভুলবেন না, চেষ্টা করব উত্তর দেয়ার।