গেমিং স্মার্টফোন এরিয়াটি কিন্তু ধীরে ধীরে সম্প্রসারিত হচ্ছে। সাধারণ পিসি থেকে গেমিং পিসিকে আমরা যেমন সহজেই আলাদা করতে পারি ঠিক তেমনি ভাবে অনান্য স্মার্টফোনের থেকে গেমিং স্মার্টফোনগুলোকেও আমরা সহজেই আলাদা করতে পারবো এদের স্পেসিফিকেশন এবং গেমিং টুলসের জন্য। আর গেমিং জগতে দারুণ সব গেমিং RGB হার্ডওয়্যার এবং প্রোডাক্টের জন্য Asus এর Republic of Gamers ব্রান্ড এবং একই সাথে Razer ব্রান্ড দুটোই বেশ সমান ভাবেই বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়। সম্প্রতি বাজারে রেজারের নতুন গেমিং ফোন Razer Phone 2 এসেছে। আর অন্যদিকে ASUS ROG Phone ও বাজারে বেশ কয়েক মাস ধরেই রয়েছে। তবে এখন কথা হচ্ছে কোন ফোনটি আপনি কিনবেন, কোন ফোনটি গেমিংয়ের জন্য সেরা হবে, কয়েস মাস আগে এনাউন্স করা আসুস ROG ফোনটি কিনবেন নাকি নতুন সদ্য এনাউন্স করা রেজার ফোন ২ ডিভাইসটি কিনবেন? আজকের পোষ্টে আমরা সেটাই জানার চেষ্টা করবো। প্রথমে আমরা এই দুটি গেমিং স্মার্টফোনের স্পেসিফিকেশনগুলো জেনে নেই:

স্পেসিফিকেশন

দুটি ডিভাইসের স্পেসিফিকেশনে তেমন মেজর কোনো পার্থক্য নেই। তবে যারা উন্নত মানের ডিসপ্লে রিফ্রেশ রেট নিয়ে মাথা ঘামান তাদের জন্য Razer Phone 2 এর ১২০ হার্জের ডিসপ্লে কিন্তু ব্যাপক পার্থক্য রাখবে। তবে চলুন দুটি ডিভাইসের স্পেসিফিকেশনগুলো দেখে নেই:

বিষয় Razer Phone 2 ASUS ROG Phone
অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৮.১ অরিও আ্যান্ড্রয়েড ৮.১ অরিও

ROG Gaming UI

সিম সিঙ্গেল সিম সিঙ্গেল সিম
ডিসপ্লে ৫.৭ ইঞ্চি QHD IGZO ৬ ইঞ্চি FHD+ AMOLED
ডিসপ্লে রেজুলেশন 2560 x 1440 2160 x 1080
ডিসপ্লে PPI 515 ppi 402 ppi
Aspect Ratio 16:9 18:9
রিফ্রেশ রেট 120Hz 90Hz
ডিসপ্লে প্রক্টেশন কর্নিং গরিলা গ্লাস ৫ কর্নিং গরিলা গ্লাস ৬
প্রসেসর ২.৮ গিগাহার্জ স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ অক্টা কোর সাথে থাকছে Vapor Chamber Cooling ২.৯৬ গিগাহার্জ স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ অক্টা কোর সাথে থাকছে Vapor Chamber Cooling
জিপিইউ Adreno 630 Adreno 630
র‌্যাম  ৮ গিগাবাইট ৮ গিগাবাইট
স্টোরেজ ৬৪ গিগাবাইট ৬৪ /১২৮ গিগাবাইট
আলাদা মেমোরি কার্ড ১ টেরাবাইট পর্যন্ত মেমোরি কার্ড সার্পোট করবে মেমোরি কার্ডের সার্পোট নেই
ফ্রন্ট ক্যামেরা ৮ মেগাপিক্সেল f/2.0 ৮ মেগাপিক্সেল f/2.0
ব্যাক ক্যামেরা ১২ মেগাপিক্সেল (f/1.75, OIS)
+
১২ মেগাপিক্সেল (f/2.6, telephoto)
dual-pixel PDAF
dual-tone flash
১২ মেগাপিক্সেল (f/1.8, OIS)
+
৮ মেগাপিক্সেল (120-degree wide-angle)
dual-pixel PDAF
AI scene detection
LED Flash
সিকুরিটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর
অডিও স্টেরিও ফ্রন্ট স্পিকার
ডুয়াল এমপ্লিফায়ার
ডলবি এটমস
স্টেরিও ফ্রন্ট স্পিকার
DTS Headphone:X 7.1 Virtual Surround
25-bit Hi-Res Audio
ডাইমেনশন 158.5 x 78.99 x 8.5mm 158.8 x 76.2 x 8.6mm
ব্যাটারি 4,000mAh
non-removable
Quick Charge 4.0+
Fast wireless charging
4,000mAh battery
non-removable
Quick Charge 4.0+
ASUS HyperCharge
অনান্য Razer Chroma RGB logo
IP67 water resistant
2x Ultrasonic AirTriggers
ASUS AURA RGB Logo
Compatible with ASUS mobile gaming accessories
Water resistant
বিশ্বব্যাপী মুক্তি পাচ্ছে অক্টোবর, ২০১৮ সালে অক্টোবর, ২০১৮ সালে

