প্রিমিয়াম ফ্ল্যাগশীপ কোয়ালিটির স্মার্টফোন ন্যায্যদামে দেওয়ার জন্যই ওয়ানপ্লাস ব্রান্ডটি বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়। কেন? কারণটা হচ্ছে গ্যালাক্সি এস৯+ ডিভাইসের যন্ত্রাংশের দাম হচ্ছে ৩৯০ মার্কিন ডলারের কাছাকাছি কিন্তু স্যামসং এই ডিভাইসটির মার্কেটিং করছে ৯০০ মার্কিন ডলার থেকে। আবার আইফোন ১০এস ডিভাইসেও একই ধরণের যন্ত্রাংশ ব্যবহার করা হলেও তার থেকে বহুগুণ বেশি দামে বাজারজাত করা হচ্ছে। কিন্তু শাওমি, ওয়ানপ্লাস এদের মতো ব্রান্ড মুনাফার অংশকে যথটুকু পারে কমিয়ে নিয়ে ডিভাইসকে অনেক কম দামে বাজারজাতকরণ করে থাকে। শাওমি ব্রান্ডটি এন্ট্রিলেভেলের থেকে বাজেট ডিভাইস দেওয়া শুরু করলেও প্রিমিয়াম বাজেটে শাওমির থেকে ওয়ানপ্লাস ব্রান্ডকে অনেকেই বেশি পছন্দ করে থাকেন। আর ওয়ানপ্লাস ব্রান্ডের পরবর্তী ফ্ল্যাগশীপ ডিভাইস OnePlus 6T নিয়ে আজ আমি কিছু কথা বলবো। গুগল পিক্সেল ৩ এক্সএল, আইফোন ১০এস এবং স্যামসং গ্যালাক্সি নোট ৯ এর সাথে বাজারে প্রতিযোগীতা করতে অতিশীঘ্রই আসছে OnePlus 6T ফোন। আর ডিভাইসটির সম্পর্কে কমপ্লিট লিকস নিয়েই আমার আজকের এই পোষ্ট । তো চলুন দেখে নেই আপনার জন্য কি কি নিয়ে আসছে এবারের OnePlus 6T ডিভাইসটি:

Price

প্রথমেই ডিভাইসটি দাম নিয়ে কিছু কথা বলা যাক। ওয়ানপ্লাস ব্রান্ডটি গত কয়েক বছরে তাদের ফ্ল্যাগশীপ ডিভাইসে দাম উল্লেখযোগ্য হারে পরিবর্তন করেছে। ব্রান্ডটির প্রথম ডিভাইস OnePlus One এর দাম রাখা হয়েছিলো ২৯৯ মার্কিন ডলার এবং তাদের বর্তমান ফ্ল্যাগশীপ ডিভাইস OnePlus 6 এর দাম শুরু হয় ৫২৯ মার্কিন ডলার থেকে। অন্যদিকে যদি আপনি লক্ষ্য করে তাহলে দেখবেন যে OnePlus 3T এর দাম রাখা হয়েছিলো ৪৩৯ মার্কিন ডলার আবার OnePlus 5T এর দাম রাখা হয়েছিলো ৪৭৯ মার্কিন ডলার।

তাদের রেকর্ড অনুযায়ী যদি লক্ষ্য করেন তাহলে বলা যায় যে OnePlus 6T এর দাম ব্রান্ডটি ৬০০ মার্কিন ডলারের আশেপাশে রাখতে পারে। অন্যদিকে CNET বলেছে যে OnePlus 6T এর সর্বনিম্ন দাম রাখা হতে পারে ৫৫০ মার্কিন ডলার। তবে কেইস যাই হোক, এই কনফিগারেশনের অনান্য ডিভাইসের চাইতে OnePlus 6T এর দাম তুলনামূলকহারে কম হবে।

Release Date

আগে ওয়ানপ্লাস 6T ডিভাইসটি লঞ্চ হবার কথা ছিলো অক্টোবর ১৭ তারিখে। কিন্তু সম্প্রতি ব্রান্ডটি তাদের এই ডিভাইসটির লঞ্চের তারিখ পরিবর্তন করেছে। ডিভাইসটি অক্টোবর ৩০ তারিখ (২০১৮) একই সাথে New York এবং New Delhi তে উন্মোচিত হবার কথা রয়েছে। এর পর ডিভাইসটির শিপিং শুরু হবে নভেম্বর ৬ তারিখ থেকে। তবে আপনি চাইলে আমাজন থেকে নভেম্বর ২ তারিখেই ডিভাইসটি কিনতে পারবেন। আর বাংলাদেশে আসতে আসতে ডিসেম্বর কিংবা আগামী বছরের জানুয়ারী পর্যন্ত আপনাকে অপেক্ষা করতে হতে পারে।

