কম্পিউটার জগতে ASUS এর নাম ছোট বড় প্রায় সব মানুষই জানে। এমনকি যে কোন দোকানে গেলে প্রথম যে ব্র্যান্ডের প্রোডাক্টের রেকমেন্ডেশন আসে তা হচ্ছে ‘ASUS’ এর। গতকাল হয়ে গেল ASUS এর কম্পিউটেক্স প্রেস কনফারেন্স যার উদ্বোধন করেন আসুসের হনারেবল চেয়ারম্যান মি. জনি শিহ। আগে থেকেই অনেকটা জানার কথা ছিল এই ইভেন্টে নতুন কোন মাদারবোর্ড বা গ্রাফিক্স কার্ডের দেখা পাবো না। আর গেমিং পেরিফেরালস এর সম্পূর্ণ ভার এখন গেমিং সাব ব্র্যান্ড ROG এর নীচে। কিন্তু তারপরেও বলা যায় ASUS তাদের নতুন ইনোভেটিভ প্রোডাক্ট এর রিলিজ ঘোষণা করেছে তাদের এই প্রেস ইভেন্টে।

ASUS VIVOWatch BP! The First Smartwatch To Monitor Blood Pressure

প্রেস কনফারেন্সের মূল অংশ শুরু হয় একটি স্মার্টওয়াচ এনাউন্সমেন্টের মাধ্যমে। গত ৩ বছর আগে আসুস তাদের প্রথম স্মার্ট ওয়াচ VIVOWatch বের করে। ৩ বছর পর ২০১৮ সালে এসে আসুস এবার টেক দুনিয়ায় প্রথমবারের মত এমন একটি স্মার্টওয়াচ এনাউন্স করল যা অন দা গো আপনার ব্লাড প্রেশার মাপতে পারবে। ASUS VIVOWatch BP হচ্ছে এমনই একটি স্মার্ট ওয়াচ যা ৪ টি সেন্সর ব্যাবহার করে আপনার বর্তমান ব্লাড প্রেশার কি অবস্থায় আছে তা সঠিকভাবে নির্ধারণ করে দেবে।

কিভাবে এই ওয়াচে আপনি ব্লাড প্রেশার মাপবেন? ওয়াচের উপরের বাম দিকে একটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট রিডার থাকবে যাতে আপনি ব্যাবহারের শুরুতে আপনার আইডি সেট করে নেবেন। এরপর সেই ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের উপর ১৫ সেকেন্ড প্রেস করে রাখলেই আপনি পেয়ে যাবেন আপনার ব্লাড প্রেশার আর তার সাথে আপনার হার্ট বিট রেট। সাধারণত আমরা একটি স্মার্টওয়াচে ৫/৬ দিন এবং একদম প্রিমিয়াম মডেলে সর্বচ্চো ১০ দিনের অন টাইম পাই নতুন করে চার্জে দেবার আগ পর্যন্ত। কিন্তু এই স্মার্ট ওয়াচে আপনারা পাবেন ২০ দিন পর্যন্ত ডিভাইস অন টাইম।

এছাড়াও এই ডিভাইসের আপনারা পাবেন ‘Health AI’ এপ। এই এপে আপনার স্মার্টওয়াচের সকল তথ্য সেভ থাকবে। এপটিতে গিয়ে আপনি ওয়াইফাইয়ের মাধ্যমে স্মার্টওয়াচটিকে আপনার ফোনের সাথে কানেক্ট করে নিতে পারবেন। এই এপে আপনার ব্লাড প্রেশার অনুযায়ী বিভিন্ন ধরণের সাজেশন আসবে। অর্থাৎ আপনার ব্লাড প্রেশার কমে গেলে তা বাড়ানর জন্য কি কি করতে হবে বা বেড়ে গেলে তা কমানোর জন্য কি করতে হবে বা খেতে হবে।

এছাড়াও এই এপটি দিয়ে আপনি আপনার পার্সোনাল হ্যাবিট, স্লিপিং টাইম, এক্টিভিটি ডাটা সহ বিভিন্ন জিনিসের এনালিসিস দেখতে পারবেন। VivoWatch এই বছরের Q3 অর্থাৎ আগামি ৩ মাসের মধ্যেই রিলিজ হতে যাচ্ছে।

