শাওমি’র মি মিক্স সিরিজে প্রতিবারই নতুন ইনোভেশন নিয়ে হাজির হয়। যেমনটা গত বছর Mi MIX 3 তে নচ বাদই দিয়ে দিয়েছিল স্লাইডিং ডিসপ্লে এর মাধ্যমে। যখন বর্তমানে ফোন ম্যানুফেকচারেরা কিভাবে ১০০ এর কাছাকাছি নেয়া ঐ চেষ্টা চালাচ্ছে  ওয়াটার ফল ডিসপ্লে ইমপ্লিমেন্টেশান এর মাধ্যমে যেমনঃ Vivo Nex 3 যেটাতে স্ক্রিন টূ বডি রেশিও ৯৪% সেখানে শাওমি Mi Mix Alpha এর মাধ্যমে স্ক্রিন টু বডি রেশিওকে অন্য মাত্রায় নিয়ে গেল। কেননা শাওমি ক্লেম করছে এতে ১৮০% এর বেশি স্ক্রিন টু বডি রেশিওকে থাকবে।

এখন কথা হচ্ছে শাওমি এত ম্যাসিভ  স্ক্রিন টু বডি রেশিও ইমপ্লিমেন্ট করল কি করে? সোজা বাংলায় বলতে গেলে শাওমি এই ফোনে একটায় ডিসপ্লে ব্যবহার করছে যেটা দুইদিক দিয়েই  বাঁকা (যে জায়গায় সাধারণত ব্যাজেল থাকে) হয়ে ফোনের অপর প্রান্তে থাকা খুবই ন্যারো একটা ক্যামেরা স্ট্রিপে মিলিত হয়েছে। ওজন হালকা করতে স্যাফায়ার গ্লাস দিয়ে তৈরি করা হয়েছে ডিসপ্লে। টাইটেনিয়াম দিয়ে তৈরি হল ক্যামেরা স্ট্রিপ।

স্ট্যাটাসবারের আইকন সব প্রর্দশিত হবে সাইডে। এখন প্রশ্ন আসতে পারে বলিউম/পাওয়ার বাটন কই যাবে? বাটন গুলোও সাইডে থাকবে আইমিন নরমাল ফোন গুলোতে যেখানে থাকে ঐখানেই থাকবে কিন্তু ভার্চুয়াল বাটন হবে যেগুলো কাজ করবে প্রেসার সেন্সিটিভ বাটন দ্বারা। তবে এই ক্ষেত্রে আনওয়ান্টেড রেসপন্স থেকে রেহায় পেতে দেওয়া হবে আর্টিফিশাল এলগরিদম।

স্যামসাং এবং শাওমির এক সাথে ডেভেলপ করা  Samsung ISOCELL Bright HMX লেন্স থাকবে যেটি ১০৮ মেগাপিক্সেলের। সাথে থাকবে ২০ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা ওয়াইড এবং ১২ মেগাপিক্সেলের ডেপথ সেন্সর। শাওমির দাবি অনুযায়ি  8x পর্যন্ত জুম করে ছবি তোলা যাবে কোনো প্রকার ডিটইলস হারানো ছাড়ায়। এইবার আসি ফ্রন্ট ক্যামেরা সেগমেন্টে।মজার ব্যাপার হল কোনো ফ্রন্ট ক্যামেরা নাই। ওয়েট ওয়াট? আসলে ফোনটিকে ফ্লিপ করলেই পিছনের স্ক্রিনেই ব্যাক ক্যামেরা ফ্রন্ট ক্যামেরার দ্বায়িত্ব নিয়ে নিজ কাঁধে নিয়ে নিবে। তাই আলাদা করে ফ্রন্ট ক্যামেরার দেওয়া হয়নি।

ফোনের অন্যান্য স্পেকগুলো অনেকটা অনুমিত। প্রসেসর হিসেবে থাকছে Qualcomm Snapdragon 855+ সাথে 5G connectivity, 12 GB of RAM, 512 GB of storage, 40W wired fast-charging, and a 4,050 mAh battery & Android Pie based MIUI 11 operating system।

সবশেষে মন খারাপ করার মত নিউজ হচ্ছে এটি এখনও কনসেপ্ট ফোনই। শাওমি আশা করছে তাঁরা ডিসেম্বরে বাজারে ছাড়তে পারে তবে সেটি একবারে অল্প কিছু ইউনিট। ইয়েনে এটির মূল্য প্রায় ১৯,৯৯৯ যা ডলারে কনভার্ট করলে দাঁড়ায় $২৮০০ এর কম বেশি।