স্পেসিফিকেশন তো দেখে নিলাম এবার চলুন এই দুটি ডিভাইসে পাবজি মোবাইল গেমটি কিরকম পারফরমেন্স দেয় সেটা একটু দেখে আসি। কারণ পাবজি মোবাইল আল্ট্রা গ্রাফিক্স দিয়ে যে ডিভাইস চালাতে পারবে সেটা বলতে গেলে আন্ড্রয়েডের ৯০% গেমসই চালাতে পারবে।

স্পেসিফিকেশন আর পাবজির গেমপ্লে দেখে আপনারা নিশ্চয় বুঝতে পারছেন এই দুটি ডিভাইস বেশ হাই এন্ড পাওয়ারযুক্ত ডিভাইস। এই দুটি ডিভাইসে অনেক ফিচার প্যাক করা রয়েছে যা গেমারদের ছাড়াও সাধারণ পাওয়ার ইউজারদের মন সহজেই জয় করতে পারবেন। তবে সত্য কথা যদি বলি তাহলে এদের মধ্যে আসলেই কোনটি চ্যাম্পিয়ন সেটা বলা খুবই মুশকিল। কারণ দুটি ডিভাইসেই রয়েছে তাদের নিজস্ব ইউনিক কিছু ফিচার যা আপনি অন্য ডিভাইসে পাবেন না। তবে গেমিং দিক থেকে বলতে গেলে ফিচারের দিকে রেজার ফোন ২ এর চাইতে Asus ROG Phone কেই আমি এগিয়ে রাখবো।


কারণ ডিভাইস দুটি হাতে নিলেই ডিজাইনের দিক থেকে যেকেউই Asus ROG Phone কেই বেশি পছন্দ করবে। রগ ফোনটির ডিজাইন থেকেই যেকেউই বলতে পারবে যে এটি একটি গেমিং স্মার্টফোন।
অন্যদিকে রেজার তাদের রেজার ফোন ২ এর ডিজাইনে অতটা “কমপ্লেক্স” ডিজাইন না রেখে সিম্পলের মধ্যে থাকার চেষ্টা করেছে। ডিভাইসটির পেছনে Razer Chroma RGB-lit লোগোটাই একমাত্র চিহ্ন যেটা ডিভাইসে একটি গেমিং গেমিং ভাব আনার চেষ্টা করেছে।

ডিজাইন ছাড়াও আসুস তাদের ROG ফোনটির জন্য আলাদা করে গেমিং একসেসরিজ এনেছে। এদের মধ্যে রয়েছে TwinView Dock, AeroActive Cooler, Phone Dock ইত্যাদি। গেম খেলার সময় ডিভাইসটি গরম না হবার জন্য বিল্ট ইন ভেপর কুলারের পাশাপাশি আপনি AeroActive কুলার ব্যবহার করে ডিভাইসকে আরো ঠান্ডা করে রাখতে পারবেন। আর দুটি Ultrasonic AirTriggers তো বেশ ইউনিক একটি ফিচার। সার্পোটেড গেমসগুলোতে এই এয়ারট্রিগারগুলো ভার্চুয়াল বাটনের বিকল্প হিসেবে কাজ করবে।

সত্যিকারের কমপ্লেক্স গেমিং ডিজাইন থেকে সুন্দর সুশ্রি ডিজাইনের ফ্ল্যাগশীপ ফিল পেতে চাইলে আপনি চলে আসতে পারে রেজার ফোনে। Razer Phone 2 তে সুন্দর সুশ্রি ডিজাইনের পাশাপাশি রয়েছে রগ ফোনের থেকেও ভালো মানের ক্যামেরা। এর সেকেন্ডারি লেন্সে পাবেন ১২ মেগাপিক্সেল যেখানে রগ ফোনের সেকেন্ডারি লেন্সে পাবেন ৮ মেগাপিক্সেল। অডিও দিক থেকেও রগ ফোনের থেকে রেজার ফোন এগিয়ে রয়েছে। কোনো হেডফোন জ্যাক না থাকলেও বক্সের ভিতর পাবেন একটি এডাপ্টার যেটার মাধ্যমে 24-bit DAC অডিও কোয়ালিটি পাবেন যেটা হেডফোন দিয়ে বেশ ভালোই উপভোগ করতে পারবেন। অন্যদিকে লাউড স্পিকারের ক্ষেত্রে রগ ফোনের চাইতে Razer Phone 2 এগিয়ে রয়েছে। আর ডিসপ্লে রেট নিয়ে তো আবার নতুন করে কিছু বলার নেই। দামের দিক থেকে রেজার ফোনের দাম রাখা হয়েছে ৮০০ মার্কিন ডলার, অন্যদিকে ১২৮ গিগাবাইট ইন্টারনাল স্টোরেজের রগ ফোনের দাম রাখা হয়েছে ৯০০ মার্কিন ডলার, ৫১২ গিগাবাইট ইন্টারনাল স্টোরেজের দাম রাখা হয়েছে ১১০০ মার্কিন ডলার। মানে দামের দিক থেকেও Razer Phone 2 বেশ সুবিধা জনক অবস্থায় রয়েছে।

রেজার ফোন ২ ডিভাইসটি নিয়ে আমার আলাদা একটি পোষ্ট রয়েছে। সেটা দেখে আসতে পারেন এখানে ক্লিক করে।

পরিশেষে বলা যায় যে আপনি যদি সত্যিকারের গেমার হয়ে থাকে, স্মার্টফোনে গেমিং লুক পেতে চান তাহলে কোনো সন্দেহ ছাড়াই ASUS ROG Phone আপনার জন্য। কিন্তু হার্ডকোর গেমিং স্মার্টফোনের চাইতে সুশ্রি ডিজাইনের স্মার্টফোন পেতে চান যেখানে ডিজাইন নরমাল হলেও একই ধরণের পারফরমেন্স পাবেন তাহলে Razer Phone 2 আপনার জন্য। কারণ আপনি অফিস কিংবা ব্যবসায়িক মিটিংয়ে ASUS ROG Phone টি নিয়ে আসতে পারবেন না এটা বেমানান লাগায়, রেজার ফোন ২টি সব স্থানেই খাপ খাইয়ে নিতে পারবে। অন্য দিকে গেমিং টুর্নামেন্টে আপনার রেজার ফোন ২ এর চাইতে গেমিং ডিজাইনের দিক থেকে আপনার বন্ধুর Asus ROG Phone টি কিন্তু বেশ এগিয়ে থাকবে। আশা করবো আজকের পোষ্টটি আপনাদের কাছে ভালো লেগেছে। ডিভাইস দুটি রিলিজ পাবার পর পূর্ণাঙ্গ রিভিউ নিয়ে আসবো, ততক্ষন পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

কেন Razer Phone 2 কিনবেন কেন ASUS Rog Phone কিনবেন
১২০ হার্জের চমৎকার ডিসপ্লে পাবার জন্য সত্যিকারের হার্ডকোর গেমিং ডিজাইনের জন্য
বেস্ট লাউডস্পিকারের জন্য অনেকগুলো এক্সট্রা মিনি গেজেট ডিভাইসের সাথে ব্যবহার করার জন্য
উন্নত ক্যামেরার জন্য AirTrigger ফিচারটির জন্য
দামে কম হবার জন্য তুলনামূলক বড় সাইজের ডিসপ্লের জন্য
আলাদা SD কার্ড ব্যবহারের জন্য