Screen Unlock

ডিভাইসটি স্পেসিফিকেশন এর ব্যাপারে প্রথমেই যে ফিচারটির সম্পর্কে বলতে হয় তা হলো In-Display ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরটিকে নিয়ে। ওয়ানপ্লাস এই ফিচারটির নাম রেখেছে Screen Unlock । এই In-Display ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ফিচারটি আমরা ইতিমধ্যেই Vivo এবং Oppo ডিভাইসে দেখেছি। তবে OnePlus এর CEO Pete বলেছেন যে ওয়ানপ্লাস 6T ডিভাইসের ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরটি বাজারের অনান্য In-Display ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর গুলোর থেকে ভালো এবং উন্নত পারফরমেন্স ও ফিডব্যাক দিতে পারবে।  এছাড়াও তিনি জানিয়েছেন যে এই ফিঙ্গারপ্রিন্ট ডাটাগুলো ডিভাইসটির প্রসেসর চিপের “Trust Zone” সেক্টরে জমা থাকবে। মানে ফিঙ্গারপ্রিন্ট ডাটাগুলো ওয়ানপ্লাস সার্ভারে না গিয়ে ডিভাইসেই জমা থাকবে, এতে ডিভাইসটিতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের মাধ্যমে তুলনামূলক দ্রুত আনলক করা যাবে।

Teardrop Notch

প্রথম দিকের লিকড ইমেজে OnePlus 6T ডিভাইসে টিয়ারড্রপ নচ ছিলো না। তবে মুক্তির আগ মুহূর্তের কনফার্ম লিকড ইমেজ থেকে জানা গেলো যে এবারের ওয়ানপ্লাস ডিভাইসে থাকছে টিয়ারড্রপ নচ। তবে লক্ষ্যনীয় বিষয় হচ্ছে মাত্র কয়েক milimeters এর ব্যবধানে ওয়ানপ্লাস তাদের Infinity ডিসপ্লে থেকে দূরে রয়েছে। ৯৯% Screen-to-body রেশিও ফিচারটি তারা এই OnePlus 6T ডিভাইসে আনতে পারতো কিন্তু আনেনি।

অন্যদিকে বিল্ট ডিজাইনে ডিভাইসটিতে কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে। আগের ডিভাইসটির চাইতে OnePlus 6T ডিভাইসটি bottom chin একটু বড় হবে আর ডিভাইসটি ব্যাক পার্টটিকে গ্লাসের বিল্ড দেওয়া হয়েছে, কারণ এতে ওয়্যারলেস চার্জিং ফিচারটি থাকবে তাই। যদি গুজবগুলো দেখেন তাহলে জানতে পারবেন যে এই OnePlus 6T ডিভাইসে ব্যবহৃত হয়েছে 6.4 ইঞ্চির AMOLED স্ক্রিণ যেখানে থাকছে 2340×1080 রেজুলেশন। আর ডিভাইসে পাবেন 91.5% স্ক্রিণ-টু-বডি রেশিও।

No Headphone Jack

বুম! OnePlus 6T ডিভাইসে পাচ্ছেন না কোনো হেডফোন জ্যাক। ফ্ল্যাগশীপ ডিভাইসে হেডফোন জ্যাক ব্যবহার করার কোম্পানিগুলোর মধ্যে ওয়ানপ্লাস অন্যতম ছিলো। তাদের বর্তমান ফ্ল্যাগশীপ ডিভাইস OnePlus 6 য়েও আপনি হেডফোন জ্যাকটি পাবেন। কিন্তু আপকামিং OnePlus 6T ডিভাইসে আপনি পাচ্ছেন না কোনো হেডফোন জ্যাক। উল্লেখ্য যে কোম্পানিটি নিজেই ডিভাইসে হেডফোন জ্যাকের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে আলাদা স্টেটমেন্ট দিয়েছিলো। তবে কোম্পানি ৩.৫ হেডফোনের পরিবর্তে ডিভাইসটিতে USB Type-C হেডফোনের (Wired এবং Bluetooth) ব্যবস্থা রেখেছে।

Wireless Charging এবং Water Resistance

OnePlus 6T ডিভাইসের পেছনের বিল্ড গ্লাসের হলোও কোম্পানির CEO জানিয়েছেন যে তাদের এই ডিভাইসে ওয়্যারলেস চার্জিং ফিচারটি দেওয়ার কোনো পরিকল্পনা নেই।  যেটা বড়ই দুঃখজনক! গ্লাস ব্যাক ডিজাইনে যাবার পরেও কেন ওয়্যারলেস চার্জিং ফিচারটি রাখা হলো না সেটা কেবল কোম্পানিই জানেন। তবে দেখা যাক উন্মোচন অনুষ্ঠানে কি হয়।

আর Water Resistance এর কথা বলতে গেলে OnePlus 6T ডিভাইসে Water Resistance আপনি পাবেন “তবে” এখানে কোনো প্রকার IP রেটিং আপনি পাবেন না। অন্যকথায় বলতে গেলে ডিভাইসটি যদি দুর্ঘটনা বশত আপনি পানির “বালতি”তে ফেলে দেন তাহলে ডিভাইসটির সুস্থতায় দোয়া-দুরুত পড়া ছাড়া আপনার আর কোনো উপায় নেই।

হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার

উপরের উল্লেখ্যযোগ্য ডিজাইন এবং ফিচারের পরিবর্তন ছাড়া আপনি ডিভাইসটিতে যা যা পাবেন তাহলো কোয়ালকমের স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ প্রসেসর আর সিরিজের আগের ডিভাইসের মতোই OnePlus 6T ডিভাইসেও আপনি পাবেন ৬ গিগাবাইট কিংবা ৮ গিগাবাইট এর র‌্যাম, তাই মাল্টিটাস্কিং নিয়ে কোনো চিন্তার কারণ নেই আপনার। স্টোরেজ হিসেবে পাবেন মডেল ভেদে ৬৪ / ১২৮ এবং ২৫৬ গিগাবাইটের রম। আলাদা এসডি কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন কিনা এখনো জানা যায় নি তবে কয়েকটি অপেক্ষা করুন, লঞ্চ অনুষ্ঠানে সবই আপনি জানতে পারবেন। এদিকে ওয়ানপ্লাস কনফার্ম করেছে যে এই OnePlus 6T ডিভাইসে থাকছে ৩৭০০ mAh এর ব্যাটারি লাইফ, যা OnePlus 6 ডিভাইসের থেকে ১০% বেশি! বাহ! ১৫ হাজার টাকার শাওমি সেটেও কিন্তু আপনি 4000mAh ব্যাটারি পাবেন (জাস্ট বললাম আরকি!)

আরেকটি কথা হচ্ছে OnePlus 6T ডিভাইসে আপনি Out-of-the-box হিসেবে পাবেন Android Pie ! OnePlus 6 ডিভাইসটি কেনার সময় আপনি সেখানে Android 8.1 (Oreo) পাবেন যদিও এখন সেটায় এন্ড্রয়েড pie তে আপগ্রেড করে নেওয়া যায় এবং সিরিজের আগের ফ্ল্যাগশীপ ডিভাইসগুলোতেও এখন আপনি Android Pie এর আপগ্রেড পেয়ে যাবেন কিন্তু OnePlus 6T ডিভাইসে আপনি একদম শুরু থেকেই Android 9 বা অ্যান্ড্রয়েডের লেটেস্ট ভার্সন পেয়ে যাবেন।

আপগ্রেডেড ব্যাটারি লাইফ

OnePlus 6T ডিভাইস থেকে ৩.৫m হেডফোন জ্যাক সরিয়ে ফেলায় ডিভাইসটির ইন্টারনাল স্পেস কিছুটা ফাঁকা হয়েছে তাই এই ডিভাইসে আপনারা আগের OnePlus 6 ডিভাইসটির থেকে কিছুটা বড় ব্যাটারি লাইফ পাবেন। OnePlus 6 ডিভাইসে হেডফোন জ্যাক সহ ৩৩০০mAh এর ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে এবং এই আপকামিং OnePlus 6T ডিভাইসে ব্যাটারি হিসেবে রাখা হয়েছে 3700mAh । তবে বলা বাহুল্য যে, সাইজে বড় হলেই উন্নতমানের ব্যাটারি লাইফ পাওয়া যায় না যদি না সঠিক ভাবে সফটওয়্যার অপটিমাইজেশন না করা হয়।

তো এই ছিলো OnePlus 6T নিয়ে যত গুজব এবং কনফার্মকৃত লিকস! তো নচের বদলে টিয়ারড্রপ নচ, হেডফোন জ্যাকের পরিবর্তে 3700 mAh ব্যাটারি আর কোনো ওয়্যারলেস চার্জিং ফিচার থাকছে না OnePlus 6T ডিভাইসে। এবার শুধু দেখা যাক ডিভাইসটি আসলেই ৬০০ মার্কিন ডলারে লঞ্চ হয় কিনা। আর আমরা এখনো জানি না যে ডিভাইসটি কোন কোন রংয়ে বাজারে আসছে। তবে আর যাই হোক ডিভাইসটির পারফরমেন্স নিয়ে কোনো সন্দেহ রাখবেন না কারণ ডিভাইসটি Note 9, iPhone XS এবং অনান্য ফ্ল্যাগশীপ ডিভাইসের প্রতিযোগী হিসেবে বাজারে ছাড়া হবে। আর এখনো ডিভাইসটির ক্যামেরা সেক্টরে কোনো আপগ্রেড এসেছে কিনা সেটাও কিন্তু জানা যায়নি। দেখা যাক ৩০ অক্টোবরে উন্মোচন অনুষ্ঠানে ডিভাইসটি কি কি আমাদেরকে উপহার দিতে পারে। আমি ফাহাদ আজ বিদায় নিচ্ছি PCB থেকে। আল্লাহ হাফেজ।