গত মাসের ডিসপ্লে ফেটে যাওয়ার ঘটনার পর থেকে স্যামসাং সকল শ্রেণীর মানুষের তোপের মুখে পড়ে যায়। যার কারণে অরিজিনালি সেট করা ২৬ এপ্রিলের গ্লোবাল লঞ্চ ডেট তারা বাতিল করতে বাধ্য হয়। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতি থেকে দেখা যাচ্ছে স্যামসাং এখনো Galxy Fold এর সমস্যাগুলোর সমাধান করে উঠতে পারে নি। যার কারণে, এই প্রিমিয়াম ডিভাইসটির লঞ্চ অনির্দিষ্টকালের জন্য বাতিল করে দিতে পারে স্যামসাং।

৩১ তারিখের মধ্যে শিপিং না হলে বা কাস্টমার রেস্পন্স না পেলে বাতিল হয়ে যাবে সকল অর্ডার

আমেরিকান আইন অনুযায়ী যদি কারো প্রি অর্ডার করা ডিভাইস নির্দিষ্ট তারিখের মধ্যে ডেলিভারি না করা হয় তাহলে কাস্টমারকে ফুল রিফান্ড সহ অর্ডার ক্যান্সেলশনের মেইল দিতে হবে। আর দেখা যাচ্ছে স্যামসাং এই নিয়মটি ফলো করছে। বলে রাখা ভালো সেই কুখ্যাত ডিসপ্লে ফেটে যাওয়া এবং ফোন নষ্ট হয়ে যাওয়ার ঘটনার কারণে রিভিউয়ারদের কাছে পাঠানো রিভিউ ইউনিট ফেরত নিয়ে নেয় প্রতিষ্ঠানটি। এরপর অফিসিয়ালি Galaxy Fold এর সকল সমস্যার সমাধান শীঘ্রই করা হবে বলে অফিসিয়াল ঘোষণা দেয়া হলেও দেখা যাচ্ছে এখন পর্যন্ত তেমন কোন অগ্রগতি করতে পারে নি স্যামসাং।

সকল সমস্যা একনোলেজ করে স্যামসাং তাদের কাস্টমারদের Galaxy Fold প্রি অর্ডার ক্যান্সেল করার সুযোগ দিচ্ছে। মে মাসের ৩১ তারিখের মধ্যে যদি প্রোডাক্ট শিপ না করা হয় (যেটা হবার সম্ভাবনা অনেকখানি বেশি) অথবা কাস্টমার যদি ৩১ তারিখের মধ্যে কোন রেসপন্স না করে তাহলে অটোমেটিক্যালি প্রি অর্ডার ক্যান্সেল হয়ে যাবে। কিন্তু যারা Galaxy Fold নিজের হাতে নিয়ে পরখ করতে চান তাদের জন্য দুঃসংবাদ হচ্ছে যে, সেটা করার জন্য আপনাদের দীর্ঘদিন অপেক্ষা করতে হবে।

এটা উল্লেখ করে রাখা ভাল স্যামসাং নিজেরাও এই ডিভাইস নিয়ে তেমন আত্মবিশ্বাসী ছিল না। সাধারণত নতুন কোন ডিভাইস এনাউন্স করার পর মিডিয়া পারসনদের সেটি ট্রাই আউট করে দেখার সুযোগ করে দেয়া হলেও এই ডিভাইস ছিল একদমই কালো পর্দার পেছনে। কিন্তু জেনে রাখা ভালো এই ডিভাইস অফিসিয়ালি এনাউন্স করা হয়েছে বেশ বছরখানিক ধরে টেস্টিং করার পর। তাই এখনো যা সমস্যা আছে তা হচ্ছে একেবারে শেষ পর্যায়ের সমস্যা। এগুলর সমাধান করা হলে আশা করা যাচ্ছে আর কোন অসুবিধার সম্মুখীন হতে হবে না।

গ্যালাক্সি ফোল্ডের ডিসপ্লে ফেটে যাবার ঘটনা