বিশ্বের নাম্বার চার স্মার্টফোন ব্র্যান্ড শায়োমি এক অফিসিয়াল বিবৃতিতে প্রকাশ করেছে যে তারা তাদের সকল ফোন এবং স্মার্ট ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসের জন্য নিজস্ব চিপ উৎপাদনে বিনিয়োগ করা শুরু করবে। ইতিমধ্যে তারা চাইনিজ চিপ ডিজাইনিং কোম্পানি VeriSilicon Holdings Co Ltd এর ৬% মালিকানা কিনে নিয়েছে যা কিনা তাদেরকে চিপসেট কোম্পানিটির দ্বিতীয় বৃহৎ বিনিয়োগকারী হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছে। VeriSilicon Holdings Co Ltd এর মূল বিনিয়োগকারী হচ্ছে চাইনিজ সরকার যারা কিনা প্রায় ৮৮% বিনিয়োগ করছে “China’s Greater Made in China 2025” মটোকে সামনে রেখে।

অবশ্য এর আগে থেকেই শায়োমি নিজস্ব চিপসেট উৎপাদন করা চেস্টা করেছিল। তবে বেশ কয়েক বছর যাবতই তারা এই বিষয়টি নিয়ে কিছুটা চুপচাপ ছিল। তবে ২০১৭ সালে আমরা শায়োমির প্রথম জেনারেশনের চিপসেট Surge S1 এর দেখা পাই। অবশ্য সেই চিপসেট চাইনিজ মার্কেটের দুটি মিড রেঞ্জ ফোনে ব্যবহার করা হলেও তারপর থেকে সেই বিষয়ে আর কোন খবরই পাওয়া যায় নি। ঠিক সেই সময় থেকে শায়োমি তাদের বেশিরভাগ ফোনে কোয়ালকমের স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসরের উপর নির্ভরশীল হয়ে আসছিল। তবে এন্ট্রি লেভেল কিছু ফোনে মিডিয়াটেক চিপসেটের ইন্টিগ্রেশনও দেখা গিয়েছে।

শায়োমি কোন প্রকার প্রতিযোগিতা নয়, বরং ফোন ও অন্যান্য ডিভাইসের জন্য খরচ কমানোর জন্যই এই ডিসিশন নিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। রিসেন্টলি হুয়াওয়ে ব্যান চাইনিজ অনেক প্রতিষ্ঠানকেই আমেরিকার সাথে ব্যবসায়িক সম্পর্ক রাখার ক্ষেত্রে সাবধানতা বাড়িয়ে তুলেছে। তাছাড়া, বাহির থেকে চিপসেট আমদানি করতেও বেশ বড় ধরণের খরচ হয়ে যায়, যার কারণে কাস্টমারদের আশানুরুপ দামে শায়োমি তাদের ডিভাইসগুলো মার্কেটে রিলিজ করতে পারছে না।

২০১৪ সালে শায়োমি তাদের সেমিকন্ডাক্টর ডিভিশন প্রতিষ্ঠা করার পর ২০১৭ সালে প্রথম চিপসেট বের করতে সক্ষম হয়। এখন ২০১৯ সালে এসে তাদের সম্পূর্ণ ডিভিশন VeriSilicon এর সাথে কাজ করে যাবে। VeriSilicon সম্পর্কে বেশি কিছু জানা নেই কারো সেবায় এটি হচ্ছে একটি সাংহাই বেইজড চিপসেট রিসার্চ প্রতিষ্ঠান যাতে ৭০০ লোক কাজ করছে এবং আমেরিকা ও চায়নায় মোট ৫ টি R&D ব্রাঞ্চ আছে। এর আগে অবশ্য কোম্পানিটি থার্ড পার্টি প্রতিষ্ঠানের জন্য চিপসেট রিসার্চ করে গেলেও ধারণা করা হচ্ছে সময়ের সাথে সাথে এরও নিজস্ব চিপসেট রিসার্চ ও ডেভেলপ করার সামর্থ্য হয়েছে।