আমেরিকায় হুয়াওয়ের বেশ খানিকটা বদনামই আছে। অনেকবারই রিপোর্ট করা হয়েছে যে তাদের মোবাইলে স্পেশাল ট্র্যাকিং কম্পোনেন্ট ও সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয় যা হুয়াওয়ে সব সময়ই অস্বীকার করে এসেছে। কিন্তু এসকল কিছু প্রমাণিত না হলেও গুগোলের পক্ষ থেকে অফিসিয়ালি জানানো হয়েছে এখন থেকে হুয়াওয়ে ফোনে আর এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা যাবে না। অর্থাৎ গুগোল এক্সক্লুসিভ এপ্লিকেশন আপনি আর ব্যবহার করতে পারবেন না এবং ভবিষ্যতে কোন নতুন এন্ড্রয়েডের আপডেটও পাবেন না।

রয়টারসের রিপোর্ট অনুযায়ী ট্রাম্প সরকার আমেরিকায় হুয়াওয়েকে ব্ল্যাক লিস্টের আওতাধীন করার কারণেই তাদের সাথে গুগোল সকল প্রকারের আর্থিক লেনদেনের সম্পর্ক বাতিল করতে যাচ্ছে। যার ফলে হুয়াওয়ের ভবিষ্যৎ মডেলগুলো আর কোন এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম আপগ্রেড করতে পারবে না। যার ফলে হুয়াওয়ের ভবিষ্যৎ ফোনে আর গুগোল প্লে স্টোর, ম্যাপস, জিমেইল সহ কোন প্রকার বেসিক এপ লোড করা থাকবে না। থার্ড পার্টি এপ হিসেবে এগুলো ইন্সটল করা হলেও এপগুলো তা রিজেক্ট করে যাবে।

এই রিপোর্টে আরো বলা হয় হুয়াওয়ে ফোনের এপ্লিকেশন প্রোগ্রাম এখন এন্ড্রয়েড ওপেন সোর্স ক্যাটাগরিতে পড়ে যাবে। হুয়াওয়ের সাথে বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ সম্পর্ক নিয়ে গুগোলের মধ্যে অভ্যন্তরীণ আলোচনা হচ্ছে বলেও জানানো হয়েছে। তবে ইতিমধ্যে রিলিজ হয়ে যাওয়া মডেলগুলোতে গুগোলের এপ্লিকেশনগুলো কার্যকর থাকবে কিনা তা নিয়ে স্পষ্ট কোন তথ্য দেয়া হয় নি।

তবে বলা যায় হুয়াওয়ে এই দুসংবাদ অনেক আগে থেকেই আশা করে আসছিল যার প্রিপারেশন তারা গোপনে গোপনেই নিয়ে আসছিল। বেশ কিছুদিন আগেই রিপোর্ট পাওয়া যায় হুয়াওয়ে তাদের সম্পূর্ণ নিজস্ব অপারেটিং সিস্টেম ডেভেলপ করছে যার নাম দেয়া হয়েছে Kirin OS। এই অপারেটিং সিস্টেম সম্পর্কে এখনো তেমন বিস্তারিত জানা না গেলেও ধারণা করা হচ্ছে এন্ড্রয়েডের জন্য থাকা সকল এপ্লিকেশনই এতে চলবে।

তবে বেশ কিছু লিক থেকে জানা গিয়েছে এই অপারেটিং সিস্টেম হতে যাচ্ছে সম্পূর্ণ লিনাক্স বেইজড। আপাতত তাদের বাজেট Honor সাব ব্র্যান্ড সিরিজের ফোনে এই অপারেটিং সিস্টেম আসার কথা থাকলেও Mate 30, Y10 সহ আপকামিং ফোনে পরিকল্পিত সময়ের আগেই এই নিজস্ব ওএসের আগমন দেখতে পারি। তবে এর ফিলিং, ফিচার আর ওভারঅল পারফর্মেন্স কেমন হবে তা রিলিজের পরেই বলা যাবে।