OnePlus কোম্পানি সব সময়ই এক প্রকারের কম্পিটিটিভ প্রাইস রেঞ্জে তাদের ফোনগুলো অফার করে। ৬০০/৭০০ ডলারের প্রাইস রেঞ্জে একেবারে হাজার ডলারের বাঘা বাঘা ফোনগুলোকে কুপকাত করে দেয়ার কারণে ইতিমধ্যে এই কোম্পানির ফোন ফ্ল্যাগশিপ কিলার হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেছে। ইতিমধ্যে ভারতে এক নাম্বার ফ্ল্যাগশিপ ব্র্যান্ড হয়ে উঠেছে OnePlus। আর কিছুদিনের মধ্যে রিলিজ হতে যাচ্ছে এই ব্র্যান্ডের নেক্সট জেনারেশন OnePlus 7 Pro ফ্ল্যাগশিপ ফোন। চলুন দেখে নেয়া যাক কি কি পাওয়া যাবে এই নেক্সট হাজার ডলার ফ্ল্যাগশিপ কিলার হতে।

OnePlus 7 Pro Specification

CPU & GPU

যেহেতু এটি হচ্ছে একেবারেই ফ্ল্যাগশিপ লেভেল ফোন, তাই লেটেস্ট Snapdragon 855 প্রসেসর ছাড়া আর কোন কিছু ব্যবহার করার সুযোগ নেই। তবে এই SD855 সিপিউতে 5G সাপোর্ট না থাকার কারণে ফোনটি 5G রেডি হচ্ছে না। গ্রাফিক্সকে পাওয়ার দেয়ার জন্য এর সাথে থাকছে Adreno 640 জিপিউ যা সকল প্রকারের হেভি ডিউটি গেম বেশ আনায়াসে রান করতে পারবে। SD855 এর মূল কনফিগারেশন নিয়ে ইতিমধ্যে বেশ কিছু আর্টিকেল পাবলিশ করা হয়েছে। চাইলে সেগুলো পড়ে আসতে পারেন এখানে ক্লিক করে

Display & Battery

যে কোন ফোনের অন্যতম মূল আকর্ষণ হয়ে থাকে এর ডিসপ্লে। তাই সবাইকে বেশ প্রিমিয়াম অভিজ্ঞতা দেয়ার জন্য OnePlus 7 Pro ফোনের প্রতিটি মডেলেই থাকছে ৬.৬৭ ইঞ্চির ফ্লুইড এমোলেড ডিসপ্লে। ৩১২০ X ১৪৪০ রেজোল্যুশনের এই ডিস্প্লের পিপিআই হবে ৫১৬ এবং রিফ্রেশ রেট থাকবে ৯০ হার্টজ। ডিসপ্লে হতে যাচ্ছে ফুল বেজেললেস। অর্থাৎ, কোন প্রকার নচের দেখা পাওয়া যাবে না। এছাড়াও থাকছে ইন ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। তবে তা অপটিক্যাল নাকি আলট্রাসনিক তা নিয়ে কনফার্মেশন দেয়া হয় নি।

ফোনটিকে পাওয়ার দেয়ার জন্য দেয়া হবে ৪ হাজার মিলিএম্প আওয়ারের ব্যাটারি যা OnePlus ক্লেইম করছে ফুল চার্জে সম্পূর্ণ এক দিন হেভি ইউজ করে চালানো সম্ভব। এই ব্যাটারিকে চার্জ দেয়া জন্য ফোনে দেয়া হচ্ছে Quick Charge সাপোর্ট। জানা গিয়েছে এর সাথে আসা চার্জারটি হবে ৩০ ওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন। সুতরাং, চারজিং নিয়ে কোন চিন্তা করতে হবে না আপনাকে।

Ram & Rom

OnePlus 7 Pro এর মোট তিনটি ভ্যারিয়ান্ট বের হচ্ছে। প্রথমটি ৬/১২৮ জিবি মডেল, এর পরেরটি ৮/২৫৬ জিবি মডেল এবং সর্বশেষ মডেলটি হচ্ছে ১২/২৫৬ জিবি ভ্যারিয়ান্টের। র‍্যাম হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে LPDDR4X মেমোরি মডিউল এবং স্টোরেজের জন্য আছে স্যামসাং এর সুপার ফাস্ট UFS 3.0 NAND স্টোরেজ চিপসেট। তবে আফসোসের বিষয়, এতে আলাদা কোন স্টোরেজ এক্সপান্ড করা অর্থাৎ মেমোরি কার্ড লাগানোর সুযোগ দেয়া হচ্ছে না।