New VivoBook & Zenbook Laptop

আসুস তাদের প্রেস কনফারেন্সে এনাউন্স করেছে নতুন VivoBook এবং Zenbook সিরিজের ল্যাপটপ। Vivobook সিরিজের ল্যাপটপ হয়ে থাকে সাধারণ বা অন দা গো কনজুমারদের জন্য এবং Zenbook হয়ে থাকে যারা স্টাইল এবং লাইটওয়েট পছন্দ করেন কিন্তু প্রিমিয়াম কোয়ালিটিতে একদমই ছাড় দিতে পারবেন না তাদের জন্য।

VivoBook Series

আসুস তাদের প্রেস কনফারেন্সে নতুন তিনটি VivoBook ল্যাপটপের এনাউন্সমেন্ট দিয়েছে। Vivobook S13, S14 ও S15 হচ্ছে যথাক্রমে ১৩, ১৪, ও ১৫ ইঞ্চি ডিসপ্লের VivoBook ল্যাপটপ। আগে যে কোন মডেলের ল্যাপটপে তেমন একটা কালার ভ্যারিয়েশন দেখা না গেলেও আসুস তাদের VivoBook ল্যাপটপ সিরিজে আপনার পছন্দমত অনুযায়ী কালার চয়েজের অপশন রেখেছে। এতে করে আপনি আপনার স্টাইল ও টেস্ট অনুযায়ী নিজের পছন্দের কালারের VivoBook কিনে নিতে পারবেন।

এছাড়াও এবারের VivoBook সিরিজের মূল দুটি বৈশিষ্ট্যের একটি হচ্ছে এর ডিসপ্লে টিল্ট অপশন। এই প্রথমবারের মত কোন ল্যাপটপের ডিস্প্লেকে ১৩৫ ডিগ্রী এঙ্গেলে বাকানো যাবে। এই আরগোনমিক ডিজাইনের কারণে ডিসপ্লে বাকা করার পর কীবোর্ড প্রায় ৩.৫” উপরে উঠে যাবে। এতে করে যে কারো জন্য কীবোর্ডে টাইপিং অনেক সহজ হয়ে যাবে। এছাড়াও ডিসপ্লেও ভালভাবে দেখা যাবে অর্থাৎ কালার একুরেসি অনেকটাই ভাল থাকবে।

অপর বৈশিষ্ট্যটি হচ্ছে এর ডিসপ্লে হাই রেশিও এবং থিন বেজেল। S14 ও S15 মডেলে আপনারা পাচ্ছেন ৮৬% ডিসপ্লে টু বডি রেশিও, ৮.৩ মিমি. টপ বেজেল এবং মাত্র ৬.৩ মিমি. সাইড বেজেল। অপরদিকে S13 মডেলে আপনারা পাচ্ছেন ৮৯% ডিসপ্লে টু বডি রেশিও এবং তিনদিকে মাত্র ৪.৩ মিমি. বেজেল।

ZenBook 15 & Pro

এছাড়াও এই প্রেস কনফারেন্সে আসুসের প্রিমিয়াম স্টাইলিশ সিরিজ ZenBook এর নতুন দুটি মডেলের এনাউন্স করা হয়। এই সিরিজের টার্গেট থাকেন অন দা গো প্রফেশনাল ক্রিয়েটর স্পেশালি ভ্লগার বা ট্র্যাভেল ইউটিউব চ্যানেল যারা চালায় তারা। প্রথমটি হচ্ছে ZenBook 15। নাম শুনেই বুঝতে পারছেন এই ল্যাপটপে আপনারা পাবেন ১৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে। মাত্র ১২.৯ মিমি. পুরু এই ল্যাপটপের ওজন হবে মাত্র এক কেজির কাছাকাছি। কিন্তু এই স্লিম বডিতেও হাই এন্ড স্পেক্স দিতে কার্পণ্য করেনি আসুস। Zenbook 15 এ আপনারা পাচ্ছেন ইন্টেলের I7 8th জেন প্রসেসর, ১ টেরাবাইট এনভিএমই এসএসডি, ১৬ জিবি ইন্টেল অপ্টেন মেমোরি যা র‍্যাম হিসেবে কাজ করবে এবং GTX 1050 Max-Q জিপিউ।

