RX 590 Phantom Gaming Leaked

আর মাত্র দুই দিন পরেই রিলিজ হতে যাচ্ছে এ এম ডির রিফ্রেশ কার্ডের রিফ্রেশ ভার্শন RX 590 জিপিউ। ইতিমধ্যে আমরা ASUS, Power Color, XFX এবং Sapphire এর RX 590 কার্ডের লিকস দেখে ফেলেছি। কিন্তু রিলিজের মাত্র দুই দিন আগেই লিক হল এ এম ডির সদ্য এক্সক্লুসিভ জিপিউ ব্র্যান্ড ASRock এর RX 590 Phantom Gaming গ্রাফিক্স কার্ড।

A Little Info About ASRock GPU

ASRock গ্রাফিক্স কার্ডের মার্কেটে সদ্য আগত একটি ব্র্যান্ড। কিন্তু মাদারবোর্ডের দিক থেকে ইতিমধ্যেই তারা একটি শক্ত অবস্থানে রয়েছে। গ্রাফিক্স কার্ডের মার্কেটে ASRock কেবল এই বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালে প্রবেশ করে। শুরুতে তারা RX 500 সিরিজের কার্ড আনলেও এ এম ডির প্রিমিয়াম RX Vega 56 ও Vega 64 কার্ড এর দেখা পেতে অনেক দিন অপেক্ষা করতে হয়। এছাড়া এই এ এম ডি কার্ডের রিলিজের মাধ্যমেই তারা তাদের Phantom Gaming সাব ব্র্যান্ডের প্রবর্তন করে যে নাম আমরা তাদের বর্তমান ও আপকামিং সিরিজের মাদারবোর্ডেও ইমপ্লিমেন্ট করতে দেখতে যাচ্ছি।

RX 590 Phantom Gaming General Specification

RX 590 Phantom Gaming এর সাধারণ স্পেসিফিকেশন প্রায় বলতে গেলে RX 580 কার্ডের মতই। পিসিবি ও মেমোরি চিপ ডিজাইন আমরা আগের কার্ডের মতই দেখতে পাচ্ছি। নতুন বলতে শুধু মাত্র কুলারের কালার স্কিম ও জিপিউ প্রসেসরের মধ্যে যা পার্থক্য রয়েছে।

RX 590 কার্ডে ব্যাবহার করা হচ্ছে এ এম ডির Polaris 30 চিপসেট যা আগের জেনারেশনের Polaris 20 এর রিফ্রেশ। তবে রিফ্রেশ হলেও এতে ব্যাবহার করা হচ্ছে ১২ ন্যানোমিটার ডিজাইন। যা নিশ্চিত করবে সেইম অথবা এর থেকেও কম পাওয়ার ড্রয়ে অধিক পারফর্মেন্স। কুলিং ডিজাইন আগের কার্ডের মতই রাখা হয়েছে ডুয়াল ফ্যান বেসিসে। এছাড়া এতে পাওয়ারের জন্য দেয়া আছে মাত্র একটি আট পিনের কানেক্টর যেখানে অন্যান্য ব্র্যান্ডের কার্ডে আমরা ৮+৬ পিনের কনফিগারেশন দেখে এসেছি। এই ৬ পিনের কানেক্টর না থাকা কার্ডটিতে কি পরিমাণ প্রভাব ফেলতে পারে তা রিভিউ দেয়ার সময়ই বোঝা যাবে।

ডিসপ্লে কানেক্টিভিটির জন্য রয়েছে একটি ডিভিআই – আই পোর্ট, একটি এইচডিএমআই ২.০ বি পোর্ট ও তিনটি ডিসপ্লে পোর্ট ১.৪। এতে আপনারা একসাথে তিনটি 4K মনিটর চালাতে পারবেন।

Release Timeline & Price

আর মাত্র দুই দিন পর অর্থাৎ নভেম্বরের ১৫ তারিখে ওয়ার্ল্ড ওয়াইড রিলিজ পেতে যাচ্ছে RX 590 জিপিউ। দাম মোটামুটি বলা যাচ্ছে ২৭০ ডলার থেকে ৩০০ ডলারের মধ্যে রাখা হতে পারে। বাংলাদেশে এই কার্ডের সম্ভাব্য দাম হতে পারে ২৮ থেকে ৩০ হাজার টাকা।

বাংলাদেশে ASRock এর জিপিউ আমদানি করে Star Tech & Engineering Ltd. কোম্পানি। আপনারা এই কার্ড নিয়ে সকল তথ্য তাদের কাছে খুজে পাবেন।

সোর্সঃ videocardz.com