Camera

ফ্ল্যাগশিপ ফোনের ক্যামেরা ফ্ল্যাগশিপ গুণের ছাড়া আর কোন কিছুই আশা করা ঠিক নয়। ফোনে দেয়া হতে যাচ্ছে ট্রিপল ক্যামেরা কনফিগারেশন। মেইন ক্যামেরাতে থাকছে 48MP Sony IMX586 লেন্স যার এপারেচার হচ্ছে F1.6 এবং রয়েছে অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন। মেইন ক্যামেরাটি ভিডিও রেকর্ড করতে পারবে 4K রেজোল্যুশনে ৬০ এফপিএস পর্যন্ত। এছাড়াও থাকছে সুপার স্লো মোশন ফিচার। এই ফিচার ব্যবহার করে 720p রেজোল্যুশনে রেকর্ড করতে পারবেন ৪৮০ এফপিএসে এবং 1080p রেজোল্যুশনে রেকর্ড করতে পারবেন ২৪০ এফপিএসে।

এরপর থাকছে একটি ১৬ মেগাপিক্সেলের আলট্রাওয়াইড ক্যামেরা এবং সব শেষে ৮ মেগাপিক্সেলের 3X জুম টেলিফটো ক্যামেরা। তবে এই ক্যামেরাগুলো দিয়ে কোন ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন না।

সম্পূর্ণ বেজেললেস ডিসপ্লে হবার কারণে এতে আমরা দেখতে যাচ্ছি একটি পপ আপ সেলফি ক্যামেরা। এটি ব্যবহার করবে ১৬ মেগাপিক্সেল Sony IMX471 লেন্স যার এপারচার F2.0। ভিডিও এবং ফটোগ্রাফির জন্য আছে ইলেক্ট্রনিক ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন বা E.I.S। তবে সেলফি ভিডিওগ্রাফারদের জন্য সামান্য দুঃখের বিষয় হচ্ছে এই ক্যামেরা দিয়ে 1080p রেজোল্যুশনে ৩০ এফপিএসে ভিডিও শুট করা যাবে। ৬০ এফপিএসের ফিচার এখানে পাচ্ছেন না।

বাংলাদেশে সম্ভাব্য দাম

আমেরিকান বা ইউরোপের কারেন্সি কনভার্ট করলে তার থেকে কম দামেই বাংলাদেশে আনঅফিসিয়াল ফোনগুলো পাওয়া যায়। আনঅফিসিয়াল বলার কারণ বাংলাদেশে অফিসিয়ালি Oneplus ব্র্যান্ডটি নেই। তাই যা আসে সব ভারত বা আরব আমিরাত থেকে আমদানি করে থাকে বিক্রেতারা। তবে, বেশ কিছু লিক অনুযায়ী ইউরোপে OnePlus 7 Pro এর দাম শুরু হবে ৭০০ ইউরো থেকে যা বাংলাদেশের টাকা কনভার্ট করলে দাঁড়ায় ৬৭,৪৩০ টাকার কাছাকাছি। তবে, একেবারে ৬৭,৫০০ টাকা না হলেও ভারতের দামের রেঞ্জ অনুযায়ী বাংলাদেশে এই ফোনের দাম শুরু হতে পারে ৬৫ হাজার টাকা থেকে। তবে এখনো অফিসিয়ালি দাম কনফার্ম না হওয়ায় এই দাম শুধুমাত্র একটি জল্পনা মাত্র।

Configuration: Euros: BDT (Converted)
6GB RAM, 128GB Storage: 699 67,430 Taka
8GB RAM, 256GB Storage: 749 72,250 Taka
12GB RAM, 256GB Storage: 819 79,000 Taka

আশা করা যাচ্ছে বাংলাদেশে এই ফোনটি এলে খুব শীঘ্রই পিসি বিল্ডার বাংলাদেশ ইউটিউব চ্যানেলে রিভিউ দেয়া হবে। এই ফাঁকে দেখে আসতে পারেন ১৫ হাজার টাকা বাজেট রেঞ্জের Redmi Note 7 এর রিভিউটি নীচের লিংক থেকে।

Redmi Note 7 Review