এছাড়াও এনাউন্স করা হয় ল্যাটেস্ট ZenBook Pro এর। ১.৮ কেজির এই ল্যাপটপে আপনারা পাবেন Zenbook 15 এর মতই প্রসেসর ও স্টোরেজ কিন্তু র‍্যাম হিসবে পাচ্ছেন ১৬ জিবি ২১৩৩ মেগাহার্টজ ডিডিআর ৪ র‍্যাম এবং জিপিউ হিসেবে আছে ডেস্কটপ গ্রেড GTX 1050 ti 4 GB। এছাড়াও আপনারা পাচ্ছেন দুটি সুপারফাস্ট থান্ডারবোল্ট ৩ ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট।

কিন্তু এই ল্যাপটপের আরো একটি স্পেশাল এবং এক্সক্লুসিভ ফিচার রয়েছে যা অন্য কোন ল্যাপটপে আপনি খুজে পাবেন না। আর এটি হচ্ছে ASUS ডুয়াল ডিসপ্লে টেকনোলোজি বা স্ক্রিনপ্যাড।

Dual Display On A Laptop! The First Of It’s Kind

আসুস প্রথমবারের মত তাদের ল্যাপটপে ইন্টিগ্রেড করল একটি সেকেন্ডারি ডিসপ্লে যা মূলত আপনার ট্র্যাকপ্যাড হিসবে কাজ করবে। এই স্ক্রিনপ্যাড এর মধ্যে দেয়া আছে বিল্ট ইন কিছু এপ্স যা ZenBook Pro ব্যাবহারকে আরো ফাস্ট করে তুলবে। এই স্ক্রিনপ্যাড নিয়ে পরবর্তীতে একটি ফিচার আর্টিকেল ওয়েবসাইটে দেয়া হবে, যেখানে সব কিছুর বিস্তারিত উল্লেখ করা থাকবে।

তবে আপাতত এটা বলা যায় আন্ডারএপ্রেসিয়েটেড হলেও এই টেকনোলজি হতে পারে ল্যাপটপের জগতে কিছুটা রেভলুশনারি।

Project Precog! The Fiirst AI Laptop

২০১৮ সালে আমরা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বা AI এর বিচরণ এবং ট্রেন্ড দুটোই দেখতে পাচ্ছি। বিভিন্ন হার্ডওয়্যার এবং সুপার কম্পিউটারে বিচরণের পর AI এখন এসে গেছে হাতের মধ্যে। ASUS এনাউন্স করল তাদের সর্বপ্রথম AI নোটবুক সিরিজ ‘Project Precog’।

কনভারটেবল ডুয়াল স্ক্রিনের ল্যাপটপ রান করবে ফুল রানিং একটি এআই প্রোগ্রাম। আপনার হ্যাবিট, আপনার কীবোর্ড হ্যান্ড প্লেসমেন্ট সহ আরো অনেক কিছু এটি ডিটেক্ট করতে পারবে ল্যাপটপে থাকা সেন্সরের মাধ্যমে। এছাড়াও আপনি পাচ্ছেন ইন্টেলিজেন্ট চারজিং ফিচার, রিয়াল টাইম অব্জেক্ট ও ফেইস ডিটেকশন, নিউরাল নেটওয়ার্কসহ আরো অনেক কিছু।

তবে সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে এটি এখন আর কোন কন্সেপ্ট হিসেবে নেই, কারণ আসুস অলরেডি একটি রানিং প্রোটোটাইপ তৈরি করে ফেলছে যা দেখানো হয় প্রেস কনফারেন্সে। এটি কবে রিলিজ হবে বা দাম কত হবে সেটা নিয়ে কিছু উল্লেখ করা হয় নি তবে আশা করা যাচ্ছে ২০১৮ এর শেষের দিকে বা ২০১৯ সালের প্রথম দিকে আমরা এটি মার্কেটে দেখতে পাবো।

আপনারা সময় পেলে পড়ে আসতে পারেন ROG এর প্রেস কনফারেন্সে রিলিজ হওয়া নতুন গেমিং প্রোডাক্ট সম্পর্কে। আর্টিকেলটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন